Opu Hasnat

আজ ১০ ডিসেম্বর মঙ্গলবার ২০১৯,

যৌতুক লোভী স্বামীর নির্যাতনে দিশেহারা সোমা দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন! নারী ও শিশুসুনামগঞ্জ

যৌতুক লোভী স্বামীর নির্যাতনে দিশেহারা সোমা দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন!

সুনামগঞ্জের ছাতকে যৌতুক লোভী স্বামী সুহেল আহমদের নির্যাতনে ৬ মাসের ফুটফুটে কন্যা সন্তান আয়েশা জান্নাত মরিয়মকে কোলে নিয়ে স্বামী পরিত্যাক্ত নির্যাতিত অসহায় জেসমিন আক্তার সোমা এখন দিশেহারা হয়ে দ্বারা দ্বারে ঘুরছেন। পৌর শহরের বৌলা মহল্লার মনির মিয়া পাষন্ড ছেলে সৌদি প্রবাসী সুহেল আহমদের সাথে গত ২০১৫ সালের ১৯ ডিসেম্বর ইসলামী শরিয়াহ মোতাবেক ৫ লক্ষ টাকা দেন মোহর ধার্য্য করে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন উপজেলার গোবিন্দগঞ্জ সৈদেরগাঁও ইউনিয়নের গোবিন্দনগর গ্রামের ইরফান আলীর মেয়ে জেসমিন আক্তার সোমা। বিবাহ পরবর্তী কিছূ দিন পর সোমা বুঝতে পারেন তার পাষন্ড স্বামীর আসল চেহারা। শুরু হয় স্বামী শশুড় শাশুড়ী ও ননদের অমানুষিক নির্যাতন। এক পর্যায়ে সোমা গর্ভবতী হলেও পরিবারের লোকজনের শারীরিক অমানবিক নির্যাতন বন্ধ হয় না। মেয়ের উপর এসব নির্যাতন সহ্য না করতে পেরে সোমার পিতা অসহায় দরিদ্র দিন মজুর ইরফান আলী আত্মীয় স্বজনের কাছ থেকে ধার দেনা করে যৌতুক দাবীর কিছু টাকা এনে সুহেলকে দিলেও সোমার উপর নির্যাতন বন্ধ করেননি তার পরিবারের লোকজন। 

সোমা জানান, সুহেল নির্যাতনের মাত্রা বাড়িয়ে দিয়ে গত ২০১৮ সালের ১২ অক্টোবর আমাকে শারীরিক ভাবে অমানুষিক নির্যাতন করে ঘরের দরজা জানালা বন্ধ করে জোর পূর্বক ভয়ভীতি দেখিয়ে গর্ভাবস্থায় একটি তালাক নামায় স্বাক্ষর নিয়ে আমাকে কৌশলে আমার পিত্রালয়ে পাটিয়ে দেয়। চলতি বছরের ১১ মে সোমার গর্ভে একটি ফুটফুটে কন্যা সন্তানের জন্ম হয়। নাম রাখেন আয়েশা জান্নাত মরিয়ম। নিস্পাপ এ সন্তানটির কোন খোঁজ খবর রাখছেন না পাষন্ড পিতা সুহেল আহমদ। নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুন্যাল সুনামগঞ্জ আদালতে মামলা নং- ৪৩৮/১৮ইং দায়ের করে কোন প্রতিকার না পেয়ে হত দরিদ্র পিতার আশ্রয়ে কন্যা সন্তানকে কোলে নিয়ে নিরুপায় হয়ে হতাশার মধ্যে দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন জেসমিন আক্তার সোমা। জেসমিন আক্তার সোমা সুনামগঞ্জের পুলিশ সুপারের কাছে গেলে তিনি সহকারী পুলিশ সুপার ছাতক সার্কেল বিল্লাল হোসেনের কাছে পাঠিয়ে দেন। 

এ ব্যাপারে  সহকারী পুলিশ সুপার ছাতক সার্কেল বিল্লাল হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আমার কাছে মহিলা আসার পর আমি সুন্দর পরামর্শ দিয়েছি এবং আরও কি সহযোগীতা করা যায় তা দেখব।