Opu Hasnat

আজ ২৩ সেপ্টেম্বর সোমবার ২০১৯,

১০ম বাংলাদেশ ও ৩য় সানসো জাম্বুরীর মহা তাঁবুজলসা শিক্ষামন্ত্রী

স্কাউটরা সকল ধরনের নেতিবাচক কাজের বিরেুদ্ধে সোচ্চার : শিক্ষামন্ত্রী গাজীপুর

স্কাউটরা সকল ধরনের নেতিবাচক কাজের বিরেুদ্ধে সোচ্চার : শিক্ষামন্ত্রী

স্কাউটরা দুর্নীতি, সন্ত্রাস, মাদক, জঙ্গীবাদ, মৌলবাদ, ইভটিজিংসহ সকল ধরনের নেতিবাচক কাজের বিরুদ্ধে সোচ্চার থাকে। 

বুধবার (১৩ মার্চ) সন্ধ্যায় বাংলাদেশ স্কাউটসের ব্যবস্থাপনায় গাজীপুরের মৌচাকে অনুষ্ঠিত ১০ম বাংলাদেশ ও ৩য় সানসো স্কাউট জাম্বুরীর মহা তাঁবু জলসায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

এসময় মন্ত্রী বলেন, স্কাউটরা নারীর ক্ষমতায়নের পক্ষে, মানবাধিকারের পক্ষে। সহস্রাব্দের যে উন্নয়নের লক্ষ্যমাত্রা ছিলো সেটি আমরা অনেকটাই অর্জন করেছি। এখন আমাদের লক্ষ্য টেকসই উন্নয়ন (এসডিজি) সেটি সম্পর্কে তারা জানছে, একই সাথে সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট ভিলেজ সেটি সম্পর্কেও তারা জানছে। তারা তাদের প্রতিবেশী সম্পর্কে জানছে, প্রতিবেশীদের সঙ্গে কিভাবে সৌহার্দপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে তুলবে তা শিখছে। তারা বিভিন্ন ধর্মের মানুষের মধ্যে সৌহার্দপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে তুলতে শিখছে। তাদের সাধারন জ্ঞানের ভান্ডার সমৃদ্ধ হচ্ছে। তাদের মধ্যে নেতৃত্বের গুনাবলীর বিকাশ ঘটছে।

তিনি বলেন, আমি এখানে এসে অবিভূত। এই মিলনমেলা একটি অসাধারন ঘটনা। এই মহান কর্মযজ্ঞের মধ্য দিয়ে স্কাউটরা সাহসী, উদ্যোমী হয়, তাদের মধ্যে নেতৃত্বের গুনাবলীর বিকাশ ঘটে। তারা সময়ানুবর্তীতা শেখে শৃঙ্খলা শেখে। স্কাউটরাতো সব সময় জনসেবার সঙ্গে যুক্ত, সমাজ উন্ননের সঙ্গে যুক্ত, তারা বিভিন্ন দুর্যোগে পিড়িত মানুষের পাশে দাড়ায়, সহযোগিতা করে,  তাদের এই যে পরপোকারিতা এটিতো আমরা সবসময়ই দেখছি। এবং সারা বিশ্বব্যাপী এই স্কাউট আন্দোলনের এই গুণগুলো আমরা সবসময়ই দেখছি। তারা যে পরিশ্রমী ও খুব সৎ তাদের এই গুনাবলী আমাদের সবসময়ই আকৃষ্ট করে। এই ক’দিনের এই কর্মযোজ্ঞের মাধ্যমে তারা জ্ঞান অর্জন করছে, যেকোন পরিস্থিতিতে তারা নিজেকে খাপ খাইয়ে নিতে শিখছে, তারা দক্ষতা অর্জন করছে, তারা সাবলম্বী হয়ে উঠছে, তারা পরিবেশ সম্পর্কে সচেতন হচ্ছে, তারা নিজেদের মধ্যে নিজেরা সুস্থ প্রতিযোগিতা করছে।

এ সময় শিক্ষামন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর নামে মুল এরিনার নামকরন ও জাতীয় চার নেতার নামে ৪টি ভিলেজের নামকরন ও বিভিন্ন গুণীজনের নামে বিভিন্ন সাব ক্যাম্পের নামকরন করায় বাংলাদেশ স্কাউটস কতৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন এ থেকে এই জাম্বুরীতে অংশগ্রহনকারীরা এসব গুণীজন সম্পর্কে অনেক কিছু জানতে পেরেছে।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- বাংলাদেশ স্কাউটসের জাতীয় কমিশনার (সংগঠন) ও জাম্বুরী সাংগঠনিক কমিটির সভাপতি আখতারুজ জামান খান কবির, বিশেষ অতিথি রিজিওনাল ডাইরেক্টর মি. জোসে রিজেল সি. প্যাংগিলিন্যান, বাংলাদেশ স্কাউটসের সহ সভাপতি ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. সোহরাব হোসাইন, জাতীয় কমিশনার (প্রোগ্রাম) মোহাম্মদ আতিকুজ্জামন রিপন ও অনুষ্ঠানের সভাপতি বাংলাদেশ স্কাউটসের প্রধান জাতীয় কমিশনার ও জাম্বুরী চীফ ড. মো: মোজাম্মেল হক খান।

এই অনুষ্ঠানে মি. জোসে রিজেল সি. প্যাংগিলিন্যানকে বাংলাদেশ স্কাউটসের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ এ্যাওয়ার্ড রৌপ্য হিলসা তুলে দেন প্রধান অতিথি ডা: দীপু মনি, এমপি।

সবশেষে বাংলাদেশ, ভারত ও নেপালের স্কাউটদের অংশগ্রহনে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও আতশবাজী উপস্থিত সবাইকে মুগ্ধ করে।