Opu Hasnat

আজ ১৯ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার ২০১৯,

তিন মাস পর খোলা হলো কিশোরগঞ্জের ঐতিহাসিক পাগলা মসজিদের সিন্দুক কিশোরগঞ্জ

তিন মাস পর খোলা হলো কিশোরগঞ্জের ঐতিহাসিক পাগলা মসজিদের  সিন্দুক

কিশোরগঞ্জের ঐতিহাসিক পাগলা মসজিদের দান সিন্দুক   তিন মাস পর  খোলা হয়েছে। শনিবার (১৩ জুলাই) সকাল ৯টায় জেলা প্রশাসনের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে মসজিদের ৮টি দান সিন্দুক খোলা হয়।

সর্বশেষ গত ১৩ এপ্রিল ২০১৯ খ্রী: দান সিন্দুকগুলো খোলা হয়েছিল। তখন এক কোটি ৮ লাখ ৯ হাজার ২শ টাকা পাওয়া গিয়েছিল। বিপুল পরিমাণ দানের এই নগদ টাকা ছাড়াও বিভিন্ন বৈদেশিক মুদ্রা ও দান হিসেবে বেশ কিছু স্বর্ণালঙ্কার পাওয়া যায়। এবারও দান সিন্দুকে কোটি টাকা বা তারও অধিক পরিমাণ দান পাওয়া যাবে বলে আশা করা হচ্ছে।

টাকা গণনা কাজ তদারকি করছেন কিশোরগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. আব্দুল্লাহ আল মাসউদ, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট জাকির হোসেন এবং নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. মনোয়ার হোসেন ও মীর মো. আল কামাহ তমাল। এছাড়া কমিটির সদস্য হিসেবে প্রেসিডেন্ট আবদুল হামিদ মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডা. আনম নৌশাদ খান ও সিনিয়র সাংবাদিক সাইফুল হক মোল্লা দুলুসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ টাকা গণনা কাজ তদারকি করছেন।

প্রতিদিনই বিভিন্ন জেলা উপজেলা থেকে মানুষ মসজিদটির দানসিন্দুকগুলোতে নগদ টাকা-পয়সা ছাড়াও স্বর্ণালঙ্কার, হাঁস-মুরগীসহ বিভিন্ন ধরনের জিনিসপত্র দান করেন। প্রথা অনুযায়ী সাধারণত তিন মাস পর দানসিন্দুক খোলা হয়ে তাকে।