Opu Hasnat

আজ ১৭ নভেম্বর রবিবার ২০১৯,

পঞ্চগড়ে “তারুণ্যের অগ্রযাত্রায় সমৃদ্ধ বাংলাদেশ: যুব সমাজের করণীয়” শীর্ষক সেমিনার পঞ্চগড়

পঞ্চগড়ে “তারুণ্যের অগ্রযাত্রায় সমৃদ্ধ বাংলাদেশ: যুব সমাজের করণীয়” শীর্ষক সেমিনার

সোমবার পঞ্চগড়ের বোদায় উপজেলা কৃষি অফিস হলরুমে সকাল ১০ টায় আমার অধিকার ফাউন্ডেশন, যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর এবং হাঙ্গার ফ্রি ওয়ার্ল্ডের যৌথ আয়োজনে “তারুণ্যের অগ্রযাত্রায় সমৃদ্ধ বাংলাদেশ: যুব সমাজের করণীয়” শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। 

প্রথমেই পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন মোঃ গিয়াস উদ্দিন এবং পবিত্র গীতা থেকে পাঠ করেন সোনামণি রাণী। এরপর শুরু হয় সেমিনার। সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন বোদা উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা লুৎফর রহমান। অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বোদা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোখলেছার রহমান জিল্লুর, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান লক্ষী রাণী, উপজেলা কৃষি অফিসার আল মামুন অর রশিদ, বোদা প্রেসক্লাবের সভাপতি নজরুল ইসলাম, হাঙ্গার ফ্রি ওয়ার্ল্ড বোদা পঞ্চগড়ের প্রোগ্রাম অফিসার মালেকা বেগম। 

সেমিনারের শুরুতে আমার অধিকার ফাউন্ডেশন এর সহ সভাপতি আতাউর রহমান মিটন এর লেখা প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন অনুষ্ঠানের সঞ্চালক এবং হাঙ্গার ফ্রি ওয়ার্ল্ড বোদা পঞ্চগড়ের অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রোগ্রাম অফিসার সিজুল ইসলাম। সেমিনারের প্রবন্ধের উপর মুক্ত আলোচনায় নিজেদের ভাবনা এবং প্রত্যাশা তুলে ধরেন ভিশন ফোরাম সদস্য এসএম শফিউল আলম টুটুল, একুশ স্মৃতি পাঠাগারের সাধারণ সম্পাদক এস এম শীলন, আটোয়ারী আলোয়াখোয়া স্কুল এন্ড কলেজের প্রভাষক মাজেদুল ইসলাম আকাশ, ইয়ূথ এগেইনষ্ট হাঙ্গার বোদা পঞ্চগড়ের সভাপতি রাসেল মিয়া, সূচনার সিদ্দিকুর আলী এবং যুব উন্নয়নের প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে সফল উদ্যোক্তা হিসেবে পরিচিত হিমালয় সেন।

সেমিনারে বক্তারা নিজেদের বক্তব্যে বলেন, শুধুমাত্র সরকারের একার পক্ষে সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গঠন করা সম্ভব না যদি সাধারণ জনগণের সম্পৃক্ততা না থাকে। সেমিনারের আলোচনায় উঠে আসে যুবদের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে হলে যে যে উদ্যোগ ব্যক্তি পর্যায়ে এবং সরকারের দিক থেকেও গুরুত্ব সহকারে কাজ করা দরকার সেগুলো হলো নৈতিক মূল্যবোধে বলীয়ান করতে শিক্ষার্থীদের এবং যুবকদের কাউন্সেলিং করতে হবে, যুব উন্নয়নের কার্যক্রমের প্রচারণা বাড়াতে হবে, জনগণের অধিকার সংশ্লিষ্ট বিষয়ে জনসচেতনতামূলক কর্মসূচি বাড়াতে হবে, যুব উন্নয়নের আওতায় বিভিন্ন প্রশিক্ষণের আয়োজন বাড়াতে হবে উদ্যোক্তা সৃষ্টির লক্ষ্যে, প্রত্যেক গ্রামে খেলার মাঠ এবং খেলার উপকরণ সরবরাহ করা, যোগ্যতা অনুযায়ী কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা, মাদক নির্মূলে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করা, কারিগরি শিক্ষা বাধ্যতামূলক করা এবং গ্রামে গ্রামে যুব উন্নয়নের মাধ্যমে ক্লাব গঠন করা এবং যুবকদের আত্মনির্ভরশীল হিসেবে গড়ে তুলতে জিও, এনজিও এবং জনপ্রতিনিধিদের সম্পৃক্ত করে উদ্যোক্তা সৃষ্টি করতে এবং সামাজিক নানা সমস্যায় সোচ্চার হতে পদক্ষেপ গ্রহণ করা।