Opu Hasnat

আজ ২১ অক্টোবর সোমবার ২০১৯,

আরও শক্তিশালী হয়ে ভারতের মসনদে থাকছেন নরেন্দ্র মোদী আন্তর্জাতিক

আরও শক্তিশালী হয়ে ভারতের মসনদে থাকছেন নরেন্দ্র মোদী

আরও শক্তিশালী হয়ে ভারতের মসনদে থাকছেন নরেন্দ্র মোদী। সাত ধাপের দীর্ঘ ভোটগ্রহণ প্রক্রিয়ার পর বুথ ফেরত জরিপের ফলকে বিরোধীরা পাত্তা না দিলেও সেটাই সত্যি হলো। ভারতের লোকসভা নির্বাচনে ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) নেতৃত্বাধীন রাজনৈতিক জোট ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক অ্যালায়েন্স (এনডিএ) ৩৫৪ আসনে জয়লাভ করতে যাচ্ছে, যার মধ্যে বিজেপি একাই পেতে যাচ্ছে ৩০২ আসন। গতবার এই জোট ৩৩৬টি আসনে জয়লাভ করে সরকার গঠন করে। সেবারও বিজেপি একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছে ২৮৪টি আসন নিয়ে।

২০১৪ সালের নির্বাচনে দলের একক সংখ্যাগরিষ্ঠতার পর প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পান এক সময়ের গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এবারও তার দল একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেতে যাচ্ছে এবং মোদি ফের হতে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী। এর মধ্য দিয়ে তিনি রচনা করতে যাচ্ছেন ইতিহাস।

ভারতে এর আগে কংগ্রেসের জওহরলাল নেহরু ও ইন্দিরা গান্ধির কেবল দুই দফায় দলের সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে প্রধানমন্ত্রী হওয়ার রেকর্ড রয়েছে।

বর্তমান কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধির দাদি ইন্দিরা গান্ধির বাবা জওহরলাল নেহরুর দল ১৯৫১-৫২ সালের লোকসভা নির্বাচনে মোট আসনের চার ভাগের তিন ভাগ আসন লাভ করে এবং নেহরু প্রধানমন্ত্রী হন। সেবার কংগ্রেস ৪৮৯টি আসনের মধ্যে ৩৬৪টিতে জয়লাভ করে। ১৯৬২ সালের নির্বাচনে তার দল ৪৯৪টি আসনের মধ্যে ৩৬১টি আসনে জয় লাভ করে এবং একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়ে ক্ষমতায় আসে এবং তিনি প্রধানমন্ত্রী হন।

বারার পর ইন্দিরা গান্ধির নেতৃত্বাধীন কংগ্রেস ১৯৬৯ সালের নির্বাচনে ৫২০টি আসনের মধ্যে ২৮৩টি আসনে জয়লাভ করে এবং ইন্দিরা প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব গ্রহণ করেন। এরপর ১৯৭১ সালে তার দ্বিতীয় মেয়াদে ৩৫২টি আসনে জয়লাভ করে কংগ্রেস।

এরপর ভারতের আর কোনো প্রধানমন্ত্রীর দল দুইবার লোকসভা নির্বাচনে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা লাভ করতে পারেনি। দীর্ঘ ৪৮ বছর পর সেই রেকর্ড আবার করলেন চা বিক্রেতা থেকে দেশের প্রধানমন্ত্রী হওয়া নরেন্দ্র মোদি।

বিতর্কিত নানা অধ্যায় ছাপিয়ে নিজেকে ‘চায়েওয়ালা’ পরিচয় দিয়ে পাঁচ বছর আগে ভোটের লড়াইয়ে জিতে দিল্লির মসনদে বসেছিলেন মোদী, এবার ভোটের আগে শাসক পরিচয়ের পরিবর্তে নিজেকে ‘চৌকিদার’ হিসেবে তুলে ধরেছিলেন তিনি।