Opu Hasnat

আজ ১৬ সেপ্টেম্বর সোমবার ২০১৯,

নীলসাগর আন্ত:নগর ট্রেনে যুক্ত ৮০টি এসি চেয়ার নীলফামারী

নীলসাগর আন্ত:নগর ট্রেনে যুক্ত ৮০টি এসি চেয়ার

নীলফামারীর সৈয়দপুর থেকে সৈয়দা রুখসানা জামান শানু : ঈদ শেষে কর্মস্থলে ফিরতি মানুষের জন্য নীলসাগর আন্তনগর এক্সপ্রেস ট্রেনে যুক্ত হয়েছে ৮০টি চেয়ার। যাত্রার চাপ সামলাতে নীলফামারীর চিলাহাটি থেকে ঢাকাগামী নীলসাগর আন্ত:নগর ট্রেনটিতে যুক্ত করা হয়েছে দুটি অতিরিক্ত বগি। ওই দুটি বগিতে সাধারণ আসন সংখ্যা রয়েছে ১১০টি এবং এসি চেয়ার ৮০টি। এসি এসব আসনের একটিও বরাদ্দ দেওয়া হয়নি জেলা শহরের নীলফামারী রেলস্টেশনে। ফলে নীলফামারীর মানুষ ভোগান্তিতে পড়েছে। এতে করে কর্মস্থলে ফিরতে বিড়ম্বণায় পড়েছেন নীলফামারীর মানুষ।

রেল সূত্র হতে জানা যায়,জেলা শহরের বাইরের রেলস্টেশন ডোমারে এসি চেয়ার ১০টি, এসি বাথ দুটি, সাধারণ সিট ৭৫টি, চিলাহাটি রেলস্টেশনে এসি চেয়ার ১০টি, এসি বাথ দুটি, সাধারণ ৯০টি এবং সৈয়দপুর রেলস্টেশনে এসি চেয়ার ২৫টি, এসি বাথ ১০টি, সাধারণ সিট ১২০টি বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। যাত্রীদের অভিযোগ, স্টেশনটি জেলা শহরে হওয়ায় উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা রেলপথে যাতায়াত করে থাকেন। এ স্টেশনের জন্য সাধারণ আসন ৯০টি বরাদ্দ থাকলেও এসি চেয়ার মাত্র পাঁচটি এবং এসি বাথ রয়েছে দুটি। 

নীলফামারী রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার ওবায়দুর রহমান বলেন, জেলা পর্যায়ে সরকারি কর্মকর্তা, রাজনীতিবিদসহ সুধীজন রেলপথে ঢাকা যাতায়াত করে থাকেন। কিন্তু বরাদ্দ কম থাকায় চাহিদা পূরণ করা সম্ভব হচ্ছে না। তিনি আরও বলেন, নীলফামারী রেলস্টেশনে দুটি বগির ৮০টি চেয়ার কোচের একটিও বরাদ্দ নেই। এ ব্যাপারে অতিরিক্ত বিভাগীয় কর্মকর্তা (পাকশী) আনোয়ার হোসেন জানান, ওই স্টেশনের জন্য বরাদ্দ নেই বিষয়টি এমন নয়। চাহিদা থাকলে স্টেশন মাস্টার আমার সঙ্গে যোগাযোগ করে নিতে পারবেন। ফলে অতিরিক্ত বগির আসনের জন্য ট্রেনের যাত্রা শুরুর স্টেশন থেকে ভাড়া হিসাব করা হয়।