Opu Hasnat

আজ ১৯ নভেম্বর মঙ্গলবার ২০১৯,

মুন্সীগঞ্জে ইলিশ শিকার, ক্রয় করার অপরাধে ৬১ জেলে ও ক্রেতাকে জেল জরিমানা মুন্সিগঞ্জ

মুন্সীগঞ্জে ইলিশ শিকার, ক্রয় করার অপরাধে ৬১ জেলে ও ক্রেতাকে জেল জরিমানা

নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে ইলিশ শিকার ও ক্রয় করায় মুন্সীগঞ্জের একাধিক অভিযানে ৫৭জন জেলে ও  ক্রেতাকে কারা ও অর্থদন্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত। সোমবার দিনব্যাপি ও রবিবার দিবাগত রাতে জেলার টঙ্গীবাড়ী, শ্রীনগর ও লৌহজং উপজেলায় ইলিশ সংরক্ষণ অভিযানে তাদেরকে আটক করা হয়। 

সোমবার সকালে টঙ্গীবাড়ী উপজেলা পদ্মা নদী সংলগ্ন হাসাইল হতে ইলিশ ক্রেতা মো. খোকন আহম্মেদ, গিয়াসউদ্দিন, মো. সিদ্দিক মালত ও  মো. জিল্লুর রহমানকে (৩০)কে আটক করে ভ্রাম্যমান আদালত। এসময় তাদের কাছ থেকে ২৫কেজি ইলিশ জব্দ ও প্রত্যেককে ৫ হাজার টাকা করে জরিমান করা হয়েছে বলেন জানিয়েছেন উক্ত ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও ইউএনও মোসামৎ হাসিনা আক্তার ।

এদিকে, একই দিন সকালে শ্রীনগর উপজেলার ভাগ্যকুল ইউনিয়ন হতে থেকে আকানী মালো, স্বপন হাওলাদার, শুভ মালো, কালাম, আমির হোসেন, আলমগীর, রাকিব, মান্দ্রার মো. শ্যামল, ও কামারগাঁও গ্রামের আলাউদ্দিনকে নামের নয় জেলেকে ইলিশ ধরার অপরাধে আটক করা হয় । তাদের প্রত্যেকে ৫হাজার টাকা করে অর্থদন্ডদেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও শ্রীনগর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) নিগার সুলতানা জানান ।

এদিকে, রোববার রাত ১০টা থেকে সোমবার ভোর পর্যন্ত পদ্মা অভিযান চালিয়ে ৬৩জন  জেল ও ক্রেতাকে আটক করে ভ্রাম্যমান আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট রিয়াজুল রহমান ও ইলিয়াস শিকদার। সোমবার দুপুরে ভ্রাম্যমান আদালত আটককৃতদের মধ্যে ২৮জনকে বিশ দিনের ১৭জনের ১৭দিন, ৩জনকে ৩দিনের কারাদন্ড দেয়। তবে আটকৃতদের  মধ্যে ১৫জন অপ্রাপ্তবয়স্ক হওয়ায় ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। অভিযানে আটকৃতদের কাছ থেকে ১লক্ষ মিটার কারেন্ট জাল ও ৩শ কেজি ইলিশ জব্দ করা হয়েছে। এছাড়াও অবৈধ ভাবে ইলিশ ধরায় ব্যবহৃত ৮টি ট্রলার পদ্মায় ডুবিয়ে দেওয়া হয়েছে। এ অভিযানে উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা ইদ্রিস তালুকদার সহ স্থানীয় থাানার পুলিশ, নৌ পুলিশ ও কোস্টগার্ড অংশনেয়।

এই বিভাগের অন্যান্য খবর