Opu Hasnat

আজ ১৫ নভেম্বর শুক্রবার ২০১৯,

বৃহস্পতিবার শুরু হচ্ছে এনসিএল খেলাধুলা

বৃহস্পতিবার শুরু হচ্ছে এনসিএল

‘পিকনিক লীগ’ তকমা থেকে বেড়িয়ে আসার লক্ষ্য নিয়ে বৃহস্পতিবার দেশের বিভিন্ন ভেন্যুতে চারটি ম্যাচ দিয়ে শুরু হচ্ছে দেশে প্রথম শ্রেণীর সর্বোচ্চ ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ২১তম জাতীয় ক্রিকেট লীগ (এনসিএল)।

দর্শকরা এনসিএলের উদ্বোধনী দিনেই বড় ম্যাচের স্বাদ পাচ্ছেন। কেননা, প্রথম ম্যাচেই নিজ নিজ দলের হয়ে ময়দানী লড়াইয়ে নামছেন জাতীয় দলের ওপেনার তামিম ইকবাল ও মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ।

তামিম ইকবাল খেলবেন নিজ শহর চিটাগং বিভাগের হয়ে। যদিও তিনি নন দলের অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করবেন মোমিনুল হক। তবে ঢাকা মেট্রোর অধিনায়কত্ব করবেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ।

দুই স্তরে বিভক্ত হয়ে সাধারনত আটি বিভাগীয় দল টুর্নামেন্টে অংশ নিচ্ছে। আগের আসরের ফলাফলের ভিত্তিতে প্রথম স্তরে আছে খুলনা, রাজশাহী, রংপুর ও ঢাকা মেট্রো। দ্বিতীয় স্তরে খেলছে চট্টগ্রাম, ঢাকা মেট্রো, সিলেট এবং বরিশাল।

এনসিএলের উদ্বোধনী দিনে প্রথম স্তরে ম্যাচে ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে রাজশহী বিভাগ খেলবে ঢাকার বিপক্ষে। অপর ম্যাচে খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হবে রংপুর ও খুলনা বিভাগ।

দ্বিতীয় স্তরের ম্যাচে রাজশাহীর শহীদ কামরুজ্জামান স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হবে বরিশাল ও সিলেট বিভাগ। একই স্তরে শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে চিটাগং বিভাগ মোকাবেলা করবে ঢাকা মেট্রোর।

প্রথম স্তরে পয়েন্ট তালিকার নিচে থাকা দলটি নেমে যাবে দ্বিতীয় স্তরে। অন্য দিকে দ্বিতীয় স্তরে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে থাকা দলটি উন্নীত হবে প্রথম স্তরে।

দুর্ভাগ্যজনকভাবে নিজ নিজ দলে দুই তারকা খেলোয়াড় থাকা সত্বেও মেট্রো এবং চট্ট্রগাম উভয়েই দ্বিতীয় স্তরে অবস্থান করছে। তবে তারকা এ দুই খেলোয়াড় এনসিএলে নিয়মিত খেলোয়াড় ছিলেন না। তামিম চার বছর পর এ টুর্নামেন্ট খেলছেন। অন্য দিকে রিয়াদ গত পাঁচ বছরে ২০১৭ আসরে মাত্র একটি ম্যাচ খেলেছেন।

তবে অবশ্যই তারকা এ দুই খেলোয়াড় নিজ নিজ পারফরমেন্স দিয়ে নিজ দলকে প্রথম স্তরে উঠিয়ে আনার সর্বোচ্চ চেস্টা করবে। এবং উদ্বোধনী পর্যায়ে পুরো স্পট লাইটাটাই এ দুই তারকার উপর থাকবে বলে ধারনা করা হচ্ছে।

ঢাকা মেট্রোর ইলিয়াস সানির বিশ্বাস দল হিসেবে তারা বেশ ভারসাম্যপুর্ন এবং প্রথম স্তরে উঠতে তারা সক্ষম হবে।

মাহমুদুল্লাহ’র থাকাটা দলের জন্য বড় অনুপ্রেরণা মনে করছেন তিনি। আজ অনুশীলন শেষে সানি বলেন,‘ দীর্ঘ সময় ধরেই সিনিয়র খেলোয়াড়রা এক সাথে খেলে আসছেন। স্বাভাবিক ভাবেই দলে তারা আলো ছড়াতে সক্ষম হবেন। আমার মতে সবদিক থেকেই আমরা ভারসাম্যপুর্ন একটি দল।

যখন আন্তর্জাতিক কোন খেলোয়াড় ঘরোয়া লীগে খেলতে আসেন, তখন এর একটি প্রভাব তিনি বিস্তার করেন। গত বছর তিনি (মাহমুদুল্লাহ) আমাদের দলে ছিলেন না। তবে এবার খেলছেন, যা আমাদের জন্য দারুন একটি ইতিবাচক দিক।

আমরা ভিন্ন একটি পরিকল্পনা প্রনয়ন করেছি। ম্যাচ বাই ম্যাচ খেলতে চাই। তবে আমাদের প্রধান লক্ষ্য দলকে প্রথম স্তরে পৌঁছে দেয়া।’

আফতাব আহমেদ চট্টগ্রামের প্রধান কোচ হিসেবে তার শহরের দলটির দায়িত্ব পালন করতে পেরে সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, ক্রিকেটে নিজের বিভাগকে হারানো গৌরবে ফিরিয়ে দেয়ার অপেক্ষায় রয়েছেন তিনি। আফতাব বলেন,‘ চট্টগ্রামের এই সেটআপে আমি পেশাদারিত্ব ফিরিয়ে আনার চেস্টা করব। এনসিএল খেলেই জাতীয় দলে জায়গা করে নিয়েছেন তামিম ও মোমিনুল।’

আফতাবের মতে তামিমের উপস্থিতি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ড্রেসিং রুমে এর দারুন প্রভাব পড়বে। তরুণ ক্রিকেটাররা অভিজ্ঞ এই ওপেনারের সঙ্গে অভিজ্ঞতা বিনিময় করতে সক্ষম হবেন বলেও মনে করেন তিনি।

আফতাব বলেন, ‘তামিমের সামর্থ্য আমাদের জন্য বিশাল ব্যাপার। কাল আমরা চার থেকে পাঁচ জন ক্রিকেটারকে অভিষিক্ত করব। এরা সবাই ড্রেসিং রুমে তামিমের সঙ্গে অভিজ্ঞতা বিনিময়ের সুযোগ পাবে। তাদের কাছে এর চেয়ে বড় সুযোগ আর কিছুই হতে পারে না।’

উল্লেখ্য, বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপে ভারতের বিপক্ষে আসন্ন দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজকে সামনে রেখে টাইগার দলের প্রস্তুতির মঞ্চ হিসেবেই দেখা হচ্ছে এবারের এনসিএলকে।