Opu Hasnat

আজ ১৭ জুন সোমবার ২০১৯,

হারিয়ে যাচ্ছে নারীদের শাড়ি লাইফ স্টাইলমুন্সিগঞ্জ

হারিয়ে যাচ্ছে নারীদের শাড়ি

দিন দিন নারীদের মাঝে শাড়ি ব্যবহারের প্রতি আগ্রহ কমে আসছে। নারীদের এখন খুব একটা শাড়ি পড়তে দেখা যায় না। সালোয়ার কামিজেই অভ্যস্ত হয়ে উঠছে নারীরা। একদা তাঁতের তৈরী মোটা কাপড় বা শাড়ি পড়তেই বেশী পছন্দ করত বাঙ্গালী নারী। বিয়ের পর গ্রাম-বাংলা কিংবা শহর-নগরের গৃহবধুদের শাড়িই ছিল পড়নের অন্যতম বস্ত্র। শুধু মাত্র কিশোরী, তরুনী ও যুবতীদের কেবল মাত্র সালোয়ার কামিজ পড়তে দেখা যেত। অথচ বর্তমানে রাজধানীর অভিজাত এলাকার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে মফস্বল জেলা মুন্সীগঞ্জের নারীদেরও সালোয়ার কামিজ পড়তে দেখা যায়। শহরের নারীদের সালোয়ার কামিজ কিংবা ম্যাক্সি পড়তেই বেশী দেখা যায়। 

মুন্সীগঞ্জের ৬ টি উপজেলার গ্রাম গুলোতে এখনও কদাচিৎ বিবাহিত নারীদের শাড়ি পড়তে দেখতে পাওয়া যায়। তবে শহরে সব বয়সী নারীকেই এখন সালোয়ার কামিজ পড়তে দেখা যাচ্ছে। এক কথায় শাড়িতে নারীর প্রকৃত বাঙ্গালীপনা ফুটে উঠত। শাড়িতে দেশজ অভিজাত্য স্বরুপ দেখা মিলত নারীরকে। এখন আর নারীকে দেশজ ঐতিহ্যে দেখা মিলে না। নারীকে এখন আর শাড়িতে দেখা যায়। এভাবেই দিন দিন হারিয়ে যাচ্ছে শাড়ির ঐতিহ্য।

মুন্সীগঞ্জের একটি গ্রামের ষাটোর্ধ্ব সমিরন বিবির সঙ্গে কথা হলে তিনি জানান, আজকাল মেয়েদের কি হয়েছে কে জানে। তারা এখন আর শাড়ি বা তাতের মোটা কাপড় পড়তে চান না। বিয়ে হওয়ার পরও সালোয়ার কামিজই পড়ছে এখনকার গৃহবধুরা। তিনি বলেন, বাবা দেখ আমি কাপড় পড়ে আছি। আমারে কি খারাপ লাগছে। বল বাবা। অথচ আমার ছেলের বউ সালোয়ার কামিজ পড়ে আছে। 

ঝর্ণা দাস নামে এক গৃহবধু বিয়ের পর থেকেই শাড়ি পড়তে অভ্যস্ত হয়েছেন। বিয়ের আগে সে সালোয়ার কামিজই পড়ত। তিনি জানান, আমি নিজে থেকেই শাড়ি পড়ছি। তবে আমার শ^শুর বাড়ির অন্য বউরা সালোয়ার কামিজ পড়ে থাকে। তিনি বলেন, নানী-দাদীদের দেখে এসেছি শাড়ি পড়তে। বিয়ের পর নাকি শাড়িতেই নারীকে সুন্দর দেখায়। তবে এখন সব বয়সী নারীকেই সালোয়ার কামিজ পড়তে দেখা যায়। এখন কে বউ আর কে যুবতী বোঝাই যায় না।

অনেকেই বলেছেন, শাড়িতে নারীকে এখন আর বাঙ্গালীর চিরাচরিত রুপে দেখা মিলে না। তরুনী, যুবতী, গৃহবধু কিংবা বৃদ্ধা সবার মাঝেই শাড়ির প্রতি আগ্রহ কমেছে। সব বয়সী নারীদের বেলায় শাড়ির ব্যবহার কমেছে পাল্লা দিয়েই। এতে করে গ্রাম-বাংলার চিরাচরিত শাড়ি দিন দিন হারিয়ে যাচ্ছে। বিলুপ্তির দ্বারপ্রান্তে পৌছেছে নারীর শাড়ি।