Opu Hasnat

আজ ২১ আগস্ট বুধবার ২০১৯,

পরিবহন সেক্টরে নৈরাজ্য ঠেকাতে প্রতিবাদী হয়ে উঠছেন সুনামগঞ্জের সচেতন মহল সুনামগঞ্জ

পরিবহন সেক্টরে নৈরাজ্য ঠেকাতে প্রতিবাদী হয়ে উঠছেন সুনামগঞ্জের সচেতন মহল

সুনামগঞ্জ-সিলেট আঞ্চলিক সড়কে চালু হওয়া বিআরটিসির বাস চলাচল বন্ধ করে দেয়ার চক্রান্তের অংশ হিসাবে ফের ২৪ জুন থেকে অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন পরিবহন মালিক শ্রমিকদের সংগঠন। 

শনিবার বিকেল ৫টায় পরিবহন মালিক শ্রমিকদের ধর্মঘটের নামে ডাকা নৈরাজ্য সৃষ্টির ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে জনমত গঠনে সিলেট-সুনামগঞ্জ নিরাপদ স্বার্থ সংরক্ষণ কমিটি সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কের গোবিন্দগঞ্জ পয়েন্টে প্রতিবাদ সভার ডাক দিয়েছেন।

একইভাবে রোববার বেলা ২টায় জেলা আইনজীবী সমিতির ভবনে তরুণ আইনজীবীদের উদ্যোগে পরিবহণ মালিকদের নৈরাজ্যের প্রতিবাদে ও বিআরটিসি বাস চালু রাখার স্বপক্ষে মতবিনিময় সভার ডাক দিয়েছেন। শনিবার সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেন জেলা আইনজীবী সমিতির সদস্য অ্যাডভোকেট এনাম আহমেদ। তিনি বলেন, বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ পরিবহন সেক্টরের ধর্মঘটের নামে নৈরাজ্যকারীদের বিরুদ্ধে গণক্ষোভ প্রকাশ বিস্ফোরিত হয়ে উঠছে। এদিকে সুনামগঞ্জ সিলেট সড়কে বিআরটিসি বাস চালু রাখার পক্ষে এবং পরিবহন মালিকদের নৈরাজ্য বন্ধের দাবি জানিয়েছেন হাওর বাঁচাও সুনামগঞ্জ বাঁচাও আন্দোলন’র নেতৃবৃন্ধ।

জেলা শহরে আনুষ্ঠানিকভাবে বৈঠক করে ওই পরিবহন মালিকদের ডাকা ধর্মঘটের তীব্র নিন্দা জানিয়ে পরিবহন সেক্টরে নৈরাজ্যে থামাতে সরকার ও প্রশাসনের প্রতি আহবান জানিয়েছেন নেতৃবৃন্দরা। পরিবহন সেক্টরের নৈরাজ্য সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীসহ সচেতন মহলকে সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানান। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় শহীদ মুক্তিযোদ্ধা জগৎজ্যোতি পাঠাগারে (পাবলিক লাইব্রেরী) তে অনুষ্ঠিত এক জরুরী সভায় এই সিদ্ধান্ত’ নেয়া হয়। জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি সিনিয়র আইনজীবী রোকেস লেইস বলেন, যাত্রী সাধারণকে যুক্তিহীন, অন্যায্য কারনে জিম্মি করার পায়তারা করছে মালিক শ্রমিক সংগঠনের কিছু স্বার্থান্বেসী মহল। জনবিরোধী ধর্মঘটের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।

অনৈতিক ধর্মঘটের ডাক দেয়ায় পরিবহন সেক্টরে নৈরাজ্য সৃষ্টির ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে এখন ক্রমশই সোচ্চার ও প্রতিবাদী হয়ে উঠেছেন সুনামগঞ্জের সাধারন মানুষ। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে তীব্র ঝড় উঠছে। 

জাতীয় যুব শ্রমিকলীগের সভাপতি মাহতাব উদ্দিন তালুকদার জানান, পরিবহন মালিকরা বিটিআরসির বাস চলাচল ঠেকাকে অহেতুক অনৈতিক ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে এবং পরিবহন সেক্টরে নৈরাজ্য সৃষ্টির উদ্দেশ্যে যে ষড়যন্ত্র’র ফাঁদ পাতা হয়েছে সেটি সাধারন যাত্রী ও জেলার সচেতন মহল বুঝে গেছেন। তাদের কাছে মানুষ আর জিম্মি থাকতে চায় না। অযৌক্তিক ধর্মঘট ঠোকানোর পাল্টা প্রতিবাদে এখন ক্রমশই সোচ্চার ও প্রতিবাদী হয়ে উঠেছেন মানুষ। জাতীয় যুব শ্রমিকলীগের প্রতিটি নেতাকর্মী ধর্মঘটের নামে সাধারন মানুষকে জিম্মির উদ্দেশ্য সফল করতে দেবে না। 

গণমাধ্যমকর্মী এমরানুল হক চৌধুরী বলেন, সুনামগঞ্জে পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের অন্যায্য ও আইন বিরোধী কর্মকান্ড-রাষ্ট্র-সরকার-জনতাকে ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিরোধ করতে হবে। এদের ঐদ্ধত্যকে ছাড় দিলে জনভোগান্তি দীর্ঘতর হবে। সম্মিলিতভাবেই এই নৈরাজ্য সৃষ্টিকারীদের রুখে দিতে হবে। 

উল্লেখ্য, গত ৩ জুন সুনামগঞ্জ-সিলেট সড়কে বিআরটিসি বাস চালু ঠেকাতে ঘোষণা দিয়ে সুনামগঞ্জ পরিবহণ মালিক-শ্রমিক ঐক্যপরিষদ নামের সংগঠন সিলেট সুনামগঞ্জ সড়কে অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্মবিরতির ডাক দেয়। আগের দিন রাতে আনুষ্ঠানিক বৈঠক করে তারা সরকারি সিদ্ধান্তের বিষয়ে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদের কাছে অনৈতিকভাবে কৈফিয়ত দাবী করে। 

৩ জুন বিআরটিসি বাস উদ্বোধন করে নৈরাজ্য থেকে পরিবহন মালিক শ্রমিকদের সরে আসার আহ্বান জানান পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান এমপি। তিনি সরকারকে দুর্বল ভেবে শক্তি প্রদর্শনে বাধ্য না করারও আহ্বান জানিয়েছিলেন। 

পুলিশ সুপার সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে বলেন, সিলেট সুনামগঞ্জ সড়কে পরিবহন মালিক শ্রমিকদের অনৈতিক ধর্মঘটের বিরুদ্ধে সাধারন মানুষ ফুসে উঠছে। জেলা পুলিশ সাধারন মানুষের পক্ষে অবস্থান করছে। ফিটনেস বিহীন ও লক্কর ঝক্কর গাড়ীগুলোর বিরুদ্ধে দ্রুত অভিযান চালানো হবে। যারা সাধারন মানুষকে অন্যায়ভাবে বাধাঁ দেয়ার চেষ্টা করবে তাদের বিরুদ্ধে আইন প্রয়োগ করা হবে।