Opu Hasnat

আজ ১৭ অক্টোবর বৃহস্পতিবার ২০১৯,

টঙ্গীবাড়ীতে বিষাক্ত কেমিক্যাল দিয়ে তৈরী হচ্ছে ঘি! মুন্সিগঞ্জ

টঙ্গীবাড়ীতে বিষাক্ত কেমিক্যাল দিয়ে তৈরী হচ্ছে ঘি!

মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়ী উপজেলার দিঘিরপাড় বাজারে সুধির চন্দ্র মিষ্টান্ন ভান্ডারে বিষাক্ত কেমিক্যাল দিয়ে ঘি ও অপরিচ্ছন্ন পরিবেশে মিষ্টি তৈরীর অভিযোগ পাওয়া গেছে। এমন খবরের ভিত্তিতে সম্প্রতি ভ্রাম্যমান আদালত ওই বাজারে কয়েকবার অভিযান চালালেও সুধির ঘোষ নির্বিঘ্নে প্রশাসনকে ম্যানেজ করে বিষাক্ত কেমিক্যাল দিয়ে ঘি তৈরী করে যাচ্ছে।

সরেজমিনে দিঘিরপার বাজারের সুধির ঘোষের মিষ্টি তৈরীর কারখানায় গিয়ে দেখা যায়, পুরো কারখানাটিতে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে ময়লা আবর্জনা। ওই ময়লা অবর্জনা স্তুপের মধ্যে বসে সুধির ঘোষের কর্মচারী মিষ্টি তৈরীর জন্য ছানাসহ ঘি তৈরী করছেন। দোকানের কর্মচারীরা খালি গাঁয়ে ও হাতে ঘাম ওই ঘি-ছানার মধ্যে ঝরে পরছে। ঘি তৈরীর বড় গামলার মধ্যে অসংখ্য মাছি ভ্যান ভ্যান করছে।  ছানা তৈরীর এক পাশে বড় বড় ৩টি টিনের তৈরী  করাইতে কেমিক্যাল দিয়ে ঘি-ছানা তৈরীর কাজ চলছে। আর ওই ছানার মধ্যে মাছি মরে ভেসে রয়েছে। লাকড়ির মধ্যে থাকা ধুলা এবং শ্রমিকের ঘাম ওই ছানা-ঘি তৈরীর করাইতে ঝরছে।  ঘরের মধ্যেই দেখা যায় বড় একটি টিনের বাক্সের মধ্যে রয়েছে কেমিক্যাল আর ওই কেমিক্যাল দিয়ে তৈরী করা হয় ঘি। 

এ সময় ওই দোকানে কর্মরত শ্রমিকদের কেমিক্যাল দিয়ে কি তৈরী করা হয় জিজ্ঞাসা করা হলে তারা ঘি তৈরীর বিষয়টি অস্বীকার করে জানান, এগুলো দিয়ে সকালে নাস্তার ভাজি তৈরী করা হয়। এ ব্যাপারে সুধির ঘোষের সাথে যোগাযোগ করা হলে সে কেমিক্যাল দিয়ে ঘি তৈরীর বিষয়টি অস্বীকার করেন এবং দোকানে মাছি থাকার ব্যাপারে জানান খাদ্য তৈরী করলে মাছিতো আসবেই। 

এ ব্যাপারে টঙ্গীবাড়ী উপজেলা স্যানিট্যাশন অফিসার আনায়ারুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায়  আমি ওই দোকানে লোক পাঠিয়ে প্রয়োজনিয় আইনগত ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দিয়েছি। 

এই বিভাগের অন্যান্য খবর