Opu Hasnat

আজ ২৩ সেপ্টেম্বর সোমবার ২০১৯,

শপথ নিলেন এক মন্ত্রী ও এক প্রতিমন্ত্রী জাতীয়

শপথ নিলেন এক মন্ত্রী ও এক প্রতিমন্ত্রী

শনিবার সন্ধ্যায় বঙ্গভবনে একজন প্রতিমন্ত্রীর পূর্ণমন্ত্রী হিসেবে এবং একজন নতুন প্রতিমন্ত্রীর শপথ গ্রহণের মধ্য দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মন্ত্রিসভায় সামান্য রদবদল সম্পন্ন হলো।
প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমদ পূর্ণমন্ত্রী হিসেবে এবং আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক ও সংসদ সদস্য ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা নতুন প্রতিমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন।

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে পৃথক পৃথকভাবে মন্ত্রিসভার এ দুই সদস্যকে শপথ বাক্য পাঠ করান।

মন্ত্রী পরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম শপথ অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন। সন্ধ্যা ৭ টা ৩৭ মিনিটে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হয়।

পরে মন্ত্রী পরিষদ সচিব বাসসকে জানান, ইমরান আহমদ প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান বিষয়ক মন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক ও সংসদ সদস্য ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা নারী ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী হয়েছেন।

মন্ত্রী পরিষদ বিভাগের এক প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, ‘শপথ গ্রহণের দিন থেকে এই নিয়োগ কার্যকর হবে।’

এর আগে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বাংলাদেশের সংবিধানের ৫৬ অনুচ্ছেদের ধারা- ২ অনুযায়ী ইমরান আহমদকে পূর্ণমন্ত্রী এবং ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরাকে প্রতিমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দেন।

সিলেট থেকে ষষ্ঠবার নির্বাচিত সংসদ সদস্য ইমরান আহমদকে গত ৭ জানুয়ারি প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী করা হয়।

ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা মহিলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক। তিনি একটি সংরক্ষিত আসন থেকে দ্বিতীয়বারের মতো সংসদ সদস্য মনোনীত হন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৭টা ৩২ মিনিটে বঙ্গভবনের দরবার হলে প্রবেশ করেন।

নতুন মন্ত্রীদ্বয় দেশের সংবিধান ও রাষ্ট্রের সার্বভৌমত্ব রক্ষার শপথ নেন। শপথ গ্রহণ শেষে তারা পৃথক পৃথকভাবে দায়িত্ব ও গোপনীয়তা রক্ষার শপথে স্বাক্ষর করেন। পরে রাষ্ট্রপ্রধান ও সরকারপ্রধান রাষ্ট্রপতি ভবনে যৌথভাবে তাদের সঙ্গে মত বিনিময় করেন।

২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিপুল বিজয়ের পর গত ৭ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা টানা তৃতীয়বারের মতো মন্ত্রিসভা গঠন করেন। পরে গত ১৯ মে মন্ত্রিসভা সামান্য পুনর্বিন্যাস করা হয়। রদবদলের ফলে মন্ত্রিসভার মোট সদস্য সংখ্যা ৪৭ থেকে বেড়ে ৪৮। এতে পূর্ণমন্ত্রী হলেন ২৫ জন, প্রতিমন্ত্রী ১৯ জন ও তিন জন উপমন্ত্রী।

বঙ্গভবনের দরবার হলে আমন্ত্রিত অতিথিদের মধ্যে রয়েছেন- প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কন্যা সায়মা ওয়াজেদ হোসেন, সড়ক যোগাযোগ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন, এটর্নি জেনারেল মাহমুবে আলম, বঙ্গভবন, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিবগণ এবং উচ্চপদস্থ বেসামরিক ও সামরিক কর্মকতাবৃন্দ।