Opu Hasnat

আজ ১৪ ডিসেম্বর শনিবার ২০১৯,

লবণ নিয়ে গুজবে বিভ্রান্ত না হওয়ার আহ্বান জাতীয়

লবণ নিয়ে গুজবে বিভ্রান্ত না হওয়ার আহ্বান

দেশে লবনের কোনো ঘাটতি নেই। লবণ নিয়ে সৃষ্ট গুজবে কান না দেয়ার পরামর্শ দিয়েছে সরকার। মঙ্গলবার শিল্প মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে লবণের মূল‌্য নিয়ে বিভ্রান্ত না হওয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, দেশে সাড়ে ৬ লাখ মেট্রিক টনের বেশি ভোজ্য লবণ মজুত রয়েছে। এর মধ্যে কক্সবাজার ও চট্টগ্রামের চাষিদের কাছে ৪ লাখ ৫ হাজার মেট্রিক টন এবং বিভিন্ন লবণ মিলের গুদামে ২ লাখ ৪৫ হাজার মেট্রিক টন লবণ মজুত রয়েছে।

এতে আরো বলা হয়েছে, সারা দেশে বিভিন্ন লবণ কোম্পানির ডিলার, পাইকারী ও খুচরা বিক্রেতাদের কাছে পর্যাপ্ত পরিমাণে লবণ মজুত রয়েছে। পাশাপাশি চলতি নভেম্বর মাস থেকে লবণের উৎপাদন মৌসুম শুরু হয়েছে।

ইতিমধ্যে কক্সবাজার জেলার কুতুবদিয়া ও মহেশখালী উপজেলায় উৎপাদিত নতুন লবণও বাজারে আসতে শুরু করেছে।

দেশে প্রতি মাসে ভোজ্য লবণের চাহিদা কম-বেশি ১ লাখ মেট্রিক টন। অন্যদিকে লবণের মজুত আছে সাড়ে ৬ লাখ মেট্রিক টন। সে হিসেবে লবণের কোনো ধরনের ঘাটতি বা সংকট হওয়ার প্রশ্ন ওঠে না।

মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, একটি স্বার্থান্বেষী মহল লবণের সংকট রয়েছে মর্মে গুজব ছড়াচ্ছে। অধিক মুনাফা লাভের আশায় লবণের বাজার অস্থিতিশীল করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে। 

এছাড়াও বিভিন্ন লবন কোম্পানীর কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, বাজারে লবনের কোন সংকট নেই এবং পূর্ব নির্ধারিত দামেই লবন বিক্রি হচ্ছে। তবে মানুষ গুজবে কান দিয়ে লোকজন স্থানীয় বাজারে হুমড়ি খেয়ে পড়ায় এবং এক এক জন প্রয়োজনের অতিরিক্ত লবন ক্রয় করায় কোন কোন বাজারে হয়তো সাময়িক সংকট দেখা দিতে পারে।
 
উল্লেখ্য, ইতিমধ্যে শিল্প মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশনের (বিসিক) প্রধান কার্যালয়ে একটি কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। লবণ সংক্রান্ত যেকোনো বিষয়ে জানাতে ০২-৯৫৭৩৫০৫ ও ০১৭১৫-২২৩৯৪৯ কল করার জন‌্য বলা হয়েছে।