Opu Hasnat

আজ ১৮ জুলাই বৃহস্পতিবার ২০১৯,

ব্রেকিং নিউজ

পদ্মা সেতুতে বসলো নবম স্প্যান, দৃশ্যমান হলো ১৩৫০ মিটার! মুন্সিগঞ্জ

পদ্মা সেতুতে বসলো নবম স্প্যান, দৃশ্যমান হলো ১৩৫০ মিটার!

পদ্মা সেতুর পিলারে আরেকটি নতুন স্প্যান (সুপার স্ট্রাকচার) উঠলো। ‘৬-ডি’ স্প্যানটি সেতুর জাজিরা প্রান্তে অষ্টম স্প্যান ও সব মিলিয়ে সেতুর নবম স্প্যান। পদ্মা সেতুর ৩৪ ও ৩৫ নম্বর পিলারের ওপর বসলো নবম স্পেন। জাজিরা প্রান্তে এ স্প্যান '৬-ডি' বসানোর মাধ্যমে এই প্রান্তে দৃশ্যমান হলো সেতুর ১২০০ মিটার। আর মাওয়া প্রান্তের অস্থায়ী স্প্যানসহ সেতুর মোট দৃশ্যমান ১৩৫০ মিটার।

পদ্মা সেতুর সহকারী প্রকৌশলী হুমায়ুন কবির স্প্যান বসানোর খবর নিশ্চিত করে জানান, জাজিরা প্রান্তে সপ্তম স্প্যান বসানোর ঠিক এক মাস পেরোতেই বসলো এই স্প্যানটি। শুক্রবার (২২ মার্চ) সকাল ৯ টার দিকে পিলারের ওপর স্প্যান বসানো হয়। এর আগে বুধবার (২০ মার্চ) সকালে মুন্সীগঞ্জের মাওয়া কন্সট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে রওনা দিয়ে স্প্যানটি দুপুরে জাজিরা প্রান্তে কাক্ষিত পিলার এলাকায় আসে। 

সহকারী প্রকৌশলী হুমায়ুন কবির আরো বলেন, বৃহস্পতিবার সকালে স্প্যান বসানোর কথা থাকলেও খারাপ আবহাওয়ায় ক্রেনের নোঙর ছেঁড়ার কারণে স্প্যান বসাতে বিলম্ব হয়। অবশেষে একদিন পর শুক্রবার সকালে স্প্যান বসানো হলো।

তিনি জানান, স্প্যানের দৈর্ঘ্য ১৫০ মিটার আর ওজন তিন হাজার ১৪০ টন। তিন হাজার ৬০০ টন ধারণ ক্ষমতার ক্রেন ‘তিয়ান ই’ স্প্যানটি বহন করে আনে।  

স্প্যান বহনকারী ক্রেনটিকে ৩৪ ও ৩৫ নম্বর পিলারের পজিশন অনুযায়ী রাখা হয়। এরপর লিফটিং ক্রেনের সাহায্যে রাখা হয় পিলারের ওপর। পুরোপুরি স্থায়ীভাবে স্প্যান বসে যেতে সময় লাগবে আরও কয়েকদিন। আগের স্প্যানের মতো এটিকেও বর্তমানে অস্থায়ী বেয়ারিংয়ের ওপর রাখা হয়েছে। ওয়েল্ডিং করে সপ্তম স্প্যানের সঙ্গে জোড়া দেওয়া হবে।

জানা যায়, মাওয়া প্রান্তে পদ্মা সেতুর ৪ ও ৫ নম্বর পিলারের ওপর অস্থায়ীভাবে একটি স্প্যান রাখা হয়েছে। এই অস্থায়ী স্প্যানসহ পদ্মা সেতুতে মোট ৯ টি স্প্যান বসলো। 

সহকারি প্রকৌশলী হুমায়ুন কবির আরো জানান, কন্সট্রাকশন ইয়ার্ডে স্থান সংকুলান না হওয়ায় একটি স্প্যান ৪ ও ৫ নম্বর পিলারের ওপর রাখা আছে। এটি আসলে বসবে ৬ ও ৭ নম্বর পিলারের ওপর। ৬ ও ৭ নম্বর পিলারের কাজ সম্পূর্ণ হলে এ স্প্যানটি সরিয়ে নেওয়া হবে।

প্রসঙ্গত যে, ২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর বসানো হয় প্রথম স্প্যান। এর প্রায় ৪ মাস পর ২০১৮ সালের ২৮ জানুয়ারি দ্বিতীয় স্প্যানটি বসে। এর দেড় মাস পর ১১ মার্চ জাজিরা প্রান্তে তৃতীয় স্প্যান বসানো হয়। এর ২ মাস পর ১৩ মে বসে চতুর্থ স্প্যান। এরপর এক মাস ১৬ দিনের মাথায় পঞ্চম স্প্যানটি বসে ২৯ জুন। ৬ মাস ২৫ দিনের মাথায় ২৩ জানুয়ারি বসে ষষ্ঠ স্প্যানটি। আর গত ২০ ফেব্রুয়ারি ৩৫ ও ৩৬ নম্বর পিলারে বসে জাজিরা প্রান্তের সপ্তম স্প্যান। ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ এ সেতুতে ৪২টি পিলারের ওপর ৪১টি স্প্যান বসবে ।