Opu Hasnat

আজ ৬ আগস্ট বৃহস্পতিবার ২০২০,

ঝিনাইদহে চম্পাকে প্রতিবন্ধির কার্ড করে দিলেন ইউপি চেয়ারম্যান ঝিনাইদহ

ঝিনাইদহে চম্পাকে প্রতিবন্ধির কার্ড করে দিলেন ইউপি চেয়ারম্যান

২০ বছর বয়সী সেই শিশু চম্পা খাতুন পেলেন প্রতিবন্ধি ভাতা। মঙ্গলবার (১৩ আগস্ট) বিকালে সাধুহাটী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কাজী নাজির উদ্দীন চম্পার হাতে ভাতার বইটি তুলে দেন। কথা বলতে না পারা ‘শিশু’ চেয়ারম্যানের হাত থেকে বেশ হাসিখুশি ভাবেই চম্পা বইটি গ্রহন করে ছবির জন্য পোজ দেন। 

ঝিনাইদহ সদর উপজেলার বংকিরা গ্রামের হাসেম মোল্লার মেয়ে চম্পাকে নিয়ে বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় ও সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে সংবাদ প্রকাশিত হলে চিকিৎসার দায়িত্ব নেন শিশু বিশেষজ্ঞ ডাঃ অলোক কুমার সাহা। ফ্রি রক্ত পরীক্ষা করে দিতেন প্যাথলজিষ্ট সাকি। পত্রিকায় খবর পড়ে চম্পার প্রতিবন্ধি ভাতার বই করে দেওয়ার উদ্যোগ নেন সাধুহাটী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কাজী নাজির উদ্দীন। গতকাল ভাতার বই প্রদানের পাশাপাশি ঈদে নতুন জামা কাপড় কেনার টাকাও দেন চম্পার হাতে। 

চম্পা খাতুনের মা মিনুয়ারা বেগম জানান, ১৯৯৯ সালের ২৮ এপ্রিল চম্পা খাতুনের জন্ম। জন্মের পর থেকে সে বহুমাত্রিক প্রতিবন্ধি। আচরণ করে শিশুর মতো। কোন কথা বলতে পারে না। কেবল হাসতে আর কাঁদতে পারে। সারাক্ষন মানুষের কোলে কোলেই তার দিন কাটে। বড় বোন ময়না খাতুন জানান, ২০ বছর বয়স হলেও চম্পা এখনো শিশুর মতোই রয়ে গেছে। চিকিৎসার পর চম্পা এখন হাটতে পারে। তার মধ্যে কিছুটা অনুভুতি ফিরেছে।