Opu Hasnat

আজ ১৯ নভেম্বর মঙ্গলবার ২০১৯,

কালকিনিতে অপহৃত দুই শিশু উদ্ধার, আটক ৩ মাদারীপুর

কালকিনিতে অপহৃত দুই শিশু উদ্ধার, আটক ৩

মাদারীপুরের কালকিনিতে আদনান চৌধুরী (৫) ও জোনায়েত খান (৭) নামের দুই শিশুকে অপহররে পর মুক্তিপন দাবি করা হয়। আর এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত তিনজনকে আটক করে থানা পুলিশ। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় এ চ্যাঞ্চল্যকর ঘটনা ঘটে। এ বিষয় থানায় একটি অভিযোগ করেছে ভুক্তভোগীর  পরিবার। ভুক্তভোগী শিশু আদনান চৌধুরী উপজেলার কয়ারিয়া এলাকার কয়ারিয় গ্রামের ইটালী প্রবাসী আসাদ চৌধুরীর ছেলে ও জোনায়েত খান সাহেবরামপুর এলাকার আন্ডার চর গ্রামের হাবিব খানের ছেলে।

ভুক্তভোগী পরিবার ও পুলিশ সুত্রে জানাগেছে, আদনান চৌধুরী তার নানা মিজানুর রহমান বেপারীর বাড়ি আন্ডারচরে কয়েকদিন আগে মায়ের সঙ্গে বেড়াতে যায়। বৃহস্পতিবার সন্ধায় আদনান তার খেলার সাথি ওই বাড়ির জোনায়েতকে নিয়ে আন্ডারচর দাখিল মাদ্রাসা মাঠে খেলতে যায়। এসময় একই এলাকার আবদুল্লাহ সরদার ও সজিব শিকদার মিলে তাদের দুজনকে অপহরন করে নিয়ে যায় পাতারচর গ্রামের একটি খালি বাড়িতে। পরে সেখানে নিয়ে গিয়ে তারা ওই দুই শিশুকে আটক করে রাখে। এরপর আদনানের মা ফারজানা বেগমকে ওই অপহরকারীরা ফোন করে বিশ লক্ষ টাকা মুক্তিপন দাবি করে। এ টাকা রাতের মধ্যেই পরিষোধ না করা হলে তাদেরকে হত্যা করা হবে বলে ফোনে তারা জানান। কিন্তু ওই রাতেই ফারাজানা বেগম বাদী হয়ে কালকিনি থানায় একটি অপহরনের অভিযোগ দায়ের করেন। 

পরে কালকিনি থানার ওসি মোঃ নাসিরউদ্দিন মৃধার নেতৃত্বে সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে অভিযান চালিয়ে শুক্রবার রাত তিনটার দিকে পাতার চর থেকে আদনান চৌধুরী ও জোনায়েতকে উদ্ধার করেন। এসময় অপহরনকারী আবদুল্লাহ সরদার, সজিব শিকদার ও তার বাবা জব্বার শিকদারসহ তিনজনকে ঘটনাস্থল থেকে আটক করা হয়।

ভুক্তভোগী আদনারের মা ফারজানা বেগম কান্না জড়িত কন্ঠে বলেন, আমার ছেলেকে অপহরন করে নিয়ে গিয়ে আমার কাছে ২০ লক্ষ টাকা মুক্তিপর দাবি করে আবদুল্লাহ সরদার ও সজিব শিকদার। এরপর আমার ছেলেকে মেড়ে ফেলার হুমকি দেয়া হয়।

এ ব্যাপারে কালকিনি থানার ওসি মোঃ নাসিরউদ্দিন মৃধা বলেন, অপহৃত দুই শিশুকে আমরা উদ্ধার করেছি। এ বিষয় মামলার প্রক্রিয়া চলছে।