Opu Hasnat

আজ ১৪ অক্টোবর সোমবার ২০১৯,

ব্রেকিং নিউজ

লোহাগড়ায় প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে নারী কেলেঙ্কারির অভিযোগ নড়াইল

লোহাগড়ায় প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে নারী কেলেঙ্কারির অভিযোগ

নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার শালবরাত সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে নারী কেলেঙ্কারির অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী উপজেলা নির্বাহী অফিসার, প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার ও লোহাগড়া থানার ওসি বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন। 

অভিযোগে জানা গেছে, লোহাগড়া উপজেলার শালবরাত সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো: আনোয়ারুল ইসলাম দীর্ঘদিন ধরে একই গ্রামের মন্টু শেখের স্বামী পরিত্যক্ত মেয়ে দু’সন্তানের জননী লাখি বেগমকে কু-প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। গত ২৬ সেপ্টেম্বর রাত সাড়ে ১১ টার দিকে উক্ত শিক্ষক লাখি বেগমের ঘরের দরজার সামনে দাঁড়িয়ে লাখিকে ডাকাডাকি করে। লাখি তার ডাকে সাঁড়া না দেওয়ায় তিনি চলে যান। পরে ২৭ সেপ্টেম্বর সকাল ১০ টার দিকে লাখি বেগমকে প্রধান শিক্ষক হুমকি দিয়ে বলেন বিষয়টি কাউকে না জানাতে। জানালে সন্তানসহ এলাকা ছাড়া করা হবে মর্মে ভয়ভীতি দেন তিনি। লাখি বেগম আইনের আশ্রয় নেওয়ার কথা বলায় অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে মারধর করেন। এ সময় লাখির নাক ছিড়ে নথ পড়ে যায়। 

এ ঘটনায় লাখি বেগম গত ২৯ সেপ্টেম্বর  লোহাগড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার, প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার ও লোহাগড়া থানার ওসি বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন। কাশিপুর ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য মো: অহেদ শেখ বলেন, প্রধান শিক্ষক আনোয়ারুল ইসলামের বিরুদ্ধে ইতোপূর্বে ওই গ্রামের দু’টি মেয়ের সাথে তার অনৈতিক সম্পর্কের অভিযোগ ওঠায় স্থানীয়ভাবে শালিশ বৈঠকের মাধ্যমে মিমাংসা করা হয়। তাছাড়া তার বিরুদ্ধে গরু ও মুরগী চুরির অভিযোগে একাধিক শালিস বৈঠক হয়েছে। 

উল্লেখ্য: ১৯৮৯ সালের ১লা জানুয়ারীতে রেজিষ্ট্রেশন বে-সরকারি স্কুল হিসাবে প্রতিষ্ঠিত হয়। বর্তমান সরকার ২০১৩ সালে স্কুলটি জাতীয়করন করেন। এক চেয়ারে তিনি ৩১বছর চাকুরী করছেন।          

লোহাগড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোকাররম হোসেন জানান, অভিযোগ পাওয়ার পর এএসআই কামরুজ্জামান গত সোমবার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ভুক্তভোগী ও এলাকাবাসী অবিলম্বে ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে সকল অপকর্মের তদন্ত সাপেক্ষে বিচার দাবি করেছেন। 

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, গ্রাম্য কোন্দলের জের ধরে তার বিরুদ্ধে মিথ্যা বানোয়াট ও ভিত্তিহিন অভিযোগ করা হয়েছে। লোহাগড়া উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো: সাইফুজ্জামান খান বলেন, সবেমাত্র বদলি হয়ে এসেছেন। অভিযোগ পেলে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নিবেন।