Opu Hasnat

আজ ২৩ অক্টোবর বুধবার ২০১৯,

পাবনা কমিউনিটি মেডিকেল হাসপাতাল ব্লাড ব্যাংকের উদ্বোধন পাবনা

পাবনা কমিউনিটি মেডিকেল হাসপাতাল ব্লাড ব্যাংকের উদ্বোধন

আর কে আকাশ, পাবনা : পাবনায় আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করলো পাবনা কমিউনিটি মেডিকেল হাসপাতাল ব্লাড ব্যাংক।
  
বৃহস্পতিবার বিকাল ৫টায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পাবনা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রেজাউল রহিম লাল বলেন, একজনের রক্ত বাঁচাতে পারে অপরের জীবন। আমাদের দেশে প্রতিদিনই সড়ক দুর্ঘটনায় অনেকেই মারা যান, বেশির ভাগই রক্তক্ষরণজনিত কারণে। রক্ত সঠিক সময়ে সংগ্রহ করে পরিসঞ্চালন করা গেলে অনেক জীবনই বাঁচানো সম্ভব। এ প্রাণগুলো অকালে ঝরে যাওয়া রোধ করতে প্রয়োজন আমাদের একটু সহানুভূতি, সচেতনতা। আমাদের এক ব্যাগ রক্তই পারে এদের জীবন বাঁচাতে। অসহায় মানুষের জীবন বাঁচাতে পাবনা কমিউনিটি মেডিকেল হাসপাতাল ব্লাড ব্যাংক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে আমি মনে করি।

প্রধান বক্তার বক্তব্যে পাবনা কমিউনিটি মেডিকেল হাসপাতাল ব্লাড ব্যাংক’র নির্বাহী পরিচালক ও সাবেক পিপি অ্যাড. মো. বেলায়েত আলী বিল্লু বলেন, প্রতি ৩মাস অন্তর আপনার শরীরে স্বাভাবিক প্রক্রিয়াতে পরিবর্তন হয়। আপনার একটু সহানুভূতি একটি জীবন বাঁচাতে পারে, আপনার দেয়া এক ব্যাগ রক্ত বাঁচাতে পারে একজন মুমুর্ষ রোগীর প্রাণ।

পাবনা সিভিল সার্জন  ডা. মো. মেহেদি ইকবাল বলেন, রক্তদান একটি সহজ প্রক্রিয়া। এতে কোনো ক্ষতি নেই। এতে শুধু একটি পিঁপড়ার কামড়ের মতো ব্যথা অনুভূত হয়। রক্ত দান করলে রক্ত কমে না। শরীর তার স্বাভাবিক প্রক্রিয়ার রক্ত তৈরি করে। 

পাবনা কমিউনিটি মেডিকেল হাসপাতাল ব্লাড ব্যাংক’র চেয়ারম্যান ড. এম.এম. কফিল উদ্দিনের সভাপতিত্বে সম্মানিত অতিথির বক্তব্য দেন, সরকারি এডওয়ার্ড কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. হূমায়ুন কবির মজুমদার, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ঢাকার সাবেক সহকারি পরিচালক ডা. মো. জিল্লুর রহমান, সরকারি এডওয়ার্ড কলেজের শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক কে.এম. ড. শওকাত আলী খান, ডা. মো. জাহিদুল ইসলাম।

আলোচনা সভা শেষে অতিথিবৃন্দ ফিতা কেটে পাবনা কমিউনিটি মেডিকেল হাসপাতাল ব্লাড ব্যাংক’র উদ্বোধন করেন। অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেন আজমেরী হাসনাত আশা।

এসময় পাবনা কমিউনিটি মেডিকেল হাসপাতাল ব্লাড ব্যাংক’র চেয়ারম্যান ড. এম.এম. কফিল উদ্দিন গণমাধ্যমকর্মীদের বলেন, বিভিন্ন রোগের চিকিৎসায় আমাদের বছরে প্রায় পাঁচ লাখ ব্যাগ রক্তের প্রয়োজন হয়। তবে এখনো দেশের অনেকেই রক্তের অভাবে মারা যান। নিরাপদ বিশুদ্ধ রক্তের মাধ্যমে প্রাণগুলো রক্ষা করা যায় খুব সহজেই। সেই চিন্তা থেকেই আমি পাবনা কমিউনিটি মেডিকেল হাসপাতাল ব্লাড ব্যাংক প্রতিষ্ঠা করেছি, যাতে খুব সহজেই নিরাপদ রক্তের ব্যবস্থা করা যায়।