Opu Hasnat

আজ ১৫ নভেম্বর শুক্রবার ২০১৯,

পাইকগাছায় পাওনা টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে শাশুড়িকে মারধর, মামলা খুলনা

পাইকগাছায় পাওনা টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে শাশুড়িকে মারধর, মামলা

পাইকগাছায় পাওনা টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে জামাই ফারুক শাশুড়িকে ঝাটা পেটা করে গুরুতর জখম করেছে। স্থানীয় লোকজন উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেছে। এ ব্যাপারে আদালতে মামলা হয়েছে। 

অভিযোগে জানা যায়, উপজেলার ভিলেজ পাইকগাছা গ্রামের আইয়ুব আলী গাজীর কন্যা পৌরসভার ২নং ওয়ার্ড গোপালপুর গ্রামের জিন্নাত গাজীর ছেলে ফারুকের সঙ্গে বিবাহ হয়। আইয়ুব আলী তার শ্যালকদের নিকট থেকে ১ লাখ টাকা হাওলাত নিয়ে জামাই ফারুককে দেয়। ফারুক টাকা দেয়া নিয়ে গড়িমসি করতে থাকলে শনিবার বিকেল চারটার সময় তার জামাইয়ের বাড়িতে বেড়াতে জান। জামাই ফারুককে কিছু পাওনা টাকা চাইতে গেলে জামাই ফারুক হঠাৎ করে শাশুড়িকে অকথ্য ভাষায় গালাগালি করে, এলোপাতাড়িভাবে মারপিট শুরু করে। 

শ্বাশুড়ি বলেন, আমার ভাইয়ের কাছ থেকে এক লক্ষ টাকা এনে দিয়েছি সেই টাকা এখন দিতে হবে এই কথা বললেই ফারুক বলে আমি কোন টাকা দিতে পারব না তুই আমার বাড়ি থেকে বেরিয়ে যা। এই বলে আবারো মারপিট করতে থাকে। মেয়ে দেখতে পেয়ে ঠেকানোর চেষ্টা করে এদিকে ফারুকের পিতা জিন্নাত গাজী এসে বৌমাকে ধাক্কা মেরে ফেলে দেয়। পরবর্তীতে ফারুক তার শাশুড়ির চুলের মুঠো ধরে কিল, চড়, ঘুসি মেরে বলে ভবিষ্যতে কোনো টাকার দাবিতে আমার বাড়িতে আসলে খুন করে লাশ নদীতে ভাসিয়ে দিব। আছিয়ার ডাক চিৎকার করিলে আশেপাশের লোকজন এসে বিষয়টি জানতে চাইলে আছিয়া বলেন, আমার মা আমাদের বাড়িতে এসেছে। আমার স্বামীর কাছে আমার মা আমার মামার কাছ থেকে এক লক্ষ টাকা ধার করে এনে দেয়। আমার স্বামীর কাছে আমার মা সেই টাকা চাইলে আমার মাকে আমার স্বামী ও আমার শশুর মিলে ঝাঁটা ও লাঠি দিয়ে আমার মায়ের মাথায় প্রচন্ড আঘাত করলে মা জ্ঞান হারিয়ে মাটিতে পড়ে যায়। পরবর্তীতে আমার শ্বশুর আমার মায়ের গলায় থাকা একটি স্বর্ণের চেইন টান মেরে ছিডে নেয়। আমি বাঁধা দিলে আমার স্বামী আমাকেও মারপিট করে পরবর্তীতে আশেপাশের লোকজন এসে আমাদেরকে উদ্ধার করে পাইকগাছা হাসপাতালে ভর্তি করে। এ ঘটনায় পাইকগাছা সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে মামলা করলে বিজ্ঞ আদালত আসামী জামাই ফারুককে সমন দেন এবং শ্বশুর জিন্নাত গাজীকে গ্রেপ্তারী পরোয়ানা জারী করেছেন।