Opu Hasnat

আজ ১৯ আগস্ট সোমবার ২০১৯,

চিকিৎসার অবহেলার অভিযোগ, টান টান উত্তেজনা

পিতাকে সালাম দিয়ে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লো শিক্ষার্থী শুভ! খুলনা

পিতাকে সালাম দিয়ে  মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লো শিক্ষার্থী শুভ!

চিকিৎসা অবহেলার কারনে মেধাবী শিক্ষার্থী শুভ তার পিতাকে ৩ বার সালাম দিয়ে  মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন পাইকগাছা হাসপাতালে। অপরদিকে, উপজেলা স্বাস্থ্য ও প.প কর্মকর্তা  পাল্টা শোকাহত পরিবারকে থানা লকাপে ঢুকিয়ে দেয়ার হুমকি দিয়েছে। এ নিয়ে এলাকায় টান টান উত্তেজনা বিরাজ করছে। শুভর দাফন সম্পন্ন হয়েছে, জানাজায় হাজারো জনতা ঢল নামে। 

প্রাপ্ত তথ্যে প্রকাশ, উপজেলার শ্রীকণ্ঠপুর গ্রামের আব্দুস সামাদ আজাদের পুত্র শহীদ কামরুল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মেধাবী ৭ম শ্রেণীর শিক্ষার্থী সাহারিয়া মোস্তফা শুভ কে  (১২) জ্বর ও বমির কারনে বুধবার রাত সাড়ে ১১ টায় পাইকগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যায়। সে সময় জুরুরি বিভাগে সহকারী মেডিকেল অফিসার পিংকু কুমার দাম চিকিৎসা দিয়ে ভর্তি করেন। এ সময় মেডিকেল অফিসার ডাক্তার সুজন কুমার সরকার ডিউটি থাকলেও সে সময় হাসপাতালে অভ্যন্তরে তিনি ছিলেন না বলে পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ করেন। ভর্তির পর ডিপ্লোমা নার্স সুপ্রিয়া ও টুম্পার্  দায়িত্বে ছিলেন ওয়ার্ডে। শুভর রাত ১২ টার পরে জ্বর ও বমি বেড়ে গেলে তার পিতা ও মাতা ডাক্তারদের খুঁজে না পেয়ে রাত ১ টার দিকে ২ নার্সের শরণাপন্ন হন। নার্স সুপ্রিয়া ও টুম্পা ওয়ার্ডের রুমে তাদের স্ব স্ব চেয়ারে বসে ঘুমাচ্ছিলেন। নার্সদের ডেকে তুললে ডাক্তার নাই বলে সাফ জানিয়ে দেয়। ডাক্তার খুঁজে না পেয়ে শুভর পিতা মাতা উপজেলা স্বাস্থ্য ও প প কর্মকর্তা (ইউএসএফও) ডাক্তার মারুফ হাসানের মোবাইলে যোগাযোগ করে তার মোবাইল নম্বর বন্ধ পায় বলে অভিযোগ করে। শেষ পর্যন্ত শুভ মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে বৃহস্পতিবার ভোর ৬ টায় তার পিতা আব্দুস সামাদ আজাদকে ৩ বার আসসালামু আলাইকুম দিয়ে মৃত্যু বরণ করেন । যা হাসপাতালের রোগী ও স্বজনরা দেখে কান্নায় ভেঙে পড়েন। এ খবর ভোর বেলায় ছড়িয়ে পড়লে শুভর স্বজনরা হাসপাতালে ভিড় জমায়। ডাক্তার মারুফ হাসান সুকৌশলে ডাক্তার সুজনকে হাসপাতাল থেকে সরিয়ে দিলে দেখা দেয় চরম উত্তেজনা। খবর পেয়ে থানার ওসি (তদন্ত) রহমত আলী সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে বিষয়টি নিয়ন্ত্রনে নিয়ে আসেন। 

শুভর পিতা আব্দুস সামাদ আজাদ জানান, ডাক্তারদের কর্তব্য অবহেলার কারনে আমার সন্তান মারা গেছে। ডাঃ সুজন কুমার সরকার জানান, শুভর চিকিৎসার কোন অবহেলা করা হয়নি রাত সাড়ে ১১ টার সময় হাসপাতালে আসলে তাকে আমি চিকিৎসা দেই এবং ভোর ৫ টায় তার অবস্থা অবনতি হলে আমি যেয়ে সুচিকিৎসার যাবতীয় ব্যবস্থা করি। ইউএসএফও ডাঃ মারুফ হাসানের সাথে মোবাইলে যোগাযোগের চেষ্টা করে ব্যর্থ হই। ডাঃ মারুফ হাসান জানান শুভর পিতা আমার সাথে কোন যোগাযোগ করেনি সে মিথ্যা বলেছে তাই তাকে থানার ওসি ও পুলিশ দিয়ে শুভর পিতাকে ধরে লকাপে ঢুকিয়ে রাখবে বলে এ প্রতিনিধির সাথে হুমকি স্বরুপ কথা বলে। 

শুভর নিকট আত্মীয় রাড়ুলী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ বলেন, ডাক্তারদের অবহেলার কারনে মেধাবী এক শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে এর বিচার হওয়া প্রয়োজন। 

পরিদর্শক (তদন্ত) রহমত আলী বলেন, এ বিষয় এখনো কেউ অভিযোগ করেনি। 

বৃহস্পতিবার দুপুরে শুভর পারিবারিক কবরস্থানে দাপন করা হয়। তার জানাজায় হাজারো জনতার ভিড় ছিলো।