Opu Hasnat

আজ ২১ সেপ্টেম্বর শনিবার ২০১৯,

চট্টগ্রামে পাহাড়ের ১৬ অবৈধ দখলদারের ঝুঁকিপর্ণু ৮০ পরিবার উচ্ছেদ চট্টগ্রাম

চট্টগ্রামে পাহাড়ের ১৬ অবৈধ দখলদারের ঝুঁকিপর্ণু ৮০ পরিবার উচ্ছেদ

চট্টগ্রাম নগরীর বায়েজিদ থানাধীন আমিন জুট মিল সংলগ্ন টাংকির পাহাড়ে ঝুঁকির্পূণভাবে  বসবাসরত মোট ১৬ জন অবৈধ দখলদারের ৮০টি পরিবারের ঘর উচ্ছেদ করেছে জেলা প্রশাসন। তাদেরকে নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে যেতে বলা হয়েছে।  মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হয়।  পাহাড় ব্যবস্থাপনা কমিটির সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে ইতোমধ্যে চট্টগ্রাম মহানগরীর ১৭টি পাহাড়ে চিহ্নিত ৮৩৫টি ঝুঁকিপ‚র্ণ পরিবারকে উচ্ছেদের অংশ হিসেবে অভিযান চালায় জেলা প্রশাসন।  উচ্ছেদ অভিযানে পুলিশ, র‌্যাব ও আনসার সদস্যরা সহযোগিতা করেন। পরিবেশ অধিদপ্তর, পিডিবি, ওয়াসা, কর্ণফুলী গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন লি. এর প্রতিনিধিরা এসময় উপস্থিত ছিলেন।

উচ্ছেদ অভিযানে নেতৃত্ব দেন চান্দগাঁও সার্কেলের সহকারী কমিশনার (ভ‚মি) ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ফোরকান এলাহী অনুপম, বাকলিয়া সার্কেলের সহকারী কমিশনার (ভ‚মি) ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট সাবরিনা আফরিন মুস্তাফা, সদর সার্কেলের সহকারী কমিশনার (ভ‚মি) ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ ইসমাইল হোসেন, পতেঙ্গা সার্কেলের সহকারী কমিশনার (ভ‚মি) ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট তাহমিলুর রহমান এবং কাট্টলী সার্কেলের  সহকারী কমিশনার (ভ‚মি) ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মো. তৌহিদুল ইসলাম।

চান্দগাঁও সার্কেলের সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ফোরকান এলাহী অনুপম জানান, চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইলিয়াস হোসেন স্যারের নির্দেশনায় নগরীর বায়েজিদ এলাকার  টাংকির পাহাড়ে ঝুঁকির্পূণ ও অবৈধভাবে বসবাসরতদের জানমালের নিরাপত্তায়  গতকাল মঙ্গলবার  উচ্ছেদ কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। এসময় জেলা প্রশাসনের তালিকাভূক্ত ১৬ জন  অবৈধ দখলদারের  ১০ জনের ৬০টি ও ৬ জনের ২০টি ভাড়া ঘরসহ মোট ৮০টি  পরিবারের অবৈধ  ঘর উচ্ছেদ করা হয়। অভিযানে টাংকির পাহাড়ের পাদদেশে গলির ভিতরে দুই লাইনে থাকা ঘর গুলো ভেঙ্গে টিনের চালা ফুটো করে বিদ্যুৎ, পানি ও গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়া হয়। উচ্ছেদকৃত পরিবারের সদস্যদেরকে আপদকালীন সময়ে নিরাপদ আশ্রয় কেন্দ্রে যেতে বলা হয়েছে। আশ্রয় কেন্দ্রে পর্যাপ্ত খাবার ও থাকার ব্যবস্থা রয়েছে।

উল্লেখ্য, এরআগে রমজানের প‚র্বে নগরীর  মতিঝর্ণা, বাটালী হিল, পোড়া কলোনী পাহাড়, একে খান পাহাড় এলাকায় ৩৫০ এর মতো ঝুঁকিপ‚র্ণ বসবাসরত অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদ করা হয়েছিল। চট্টগ্রাম মহানগরীর ১৪টি পাহাড়ে দ্বিতীয় ধাপের উচ্ছেদ কার্যক্রম আগামী ১৭ জুলাই পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে।