Opu Hasnat

আজ ২৩ নভেম্বর শনিবার ২০১৯,

বড়াইগ্রামে ডাকাতি, হামলায় শিক্ষকসহ আহত ৩ নাটোর

বড়াইগ্রামে ডাকাতি, হামলায় শিক্ষকসহ আহত ৩

নাটোরের বড়াইগ্রামে দুর্ধর্ষ ডাকাতি সংঘটিত হয়েছে। ডাকাতদলের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে অবসরপ্রাপ্ত মাদরাসা শিক্ষক, তার স্ত্রী ও সন্তান গুরুতর আহত হয়েছে। বুধবার দিবাগত রাত দুইটার দিকে উপজেলার নগর ইউনিয়নের কয়েন গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আহতদের বনপাড়া পাটোয়ারী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহতরা হলেন, অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক ইজহারুল ইসলাম (৬৫), তার স্ত্রী নুরজাহান বেগম (৫৭), ছেলে হারুন-অর-রশিদ (৩৬)। ডাকাতদল এসময় আলমারী ভেঙ্গে স্বর্ণালংকারসহ নগদ টাকা লুটে নিয়ে গেছে।
 
শিক্ষক পুত্র বনপাড়া পৌরসভার হিসাবরক্ষক মামুনুর রশিদ বলেন, রাত ২টার দিকে ১০-১২ জনের একটি ডাকাত দল বাবার ঘরের দরজা ভেঙ্গে লুট করার চেষ্টা করে। এ সময় বাধা দিলে ডাকাত দলের সদস্যরা বাবা-মায়ের মাথা ও শরীরে কুপিয়ে এবং পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। পরে তারা ছোটভাই হারুন-অর-রশিদের ঘরের দরজা ভেঙ্গে ঘরে প্রবেশ করে। এ সময় চিৎকার দেয়ার অপরাধে তাকেও মাথায় আঘাত করে রক্তাক্ত জখম করে।  পরে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এলে ডাকাতদল কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরণ করে আতঙ্ক সৃষ্টি করে দ্রæত পালিয়ে যায়।  

ঘটনার পরক্ষণেই বনপাড়া হাইওয়ে থানার টহল পুলিশ এসে আহত তিনজনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। 

বড়াইগ্রাম থানার ওসি দিলিপ কুমার দাস জানান, খবর পেয়ে রাতেই ঘটনাস্থল করেছি। তবে এটি ডাকাতি নয় বলে তিনি দাবি করে বলেন পূর্ব শত্রুতার জের ধরে শত্রুপক্ষ এই নাশকতা করেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এ বিষয়ে তদন্ত করা হচ্ছে এবং দ্রুত এই হামলার রহস্য উম্মোচিত হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন। নাটোরের পুলিশ সুপার লিটন কুমার দাস, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বড়াইগ্রাম সার্কেল) হারুন-অর-রশিদ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।