Opu Hasnat

আজ ১৯ এপ্রিল শুক্রবার ২০১৯,

কামাল বারি’র তিনটি কবিতা শিল্প ও সাহিত্য

কামাল বারি’র তিনটি কবিতা

নীরব ভাষার অনুভূতিসমগ্র

কোথাও তুমি নেই - আমি নেই...
হৃদপিণ্ডবিহীন উঠে আসছি কখনও-বা...
অথচ, স্পন্দিত দিনে
আমি তোমার চোখে চোখ রাখতেই
তুমি কেঁপে কেঁপে উঠতে দারুণ...!

এখন তোমার পলল হৃদয়ে শুধুই আড়ষ্টতা!
আর শত কোলাহল পণ্ড করে যায়
আমাদের নীরব ভাষার অনুভূতিসমগ্র!

তোমার অভাবে আমি ব্যথায় ব্যথায়
কালশিটে ঠোঁট - উস্কো-খুস্কো কেশ-
শুষ্ক কণ্ঠনালি - অনিয়মক্লান্ত শরীরখণ্ড! 
ঠিক রক্তেভেজা মাংসপিণ্ডের মতো...; 
অথচ, তুমি যেন কিছুই বোঝো না! 
কিছুই বোঝো না! কিছুই বুঝতে চাও না!

প্রিয় বিদূষী, আমি তো জানি, তুমি সব বোঝো -
সব কিছুই বোঝো তুমি - তবে প্রকাশ করো না।

      ***************
 
পাখাগুলো একে একে ভেঙে গেছে মাছিদের

বিপুল ব্যর্থ ফুলে উজ্জ্বল হলো ধুলো;
গোপন কবিতার মতো ব্যর্থতাগুলো লুকানো হলো না;
গোপন প্রেম যেভাবে নিন্দার পাখায় দৃশ্যমান উড়ে উড়ে-
মিথ্যার হলুদে বিদ্ধ হতে হতে নীল ব্যথায় সুনীল;
সঙ্কট ঘন মেঘের মতো বিপর্যয়ের পণ্যসম্ভার
বিপনী বিতানে চমকায় দোলখায়;
নিয়ন বাতির নামফলকে জ্বলে নিন্দার নগ্ন আতস;

কী ভীষণ উড্ডীন আকাশে বাতাসে মিথ্যে ফানুস!
কতিপয় ভঙুর ভালোবাসা অগোচর কাঁটার মতো
খুঁচিয়ে খুঁচিয়ে রক্তারক্তি ঘটিয়ে যায়;

...কেউ কোথাও অপেক্ষায় থাকবে না নক্ষত্র-দিনের...;
অপেক্ষার অস্থির পাখাগুলো একে একে ভেঙে গেছে মাছিদের।

            ***************

চোতের বাতাসে

বসন্তের মিহি শিশির ছুঁয়ে দাঁড়িয়েছি ঘাসে;
সফেন জোছনায় রাত প্রমোদে ক্লান্ত শরীর;
চোতের বাতাসে উষ্ণতার উদার প্রহার;
টান টান মসৃণ ত্বকে সমগ্র গ্রহ পরিবার দাঁড়িয়ে;
সম্ভোগ ভ্রমণের আপন কক্ষপথে
সুনিবিড় হ'তে এরকম তেজ তাপিত ঋতু চাই;

রাতের পাতারা দারুণ খোলে আলো-আঁধারের
তাপানুকূলে; 
হাতের ইশারা পেলে খোলে আলগোছে-
অবিরাম খুলতে থাকে;
শত শত সহস্র পৃষ্ঠা খুলেও রাত কাবারি 
সঙ্গম হয় না শেষ; 
এরকম প্রলম্বিত রাত চাই-
স্পর্শিয়া গ্রাসের কাছে সবকিছু তুলে দিতে যাই।