Opu Hasnat

আজ ১৭ জুন সোমবার ২০১৯,

কিশোরগঞ্জে ৪৮ বছরেও পুরণ হয়নি একটি সেতুর স্বপ্ন! নীলফামারী

কিশোরগঞ্জে ৪৮ বছরেও পুরণ হয়নি একটি সেতুর স্বপ্ন!

আপেল বসুনীয়া, নীলফামারী : স্বাধীনতার ৪৮ বছরেও একটি সেতুর নির্মানের স্বপ্ন পুরণ হয়নি নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার চাঁদখানা ও বাহাগিলী ইউনিয়নের কয়েকটি গ্রামবাসীর। এখনও একটি বাঁশের সাকোয় তাদের এক মাত্র ভরসা। যমুনেশ্বরী নদীর উপর নির্মিত ভাঙ্গাগড়ার এই সাকোটি ৫টি গ্রামের প্রায় ১০ হাজার মানুষের পাড়াপারের এক মাত্র অবলম্বন।

পশ্চিমে বাহাগিলী পূর্বে চাঁদখানা ইউনিয়ন। এর মাঝ দিয়ে বয়ে গেছে যমুনেশ্বরী নদী। এই দুই ইউনিয়নের ৫টি গ্রামের প্রায় ১০ হাজার মানুষ এই বাশের সাঁকো দিয়ে কিশোরগঞ্জ উপজেলা শহরে সাথে যোগাযোগ করে থাকে। সেতুটি ভেঙ্গে গেলে সাতরিয়ে অথবা ১০ কিশোমিটার ঘুরে তাদের কিশোরগঞ্জ আসতে হয়। বাহাগিলী মাছুয়াপাড়া, সরকারপাড়া,ও গুচ্ছে গ্রামের বাসিন্দা এয়ামিন, ফরিদ হোসেন, মোকলেছার রহমান ও সাদা মাষ্ঠার বলেন স্বাধীনতার ৪৮ বছরেও আমাদের দুঃখ ঘুচেনি। আমাদের একটি সেতুর স্বপ্ন আজো পুরন হয়নি। জাতীয় নির্বাচনের সময় অনেক নেতাই সেতু নির্মানের স্বপ্ন দেখিয়েছেন কিন্তু আজ পর্যন্ত কোন নেতাই তাদের দেয়া কথা রাখেননি।

বাহাগিলী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আতাউর রহমান দুলু শাহ বলেন, উপজেলা পরিষদের মাসিক মিটিংয়ে মাছুয়াপাড়া ঘাটে একটি ব্রীজ নির্মানের জন্য আমি প্রায় প্রস্থাব উত্থাপন করি। কিন্তু প্রশাসন প্রস্তাবটি গুরুত্ব সহকারে নিচ্ছে না। নগরবন গ্রামের বাসিন্দা ও চাঁদখানা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আইয়ুব আলী বলেন সাবেক এমপি শওকত চৌধুরীর সাথে ওই ঘাটে ব্রীজ নির্মানের জন্য আমি একাধিক বার যোগযোগ করেছি। প্রতিশ্রুতি দিয়েও তিনি তা রক্ষা করেননি।

উপজেলা প্রকৌশলী কেরামত আলী নান্নর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, মাছুপাড়া ঘাটে সয়েল টেষ্ট করা হয়েছে। বরাদ্দ পাওয়া পেলে নির্মান কাজ শুরু করা হবে।