Opu Hasnat

আজ ২৬ জুন বুধবার ২০১৯,

মহাকাশে যাচ্ছেন তিন ভারতীয় মহাকাশচারী আন্তর্জাতিক

মহাকাশে যাচ্ছেন তিন ভারতীয় মহাকাশচারী

ভারতের মহাকাশ গবেষণায় খুলে গেল নতুন দিক। মোদী মন্ত্রিসভার অনুমোদন পেল ‘গগনযান পরিকল্পনা।’ এই পরিকল্পনা বাস্তবায়িত হলে এ বার মহাকাশযানের মধ্যে মানুষও যাত্রা করবেন। ২০২২ সালের মধ্যেই এই পরিকল্পনা বাস্তবায়িত হবে বলে জানা গেছে।

এই মহাকাশযান পরিকল্পনার জন্য খরচ হবে ১০ হাজার কোটি টাকা। এই পরিকল্পনার মধ্যে তিনটি মহাকাশযান তৈরি করা হবে। দুটি মহাকাশযান তৈরি হবে, যা মানুষ ছাড়া মহাকাশে যেতে পারে। আর একটি মহাকাশযান তৈরি হবে, যা মানুষ নিয়ে মহাকাশে যাবে। মানুষ-সহ মহাকাশযানটির মধ্যে কেবলমাত্র তিন জন মহাকাশচারী যাত্রা করতে পারবেন।

এই পরিকল্পনা বাস্তবায়িত হলে ইসরোর সঙ্গে দেশ-বিদেশের অন্যান্য বিখ্যাত মকাশ গবেষণা সংস্থাগুলির যোগসূত্র গড়ে উঠবে। এর মাধ্যমে বিদেশি সংস্থাগুলি ভারতের মহাকাশ গবেষণার উপর আরও বেশি করে গুরুত্ব দেবে। এবং সেই সঙ্গে আরও বেশি পরিমাণ ছাত্র-ছাত্রীদের মহাকাশ গবেষণার প্রতি উৎসাহিত করবে। আর তার ফলে কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি হবে বলেই জানানো হয়েছে কেন্দ্রের তরফে।

এর প্রধান দায়িত্বে রয়েছে ভারতের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ইসরো। ইসরোর বিজ্ঞানীরাই মূলত মহাকাশযানগুলি বানাবেন। তবে এই পরিকল্পনা বাস্তবায়িত করার জন্য আরও অনেক সংস্থা ইসরোকে সাহায্য করবে। কাজ শুরু হওয়ার ৪০ মাসের মধ্যে মানুষ-সহ মহাকাশযান তৈরি ও তাতে করে যাত্রার সমস্ত ট্রেনিং দিয়ে দেওয়া সম্ভব হবে।

মহাকাশযাত্রা ছাড়াও এই পরিকল্পনার আরও বেশ কিছু লক্ষ্য রয়েছে। দেশের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির উন্নতির ক্ষেত্রে এই পরিকল্পনা প্রভাব ফেলবে। ওষুধ, কৃষি, দূষণ, বর্জ্য পদার্থ নিয়ন্ত্রণ, জল ও খাবারের যোগান, এসব বিষয়ে অনেক তথ্য সংগ্রহ করা যাবে বলেই বিজ্ঞানমহলের ধারণা। সেই সঙ্গে অন্যান্য উন্নত দেশগুলির সঙ্গে মহাকাশ গবেষণায় একটা যোগসূত্র স্থাপনের প্রথম পদক্ষেপ হলো এই গগনযান পরিকল্পনা।