Opu Hasnat

আজ ২৫ মে শুক্রবার ২০১৮,

জনশক্তি রফতানিতে ১ থেকে ২ লাখ টাকা নির্ধারণ করেছে বায়রা প্রবাস

জনশক্তি রফতানিতে ১ থেকে ২ লাখ টাকা নির্ধারণ করেছে বায়রা

মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে জনশক্তি রফতানিতে সর্বো”চ ১ লাখ ৮০ হাজার ৯৫০ টাকা এবং সর্বনিম্ন ৯৯ হাজার ২৫০ টাকা নির্ধারণ করেছে বাংলাদেশ জনশক্তি রফতানি সংস্থা (বায়রা)।

গত ৭ সেপ্টেম্বর প্রবাসি কল্যাণ এবং বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ে এ প্রস্তাবনা জমা দিয়েছে বায়রা। এছাড়াও জনপ্রতি সার্ভিস চার্জ হিসেবে আরও ১৫ হাজার টাকা নির্ধারণ করার প্রস্তাবও দেওয়া হয়েছে।

সর্বো”চ খরচ ১ লাখ ৮১ হাজার ৯৫০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে লিবিয়া যাওয়ার ক্ষেত্রে। এতে ভিসা সংগ্রহ ফি ৮০ হাজার টাকা, ভিসা ফি ১০ হাজার টাকা এবং বিমান ভাড়া ৬০ হাজার টাকা ধরা হয়েছে। বাকি খরচ ধরা হবে মেডিকেল এবং পাসপোর্টের ক্ষেত্রে।

সর্বনিম্ন খরচ ধরা হয়েছে কাতারের ক্ষেত্রে ৯৯ হাজার ২৫০ টাকা। এর মধ্যে ভিসা সংগ্রহ ফি ৪২ হাজার টাকা এবং বিমান ভাড়া ২৮ হাজার টাকা ধরা হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে বায়রার সভাপতি আবুল বাশার বলেন, ‘আমরা ইতোমধ্যে আমাদের প্রস্তাব মন্ত্রণালয়ে জমা দিয়েছি। তবে মন্ত্রণালয় এ ব্যাপারে আমাদের সাথে এখনও কোন যোগাযোগ করেনি।’

তবে কমিটির প্রধান এবং মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব আবদুর রউফ বলেন, ‘আমি এ বিষয়ে এখনও বায়রার কাছ থেকে কোন প্রস্তাবনা পাইনি।’

প্রবাসি কল্যাণ মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে ১৩ আগস্ট একটি কমিটি গঠন করে। এ কমিটিতে আছে দুইজন যুগ্ম সচিব, তিনজন উপ সচিব, জনশক্তি ব্যুরোর পরিচালক, আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার (আইএলও) একজন সদস্য এবং বায়রার সভাপতি।

বায়রার সভাপতি এ বিষয়ে বলেন, ‘মন্ত্রণালয় আমাদের প্রস্তাবনা বিবেচনা করে দেখছে। অনুমোদন দিলে এ বিষয়ে ঈদ-উল-আযহার পরে বৈঠকে বসা হবে।’

অভিবাসন খরচ নির্ধারণ করার পাশাপাশি যাতে কেউ অতিরিক্ত ফি নিতে না পারে সে বিষয়টিও মনিটরিং করবে কমিটি। এতে জনগণের ভোগান্তি কমবে বলে মনে করেন বায়রার সভাপতি।

তবে এটি দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর সর্বো”চ ফি। নেপাল থেকে মধ্যপ্রাচ্যে যেতে খরচ পড়ে ৬০ থেকে ৭০ হাজার এবং শ্রীলঙ্কা থেকে খরচ পড়ে ৩৫ থেকে ৫০ হাজার টাকা।

আবুল বাশার এ বিষয়ে বলেন, ‘দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশে বিমান ভাড়া সবচেয়ে বেশি।’

তিনি আরও বলেন, যেহেতু ঢাকার বাইরে বায়রার কোনও অফিস নেই তাই কেউ যাতে দালালদের দ্বারা প্রতারিত হয় সে বিষয়েও কঠোর নজর রাখবে বায়রা।