Opu Hasnat

আজ ১৮ সেপ্টেম্বর বুধবার ২০১৯,

ব্রেকিং নিউজ

নামজারী খতিয়ানের নকল কপির মূল্য এক হাজার টাকা! চট্টগ্রাম

নামজারী খতিয়ানের নকল কপির মূল্য এক হাজার টাকা!

হাটহাজারী উপজেলা সহকারী ভূমি অফিসের অসাধু দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তাদের হাতে অসহায় হয়ে পড়ছে ভ‚মি মালিকরা। ঘুষখোর কর্মকর্তারা চাহিদামত টাকা না দিলে সময় মত পাচ্ছে না কোন সেবা। টাকা দিতে না পারায় ভ‍‍ূমি মালিকরা প্রয়োজনীয় কাগজপত্রের অভাবে ও অতিরিক্ত টাকায় নামজারী করতে না পারায় হিমশিম খেতে হচ্ছে। ভূমি মালিক হতে তেমনি সরকার বঞ্চিত হচ্ছে বিপুল পরিমাণ রাজস্ব আয় থেকে।

উপজেলার এসিল্যান্ড অফিস ও ইউনিয়ন ভূমি অফিসগুলোর অরাজকতার কৃর্তীকাহিনী ভুক্তভূগিদের কাছে শুনার গল্পের মত হলেও গত রোববার রোশানলে পড়তে হয়েছে স্থায়ী এক গণমাধ্যম কর্মীকে। নিজ পরিচয় গোপন রেখে সদ্য বদলি হয়ে আসা নিউটন বড়ুয়া নামের এক কর্মকর্তাকে একটি খতিয়ান নকল প্রয়োজন বললে এক হাজার ৫’শ টাকা লাগবে বলেন। এত টাকা কেন জানতে চাইলে মিরাজ নামের এক কর্মচারিকে দেখিয়ে দেন। তখন মিরাজ বলেন এখানে ৩ জনের সাইন লাগবে এসিল্যান্ড স্যার ও দু’জন কর্মকর্তার তাই। টাকা কাকে দিতে হবে জানতে চাইল নিউটন বড়ুয়া তখন তৌহিদ নামের আরেক জনকে দেখিয়ে দেন। 

নিজেকে ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার বলে দাবী করা তৌহিদ বলেন, নকল খতিয়ান সংগ্রহ করতে কোট ফি যুক্ত ৬০ টাকা দামের একটি ফরমে আবেদন করতে হবে। তাই সর্বমোট এক হাজার টাকা দিতে হবে। এত টাকার বিষয় জানতে চাইলে বলে স্যার এক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্টাট স্যারকে তো মাঝে মধ্যে টাকা দিতে হয়। 

পরে নিজেকে সাংবাদিক পরিচয় দিলে এই ঘুসখোর কর্মকর্তা তখন হতবম্ভ হয়ে বলেন, এসিল্যান্ড স্যার খুবই ভাল মানুষ আপনি নিজে আবেদন টা নিয়ে স্যারের কাছে গেলে আপনাকে সাথে সাথে খতিয়ান দিয়ে দিবেন।

এই ব্যাপারে হাটহাজারী সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট বাবু সম্রাট খীসা খবরকে বলেন, আমি হাটহাজারীতে যোগদানের এক বছরের মধ্যে হাটহাজারী আমার নিজ অফিসসহ হাটহাজারীর সব ভূমি অফিসগুলোর দুর্নীতি ও দালাল মুক্ত করতে সিসি ক্যামরার আওতায় এনেছি। নিজ অফিসসহ উপজেলার সব তহসীল অফিসারদেরকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে ভূমির মালিকরা যেন কোন দালালের খপ্পরে পরে সরকারী ফিস ব্যাতিত বাড়তি টাকা গুনতে না হয়। দালালমুক্ত ও ভূমি অফিসের কর্মকর্তাদের কাছে ভূমি মালিকরা যেন হয়রানী না হয় সে ব্যাপারে আমি বদ্ধপরিকর। নিউটন বড়ুয়াকে ডেকে পরবর্তীতে তেমন কোন অভিযোগ না আসে মত শাসিয়ে দিলেও তৌহিদ নামের ব্যক্তির ভূমি অফিসের কোন কর্মচারী নয় বলে জানান।

এই বিভাগের অন্যান্য খবর