Opu Hasnat

আজ ২২ আগস্ট বৃহস্পতিবার ২০১৯,

সাবেক মন্ত্রী ড. মিজানুর রহমান শেলী আর নেই জাতীয়

সাবেক মন্ত্রী ড. মিজানুর রহমান শেলী আর নেই

প্রয়াত রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ সরকারের মন্ত্রী, রাজনীতি ও রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিষয়ক লেখক ড. মিজানুর রহমান শেলী আর নেই (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। 

সোমবার (১২ আগস্ট) ঈদের দিনের দুপুরে ঢাকার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে চিকিসাধীন অবস্থায় তিনি ইন্তেকাল করেছেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৬ বছর। শেলীর মৃত্যুর খবর তার ছেলে আরিফ ইবনে মিজান গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন।

আরিফ ইবনে মিজান বলেন, গতমাসে স্ট্রোক করেছিলেন তার বাবা। এছাড়া দীর্ঘদিন ধরে কিডনি জটিলতায় ভুগছিলেন তিনি।

বিএসএমএমইউ উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া বলেন, শ‌নিবার শেলীকে বিএসএমএমইউ‌ আই‌সিইউ‌তে নিয়ে আসা হয়। আজ দুপুর সোয়া‌ ২টায় রেস‌পি‌রেট‌রি ফেই‌লিউর হ‌য়ে তি‌নি মারা যান।

মিজানূর রহমান শেলীর মরদেহ এখন রাজধানীর শমরিতা হাসপাতালের হিমঘরে রাখা হয়েছে বলে জানান আরিফ।

বৃহস্পতিবার অথবা শুক্রবার আজিমপুর কবরস্থানে তাকে দাফন করা হতে পারে। আরিফ ইবনে মিজান ছাড়াও তাহমিদ ইবনে মিজান নামে আরও এক সন্তান রয়েছে মিজানূর রহমান শেলীর । ২০১৬ সালে তার স্ত্রী সুফিয়া রহমান মারা যান।

মিজানুর রহমান শেলী ১৯৪৩ সালে মুন্সীগঞ্জের কুসুমপুর গ্রামে জন্মগ্রহন করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে লেখাপড়া শেষ করে সেখানেই কর্মজীবন শুরু করেছিলেন রাষ্ট্রবিজ্ঞানের শিক্ষক হিসেবে। শিক্ষকতা ছেড়ে ১৯৭৬ সালে সরকারি চাকরিতে যোগ দেন তিনি। চাকরিতে থাকা অবস্থায় লন্ডন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আন্তর্জাতিক রাজনীতিতে পিএইচডি করেন।

সমাজকল্যাণ অধিদপ্তরের পরিচালক থাকা অবস্থায় ১৯৮০ সালে সরকারি চাকরি থেকে ইস্তফা দেন শেলী। পরে এইচএম এরশাদ সরকারের তথ্য ও পানিসম্পদ মন্ত্রীর দায়িত্ব পান তিনি।

প্রসঙ্গত, মিজানূর রহমান শেলী আর্থিক প্রতিষ্ঠান প্রিমিয়ার লিজিং অ্যান্ড ফাইনান্সের চেয়ারম্যান ছিলেন।

এই বিভাগের অন্যান্য খবর