Opu Hasnat

আজ ২২ অক্টোবর মঙ্গলবার ২০১৯,

নড়াইলে ডক্টরস স্পেশালাইজড হাসপাতালসহ লাইসেন্স বিহীন ২০ প্রতিষ্ঠান নড়াইল

নড়াইলে ডক্টরস স্পেশালাইজড হাসপাতালসহ লাইসেন্স বিহীন ২০ প্রতিষ্ঠান

তিনটি উপজেলা নিয়ে গঠিত নড়াইলে দীর্ঘদিন ধরে অনিয়োম আর অব্যবস্থাপনার মধ্যদিয়ে বেশকিছু অসাধু ব্যবসায়ী গড়ে তুলেছেন একাধিক বেসরকারি হাসপাতাল, ক্লিনিক ও ডায়াগনষ্টিক প্রতিষ্ঠান সমুহ। তাঁরা প্রতিষ্ঠা লগ্নথেকেই সরকারের রাজস্ব না দিয়েই লাইসেন্স বিহীন ব্যবসা করে যাচ্ছে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বারবার লাইসেন্স করার জন্য ওইসব প্রতিষ্ঠান সমুহকে চিঠি দিলেও প্রতিষ্ঠান মালিক প্রভাবশালী হওয়ায় তা তোয়াক্কা করছেন না। অনুমোদন বিহীন এসব প্রতিষ্ঠানে চিকিৎসা সেবার মাননিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন অনেকেই। 

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, লাইসেন্স বিহীন মোট ২০টি প্রতিষ্ঠানের নাম উল্লেখ করে বন্ধ করে দেওয়ার অনুরোধ জানিয়ে গত ১৮ জুলাই জেলা প্রশাসক বরাবর নড়াইল সিভিল সার্জন চিঠি দিয়েছেন। এসব প্রতিষ্ঠান গুলির মধ্যে সদর উপজেলায় রয়েছে সন্ধানী প্যাথলজী, জামান ডায়াগনষ্টিক সেন্টার, ফ্যামিলি  কেয়ার ডায়াগনষ্টিক সেন্টার, ল্যাব স্টার ডায়াগনষ্টিক সেন্টার, ভিক্টোরিয়া ডায়াগনষ্টিক সেন্টার, লোহাগড়া উপজেলায় রয়েছে ডক্টরস বিশেষায়িত হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনষ্টিক সেন্টার, সেবা ডায়াগনষ্টিক সেন্টার, মিরা ডেন্টাল কেয়ার, মা ডায়াগনষ্টিক সেন্টার, ডিজিটাল ডায়াগনষ্টিক সেন্টার, আনিকা ডায়াগনষ্টিক সেন্টার, কালিয়া উপজেলায় রয়েছে রওশন আলী হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনষ্টিক সেন্টার, বিশ্বাস ডায়াগনষ্টিক সেন্টার, জনসেবা প্যাথলজি সেন্টার, আসমা ডায়াগনষ্টিক সেন্টার, একতা ডায়াগনষ্টিক সেন্টার, চিত্রা ডায়াগনষ্টিক সেন্টার, মধুমতি ডায়াগনষ্টিক সেন্টার, রসনা ডায়াগনষ্টিক সেন্টার। 

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে নড়াইল সিভিল সার্জন ডা: মো: আসাদ-উজ-জামান মুন্সী বলেছেন, নড়াইলে বিভিন্ন নামে লাইসেন্স বিহীন হাসপাতাল, ক্লিনিক ও ডায়াগনষ্টিক সেন্টার সমুহ অদক্ষ জনবল দ্বারা কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। ফলে জনমনে বিরুপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হচ্ছে। এসব প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়ার অনুরোধ জানিয়ে জেলা প্রশাসক বরাবর চিঠি দিয়েছি।

জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা বলেন, আমরা লাইসেন্স বিহীন প্রতিষ্ঠান গুলির বিরুদ্ধে দ্রুত অভিযান পরিচালনা করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

এই বিভাগের অন্যান্য খবর