Opu Hasnat

আজ ১৬ জুলাই মঙ্গলবার ২০১৯,

খাগড়াছড়িতে ব্রাশ ফায়ারে নিহত ২, ইউপিডিএফ’র প্রতিবাদ ও নিন্দা খাগড়াছড়ি

খাগড়াছড়িতে ব্রাশ ফায়ারে নিহত ২, ইউপিডিএফ’র প্রতিবাদ ও নিন্দা

খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার পানছড়ি উপজেলায় নির্বাচনী প্রচারনার সময় সন্ত্রাসী হামলায় ২ জন নিহত ও ইউপিডিএফ প্রার্থীর নির্বাচনী অফিস পুড়িয়ে দেয়ার ঘটনায় নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ)-এর খাগড়াছড়ি জেলা ইউনিটের ভারপ্রাপ্ত প্রধান সংগঠক উজ্জ্বল স্মৃতি চাকমা। সোমবার সংবাদ মাধ্যমে দেয়া এক বিবৃতিতে এ নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।

বিবৃতিতে তিনি অভিযোগ করে বলেন, সোমবার দুপুর ১২টার দিকে আওয়ামী লীগ প্রার্থী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরার লেলিয়ে দেওয়া সংস্কারবাদী পিসিজেএসএস-এর একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী পুজগাঙ বাজার এলাকায় সশস্ত্র হামলা চালায়। সন্ত্রাসীদের এলোপাতাড়ি ব্রাশফায়ারে ঘটনাস্থলে ২জন ব্যক্তি মারা যায়। এরা হলেন- পুজগাঙের লেন্দিয়া পাড়ার বাসিন্দা উজ্জ্বল চাকমা ওরফে চিক্কো (৩১) ও হাটহাজারী এলাকার বাসিন্দা রাস্তায় ঢালাই কাজে নিয়োজিত শ্রমিক মো: সোহেল রানা (২৬)। 

এরপর সন্ত্রাসীরা ব্রাশ ফায়ার করতে করতে ইউপিডিএফ সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী নুতন কুমার চাকমার নির্বাচনী অফিসে গিয়ে হামলা চালায় এবং অফিসটি আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়।

বিবৃতিতে তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, সোমবার সন্ত্রাসীরা খাগড়াছড়ি সদরস্থ ভাইবোনছড়া ইউপি’র মনিগ্রামে স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকদের ঘরবাড়ি ভাংচুর করে ছাড়খার করে দেয়ার পরও প্রশাসন সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় তারা আরো বেপরোয়া হয়ে আজ এই হত্যাকান্ড সংঘটিত করার সাহস পেয়েছে। তাই প্রশাসন কিছুতেই এই হত্যাকান্ডের দায় এড়াতে পারে না।

বিবৃতিতে ইউপিডিএফ নেতা উদ্বেগ প্রকাশ করে আরো বলেন, আওয়ামী লীগ সারাদেশের ন্যায় পার্বত্য চট্টগ্রামেও ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করার লক্ষ্যে সংস্কারবাদী পিসিজেএসএস সন্ত্রাসীদের মোটা অংকের টাকা দিয়ে ভাড়া করেছে। তাদেরকে দিয়ে হামলা, খুন, গুম, অপহরণসহ নানা সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালিয়ে জনমনে ভীতি সঞ্চার করে নির্বাচনে প্রভাব বিস্তার ও মানুষের ভোটাধিকার কেড়ে নেয়ার অপচেষ্টা চালাচ্ছে।

বিবৃতিতে তিনি খুনী-সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে রুখে দাঁড়ানোর জন্য এলাকার সর্বস্তরের জনগণের প্রতি আহ্বান জানান। ইউপিডিএফ নেতা অবলিম্বে পুজগাঙে হত্যাকান্ড ও নির্বাচনী অফিস পুড়িয়ে দেয়ার সাথে জড়িত সংস্কারবাদী পিসিজেএসএস সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারপূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদান এবং নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ নিশ্চিত করার জোর দাবি জানান। ইউপিডিএফ’র প্রচার ও প্রকাশনা বিভাগের নিরন চাকমা স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

ঘটনার বিবরনে স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সোমবার দুপুর ১২টার দিকে ১০/১৫জন পাহাড়ি সশ্রস্ত্র গ্রুপ পুজগাং বাজারে এলোপাথারি গুলি ছুড়ে। এ সময় এক বাঙালি নির্মাণ শ্রমিকসহ দুই ব্যক্তি নিহত হয়। ঘটনার পর পুজগাং বাজারটি বন্ধ হয়ে গেছে।

তবে নৌকা মার্কা প্রার্থী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরার প্রধান এজেন্ট খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ালীগের সহ-সভাপতি রনবিক্রম ত্রিপুরা বলেন, এ ঘটনার আওয়ামীলীগ জড়িত নয় কারন আওয়ামীলীগ শান্তিকামী জাতীয় দল। এটি আঞ্চলিক দুই দলের কোন্দল ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে হত্যাকান্ড ঘটনা ঘটেছে। 

পানছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: নুরে আলম জানান, উপজেলর পুজগাং বাজারে সন্ত্রাসীদের ব্রাশ ফায়ারে এক বাঙালি শ্রমিকসহ দুই জন ব্যক্তি নিহত হয়েছে। সোমবার দুপুর ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে। পরে খাগড়াছড়ি জেলা সদর আধুনিক হাসপাতালে ময়না তদন্তের সম্পন্ন করার পর মংগলবার লাশটি পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। 

খাগড়াছড়ি সদর সর্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এমএম সালাউদ্দিন জানান সোমবার দুপুর সাড়ে বারোটার দিকে পিসিজেএসএস সংস্কার গ্রুপের সন্ত্রাসীরা ব্রাশ ফায়ার করলে ইউপিডিএফ এর কর্মী উজ্জল বিকাশ চাকমা ওরফে চিক্কু চাকমা(২৫) এবং সোহেল রানা (৩২) ঘটনাস্থলেই নিহত হয়। দুইজনেই ইউপিডিএফ এর কালেক্টর বলে জানা গেছে। চিক্কু চাকমা পুজগাং লেন্দিয়াপাড়া এলাকার রত্ন কান্তি চাকমার ছেলে এবং সোহেল রানা চট্টগ্রামে দোহাজারী এলাকার মো: আবদুল মান্নানের ছেলে। লাশ উদ্ধারের জন্য পুলিশ ও সেনাবাহিনীর সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার ময়না তদন্ত সম্পন্ন করেছে।

এদিকে ইউপিডিএফ (প্রসিত) গ্রুপের কেন্দ্রীয় নেতা মাইকেল চাকমা এ ঘটনার জন্য পিসিজেএসএস(এমএন/সংস্কার) গ্রুপকে দায়ী করে বলেন, এ সময় সন্ত্রাসীরা ইউপিডিএফ সমর্থিত প্রার্থী নতুন কুমার চাকমার নির্বাচনী অফিসও জ্বালিয়ে দেয়। তবে অভিযোগ অস্বীকার করে পিসিজেএসএস(এমএন/সংসাকার) গ্রুপের কেন্দ্রীয় তথ্য ও প্রচার সম্পাদক সুধাকর ত্রিপুরা বলেন, এলাকাটি ইউপিডিএফ(প্রসিত) গ্রুপ অধ্যুষিত। এখানে অন্য কোন সংগঠনের কার্যক্রম নেই।

অপরদিকে খাগড়াছড়ি সদর উপজেলার ভাইবোনছড়া ইউনিয়নের মুনিগ্রামে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে খাগড়াছড়ি আসনের ইউপিডিএফ সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী (সিংহ প্রতীক) নুতন কুমার চাকমার সমর্থকদের বাড়িঘরে আওয়ামী লীগ সমর্থিত পিসিজেএসএস (সংস্কারবাদী) সন্ত্রাসী কর্তৃক হামলা-ভাংচুরের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ)। গত ২৩শে ডিসেম্বর ২০১৮, রোববার সংবাদ মাধ্যমে প্রদত্ত এক বিবৃতিতে ইউপিডিএফ-এর খাগড়াছড়ি জেলা ইউনিটের ভারপ্রাপ্ত প্রধান সংগঠক উজ্জ্বল স্মৃতি চাকমা এ নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। 

বিবৃতিতে তিনি অভিযোগ করে বলেন, রোববার (২৩ ডিসেম্বর) দুপুর ১.৩০টা/২.০০টার দিকে দীপন আলো ও বিধান চাকমার নেতৃত্বে ভাইবোনছড়া ইউপি’র দেওয়ান পাড়া থেকে আওয়ামী লীগ সমর্থিত পিসিজেএসএস (সংস্কারবাদী)-এর ১০-১২ জনের একটি সশস্ত্র দল মুনিগ্রামে গিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থক ও ইউপিডিএফ সংগঠক অনি বিকাশ চাকমা, পল্লব জ্যোতি চাকমা এবং ঐ গ্রামের মুরুব্বী মঙ্গল চাকমার বাড়িতে হামলা চালায় এবং বাড়ি ও বাড়ির জিনিসপত্র ভেঙে দেয়। এর মধ্যে অনি বিকাশ চাকমার বাড়ি ও বাড়ির সকল জিনিস পত্র সম্প‚র্ণ ভেঙে চুরমার করে দেয় সন্ত্রাসীরা। তারা মঙ্গল চাকমার বাড়ির জিনিসপত্র ভাংচুর ও তার কলেজ পড়ুয়া ছেলে দেবাশীষ চাকমার বইপত্র পুড়িয়ে দেয়। এছাড়া সন্ত্রাসীরা অনি বিকাশের পিতা তড়িৎ কান্তি চাকমা (৬৭)-এর বাড়ির জিনিস পত্রও (হাড়ি-পাতিল) ভেঙে তছনছ করে দেয়।

এছাড়াও সন্ত্রাসীরা সশস্ত্র অবস্থায় প্রকাশ্যে খাগড়াছড়ি-পানছড়ি রাস্তায় বের হয়ে মুনিগ্রাম এলাকায় টাঙানো স্বতন্ত্র প্রার্থীর সিংহ প্রতীকের পোস্টার ছিঁড়ে পুড়িয়ে দিয়েছে এবং ‘নৌকা মার্কায় ভোট না দিলে অসুবিধা হবে’ বলে লোকজনকে হুমকি দিয়েছে।

আওয়ামী লীগ প্রার্থীর ইন্ধনে চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা এ হামলা-ভাংচুর চালিয়েছে অভিযোগ করে ইউপিডিএফ নেতা বলেন, এলাকার চিহ্নিত খুনী-সন্ত্রাসীদের ব্যবহার করে আওয়ামীলীগ আসন্ন নির্বাচনে এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করার চেষ্টা করছে এবং মানুষের ভোটাধিকার কেড়ে নিতে চাচ্ছে। তিনি সন্ত্রাসীদের সকল অপকর্মের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে রুখে দাঁড়ানোর জন্য এলাকার জনগণের প্রতি আহ্বান জানান।

বিবৃতিতে ইউপিডিএফ নেতা অবিলম্বে উক্ত হামলা-ভাংচুরের ঘটনায় জড়িত সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার এবং সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের পরিবেশ সুনিশ্চিত করার জন্য প্রশাসন ও নির্বাচন কমিশনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। ইউপিডিএফ’র প্রচার ও প্রকাশনা বিভাগের নিরন চাকমা স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

অন্যদিকে ৩০শে ডিসেম্বর ২০১৮ অনুষ্ঠেয় একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ২৯৯ পার্বত্য রাঙ্গামাটি আসনে সিংহ প্রতীকে স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য পদ প্রার্থী ঊষাতন তালুকদার তাঁর নির্বাচনী প্রচারের অংশ হিসেবে গত২৩ ও ২৪ ডিসেম্বর বাঘাইছড়ি উপজেলায় প্রচার কার্য চালিয়ে থাকেন। সে সময় বঙ্গলতলী ইউনিয়ন, রূপাকারী ইউনিয়নও কয়েকটি এলাকায় নির্বাচনী প্রচার সমাবেশ ও পথসভা আয়োজন করা হয়। কিন্তু উক্ত জনসভা ও পথসভায় অংশ গ্রহণনা করার জন্য এবং নির্দেশ অমান্য করে কেউ অংশ গ্রহণ করলে তাকে মৃত্যুর হুমকি দিয়ে মোবাইল নম্বর ০১৮৭৭৫০১১৩৩, ০১৮৮২০৯৫৮৭৫, ০১৮৬৯৪৭৩৭৩৩, ০১৮৬৭৬৪২৭০৮, ০১৮২৭৭২৩০৫৬, ০১৮৬৪৫৪৯৫৯৯, ০১৮৬৪৯১৫২০০, ০১৮২০৭৪৩৮৩৭, ০১৫৫৩১৪৪১৫১, ০১৮২০৩৬৫০৫৬, ০১৮৬১১৮৪৪৭৩ ইত্যাদি নম্বর থেকে সংস্কারপন্থীখ্যাত সন্ত্রাসীরা স্থানীয় জনগণকে ফোন করে। স্বতন্ত্র প্রার্থী ঊষাতন তালুকদারের সিংহ মার্কায় ভোট দিলে মৃত্যুর হুমকি দেয়া হচ্ছে বলে জানা গেছে। এতে এলাকার জনমনে চরম ভীতি ও আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। এ ধরনের হুমকি নির্বাচন আচরন বিধির সরাসরি লঙ্ঘন এবং সুষ্ঠু, ভয়ভীতি মুক্ত, নিরপেক্ষ ও অবাধ নির্বাচন অনুষ্ঠানের ক্ষেত্রে হুমকি বলে বিবেচনা করা যায়। এমতাবস্থায় সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচন পরিচালনার স্বার্থে এবং ভোটারদের যথাযথ নিরাপত্তা বিধানের জন্য বাঘাইছড়ি উপজেলার সহকারী রিটার্নিং অফিসারের নিকট লিখিত ভাবে আপত্তি জানানো হয়েছে। কিন্তু তা সত্তে¡ও এখনো কোন কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি। ২৯৯ নংপার্বত্য রাঙ্গামাটি আসন,একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন স্বতন্ত্র প্রার্থী (সিংহমার্কা) ঊষাতন তালুকদারের বাঘাইছড়ি উপজেলার নির্বাচনী প্রতিনিধি ত্রিদিব চাকমা স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।