Opu Hasnat

আজ ১৭ ফেব্রুয়ারী সোমবার ২০২০,

১০ মাসে লাশ হয়ে ফিরেছে ১১৯ নারী গৃহকর্মী নারী ও শিশু

১০ মাসে লাশ হয়ে ফিরেছে ১১৯ নারী গৃহকর্মী

গত ১০ মাসে সোদি আরবসহ বিভিন্ন দেশ থেকে ১১৯ নারী গৃহকর্মী লাশ হয়ে ফিরেছে বলে অভিযোগ করেছে সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরাম। সৌদি আরবে নারী গৃহকর্মী নির্যাতন-হত্যা বন্ধ ও প্রবাসী নারী শ্রমিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিতের দাবি জানিয়েছে ফোরামটি।

শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আয়োজিত সমাবেশে এসব কথা বলেন ফোরামের নেতৃবৃন্দ।

ফোরামের সভাপতি রওশন আরা রুশোর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক শম্পা বসু, ঢাকা নগর শাখার সদস্য রুখসানা আফরোজ আশা, নারীনেত্রী প্রীতিলতা, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট ঢাকা নগর শাখার সভাপতি মুক্তা বাড়ৈ।

বক্তারা বলেন, নির্যাতনের অভিযোগে ইন্দোনেশিয়া ও ফিলিপাইনে গৃহকর্মী পাঠানো বন্ধ করে দিলে ২০১৫ সালে বাংলাদেশের সাথে চুক্তি করে সৌদি আরব। এরপর থেকে গত জুলাই মাস পর্যন্ত ৩ লাখ নারী কর্মী গেছেন সৌদি আরবে। দুই বছরের চুক্তিতে যাওয়া নারী গৃহকর্মীরা মাসে বেতন পান বাংলাদেশি টাকায় মাত্র ১৭ হাজার।  চুক্তি অনুযায়ী গৃহকর্মীদের বিনা খরচে সৌদি আরব যাওয়ার কথা, কিন্তু দেখা যায় অধিকাংশ ক্ষেত্রেই ১০ হাজার থেকে এক লাখ টাকা লেগে যায় সৌদি আরব যেতে।

তারা বলেন, প্রবাসী শ্রমিকরা নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন। তারা বিদেশে কাজে গিয়ে লাশ হয়ে ফিরছেন। নির্যাতন সইতে না পেরে সব খুইয়ে দেশে ফিরে আসছেন। প্রবাসী কল্যাণ সংস্থা ও প্রবাসে দূতাবাসগুলো তাদের দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করছে না।

এসকল অনিয়ম ও অবহেলার বিচার যদি হতো, তাহলে শত শত গৃহশ্রমিককে লাশ হয়ে দেশে ফিরতে হতো না।