Opu Hasnat

আজ ১২ ডিসেম্বর বুধবার ২০১৮,

স্বস্তিতে বাংলাদেশের প্রথম দিন শেষ খেলাধুলা

স্বস্তিতে বাংলাদেশের প্রথম দিন শেষ

স্পেশালিষ্ট পেশার, ওপেনে অভিষিক্ত সাদমান ইসলাম, মুশফিকুর রহিমের সম্পুর্ণ ফিট না হয়েই খেলতে রাজি হওয়া, এমন সব অস্বস্তি নিয়ে ঢাকা টেস্টের শুরু বাংলাদেশের। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ঢাকা টেস্টের প্রথম দিন শুরুর দিকে বিপদে পড়ে গেলেও পড়ে স্বস্তিতেই মাঠ ছেড়েছে বাংলাদেশ। সাকিব, মাহমুদউল্লাহ, সাদমানের ব্যাটিংয়ে ভর করে ৫ উইকেটে ২৫৯ রান সংগ্রহ করে মাঠ ছেড়েছে টাইগাররা।  

ঢাকা টেস্টে শুরুর দিনে হাফ সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছেন দুই জন। এর মধ্যে অভিষেকেই হাফ সেঞ্চুরি করেছেন সাদমান ইসলাম। বাকি  হাফ সেঞ্চুরিয়ান সাকিব আল হাসান। 

অভিষেকে বাজিমাত করা সাদমান করেছেন ৭৬ রান। ১৪৭ বল খেলে হাফ সেঞ্চুরি করা সাদমানকে ফিরিয়ে দেন বেদেন্দ্র বিশু। না হলে হয়তো সেঞ্চুরির দেখাই পেয়েই যেতেন তিনি।   

বিশ্বেসেরা অলরাউরাউন্ডার সাকিব আল হাসান এ দিন তাঁর ক্যারিয়ারে ২৪তম হাফ সেঞ্চুরি করেছেন। ১১৩ বল খেলে ৫৫ রান করে  অপরাজিত আছেন তিনি। অন্যদিকে  মাহমুদউল্লাহরও ৫৯ বল খেলে ৩১ রানে অপরাজিত আছেন। 

সাদমান-সৌম্য’র উদ্ধোধনী জুটি যখন ভালোই চলছিল তখন বিচ্ছেদ ঘটে সৌম্য’র । ১৬ তম ওভারে রস্টোন চেজের বলে আউট হন তিনি। উদ্বোধনী জুটি যখন থামে তখন বাংলাদেশের রান ৪২। সৌম্য ব্যক্তিগত ১৯ রানে আউট হন। 

বাংলাদেশ টেস্ট ক্রিকেটে ভরসার নাম মুমিনুল হক ৪৬ বলে করেন ২৯ রান। রোচের বলে চেজের হাতে তালুবন্দি হন তিনি। 

মুমিনুলের যাওয়ার পর মাঠে নামেন মোহাম্মদ মিঠুন। তিনি সাদমানকে ভালো সঙ্গই দেন। দুজনে মিলে গড়ে তুলেন ৬৪ রানের জুটি। কিন্তু বাংলা সিনেমা ‘ভয়ংকর বিশু’র মতো ভয়ংকর রুপেই আবির্ভূত হন ক্যারিবীয় বোলার বিশু। একে একে দুজনকেই ফিরিয়ে দেন তিনি। মিঠুন আউট হন ব্যক্তিগত ২৯ রানের মাথায়। তখন বাংলাদেশর স্কোর ৪ উইকেটে ১৬১ রান।

মিঠুন চলে যাওয়ার পর সাদমানকে সঙ্গ দিতে আসেন সাকিব। বিশুর বলে সাদমা চলে গেলে সাকিবকে সঙ্গ দিতে মাঠে নামেন মুশফিক। কিন্তু তেমন ভালো করতে পারেন নি ‘মিস্টার ডিপেন্ডেবল’। শেরমন লুইসের বলে মাত্র ১৪ রানেই বোল্ড হন মুশফিকুর রহীম। মুশফিক আউট হওয়ার সময় দলীয় সংগ্রহ ৫ উইকেট ১৯০।

এরপর মাহমুদউল্লাহ মাঠে নামলে কাউকেই আর নতুন করে সাজঘরে ফিরে যেতে হয়নি। সাকিব-মাহমুদউল্লাহ মিলে দলকে টেনে নিয়ে এসেছেন ২৫৯ রানে। 

সংক্ষিপ্ত স্কোর :

বাংলাদেশ ১ম ইনিংস: ৯০ ওভারে ২৫৯/৫ (সাদমান ৭৬, সৌম্য ১৯, মুমিনুল ২৯, মিঠুন ২৯, সাকিব ৫৫*, মুশফিক ১৪, মাহমুদউল্লাহ ৩১*; রোচ ১৫-১-৩৮-১, লুইস ১২-১-৩৫-১, চেইস ২১-০-৬১-১, ওয়ারিক্যান ১৯-২-৪৬-০, বিশু ১৯-১-৬৯-২, ব্র্যাথওয়েট ৪-০-৮-০)।