Opu Hasnat

আজ ১৬ নভেম্বর শনিবার ২০১৯,

৩০ রাউন্ড ফাঁকা গুলি নিক্ষেপ

আসামী ধরতে গিয়ে জনতার পিটুনিতে ৬ পুলিশ আহত, আটক ১০ সুনামগঞ্জ

আসামী ধরতে গিয়ে জনতার পিটুনিতে ৬ পুলিশ আহত, আটক ১০

সুনামগঞ্জের ছাতকে নারী নির্যাতন মামলার ওয়ারেন্ট ভুক্ত আসামী পাবেলকে ধরতে গিয়ে জনতার পিটুনিতে ৬ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। 

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, রোববার ভোর রাতে উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের গনেশপুর ছড়ারপার গ্রামের আসামী পাবেলকে আটক করে পুলিশ। এসআই পিযুষ কান্তি দেবনাথের নেতৃত্বে অভিযান চলাকালে পাবেলের পিতা আনোয়ার হোসেন (৫৫) তার পরিবারের লোকজনদের নিয়ে পুলিশের উপর হামলা করে আসামী পাবেলকে ছিনিয়ে নেয়। এ সময় তার পরিবারের লোকজন ডাকাত ডাকাত বলে চিৎকার করতে থাকলে স্থানীয় জনতা সঙ্গবদ্ধ হয়ে পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট পাটকেল নিক্ষেপ করলে ৬ পুলিশ আহত হয়। পুলিশ আত্মরক্ষার্থে ৩০ রাউন্ড ফাঁকা গুলি নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। আহতদের মধ্যে এসআই মোহাম্মদ আলীকে আশংকাজনক অবস্থায় সিলেট ওসমানী কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অন্যান্য আহতদের মধ্যে এসআই পিযুষ কান্তি দেবনাথ, কন্সটেবল ইকবাল হোসেন, দিদারুল আলম, আব্দুল্লাহ আল মামুনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। 

এ ঘটনায় পুলিশ ভোরে অভিযান চালিয়ে বাহাদুরপুর গ্রাম থেকে ১০জনকে আটক করে। এরা হলেন আনোয়ার হোসেন (৫৫), স্কুল ছাত্র তোফায়েল আহমদ (১৬), স্কুল ছাত্র রবিন (১৬), নূর মিয়া (৪৫), নুরুজ্জামান (৩৫), জায়েদ (৩৫), সাদ্দাম (৩০)। 

এ ব্যাপারে ইসলামপুর ইউপির চেয়ারম্যান আব্দুল হেকিম জানান, এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকার নিরাপরাধ দিনমজুর ও স্কুল ছাত্রসহ কয়েকজন লোককে পুলিশ ধরে নিয়ে গেছে। 

থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আমিনুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, নারী ও শিশু নির্যাতন মামলার ওয়ারেন্ট ভুক্ত পলাতক আসামী ধরতে গিয়ে ডাকাত ডাকাত বলে আসামীর স্বজনরা পুলিশের উপর হামলা করে। এ ঘটনায় পুলিশ ১০জন আসামী আটক করেছে এবং এসআই পিযুষ কান্তি বাদি হয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে।