Opu Hasnat

আজ ১৯ আগস্ট সোমবার ২০১৯,

মুন্সীগঞ্জে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধসহ আহত ২৫ মুন্সিগঞ্জ

মুন্সীগঞ্জে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধসহ আহত ২৫

আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে মুন্সীগঞ্জের সদর উপজেলার চরাঞ্চলের মোল্লাকান্দিতে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ও ককটেল বিস্ফোরণে গুলিবিদ্ধসহ অন্তত ২৫ জন আহত হয়েছেন। মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) সকালে মোল্লাকান্দি ইউনিয়নের নোয়াদ্দা ও ঢালী কান্দিতে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন- রাজ্জাক শিকদার (৫২), নুরউদ্দীন (৫৫), সোলেমান (৪০), আকরাম (৩৭), আবু সায়েদ (৫০), রহমত উল্লাহ (১৭), আবুল কালাম (৩৫), মো. সুজন (৩৫), তাসলিমা বেগম (৫০), শাহনাজ (৩০),  কলেজ ছাত্র মো. সাকিলসহ (১৯) প্রায় ২৫ জন আহত হয়েছে। 

এদের মধ্যে গুলিবিদ্ধ আকরাম ও নূর উদ্দীনকে গুরুতর অবস্থায় মুন্সীগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, মোল্লাকান্দি ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য স্বপন দেওয়ান ও ৭নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মেজবাউদ্দিন ঢালীর মধ্যে কয়েকদিন ধরে বিরোধ চলছিল। তারই জেরে মঙ্গলবার ভোরে স্বপন দেওয়ানের নেতৃত্বে ও মেজবাউদ্দিন ঢালীর নেতৃত্বে শতাধিক লোক নোয়াদ্দা ও ঢালী কান্দি এলাকায় সংঘর্ষ বাধেঁ। এ সময় উভয় পক্ষের অন্তত ২৫ জন আহত হয়েছে।

হামলার শিকার হওয়া আহতরা জানায়, সকালেই সন্ত্রাসী বাহিনীরা আমাদের উপর হামলা চালায়। গত কয়েকদিন ধরে তাদের অত্যাচারে এলাকাবাসী অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে।  আমরা এর থেকে রেহাই চাই।

মেজবাউদ্দিন ঢালী জানান, ‘সকালে আমার এলাকার নিরীহ মানুষের উপর আচমকা হামলা চালায় স্বপন দেওয়ানের লোকজন। তারা এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী।

অন্যদিকে, স্বপন দেওয়ান অভিযোগ করেন, ভোরে আমি বাজারে আসলে আমার উপর হামলা চালানো হয়। পরে আমার লোকেরা পাল্টা হামলা চালায়।

এ প্রসঙ্গে মোল্লাকান্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মহসিনা হক কল্পনা জানান, মোল্লাকান্দি ইউনিয়নের এ ঘটনা অনেকদিন যাবত চলে আসছে। পুলিশের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের এ বিষয়ে সরাসরি কথা বলেছি। কিন্তু পুলিশ যদি এ বিষয়টি আমলে নিয়ে আগেই পদক্ষেপ নিতো তাহলে আজকের এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটতো না।

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জায়েদুল আলম পিপিএম জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের লক্ষে সব ধরনের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে। তাদের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।