Opu Hasnat

আজ ১২ ডিসেম্বর বুধবার ২০১৮,

ঋণ দিতে ব্যাংকগুলোকে সতর্ক থাকতে গভর্নরের নির্দেশ অর্থ-বাণিজ্য

ঋণ দিতে ব্যাংকগুলোকে সতর্ক থাকতে গভর্নরের নির্দেশ

ঋণ বিতরণের ক্ষেত্রে ব্যাংকগুলোকে সতর্ক থাকার নির্দেশ দিয়েছেন গভর্নর ফজলে কবির। শনিবার (২৪ নভেম্বর) রাজধানীর অফিসার্স ক্লাবে আল-আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংকের (এআইবিএল) শিক্ষাবৃত্তি কার্যক্রমের উদ্বোধন ও বৃত্তিপ্রাপ্তদের সনদ প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।


ব্যাংকের চেয়ারম্যান আলহাজ আব্দুস সামাদ লাবু অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। স্বাগত বক্তব্য দেন ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং সিইও ফরমান আর চৌধুরী।

গভর্নর বলেন, ঋণ বিতরণের ক্ষেত্রে ব্যাংকগুলোকে যথাযথ নিয়ম অনুসরণ করতে হবে। ঋণ যে খাতে বিতরণ করা হচ্ছে তা যথাযথ ব্যবহার হচ্ছে কি-না তা নিশ্চিতে তদারকি করার পরামর্শ দেন তিনি।

বর্তমানে ব্যাংকিং খাতে তারল্য সংকট নেই উল্লেখ করে গভর্নর বলেন, এখন ব্যাংকিং খাত সন্তোষজনক অবস্থায় রয়েছে। এখন আমরা উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হয়েছি। এসডিজির স্বীকৃতি পেতে আরও ছয় বছর লাগবে। এজন্য আমাদের ব্যাংকিং খাতে গতানুগতিক ধারা থেকে বেরিয়ে পরিবর্তন আনতে হবে। এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের বিস্তারসহ বিভিন্ন নতুন পণ্য ও ধারণা আনতে হবে।

আল-আরাফাহ্ ব্যাংকের আর্থিক অবস্থা ভালো উল্লেখ করে গভর্নর বলেন, তাদের খেলাপি ঋণ মোট ঋণের ৫ শতাংশের মতো। এটি ভালো দিক। এছাড়া এজেন্ট ব্যাংকিংয়ে তাদের অগ্রগতি রয়েছে। তবে ব্যাংকটির ঋণ ও আমানতের রেশিও এডিআর কিছুটা ভারসাম্যহীন রয়েছে।

ফজলে কবির বলেন, শিক্ষা ও জনকল্যাণে বর্তমান সরকার দীর্ঘমেয়াদি ও টেকসই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করছে। প্রান্তিক পর্যায়ে শিক্ষার সুযোগ ও জীবনধারার মান উন্নয়ন করা সরকারের এককভাবে সম্পন্ন করা সম্ভব নয়। তাই শিক্ষার গুণগত মান বৃদ্ধিতে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে এগিয়ে আসার পরামর্শ দেন তিনি।

একই সঙ্গে শিক্ষার্থীদের মেরিট ও ট্যালেন্টপুল বৃত্তি প্রদানের আহ্বান জানান গভর্নন।

ব্যাংকের চেয়ারম্যান আব্দুস সামাদ লাবু বলেন, এআইবিএল নিয়মিত বিভিন্ন সেবামূলক কর্মকাণ্ড পালন করে আসছে। এর ধারাবাহিকতায় শিক্ষাবৃত্তি কর্মসূচি। ব্যাংকের পক্ষ থেকে ভবিষ্যতে এ ধরনের কার্যক্রম অব্যাহত রাখার আশ্বাস দেন তিনি।

ব্যাংকের পক্ষ থেকে জানানো হয়, কর্পোরেট সামাজিক দায়বদ্ধতা (সিএসআর) কার্যক্রমের আওতায় প্রতিবছর ৮০০ মেধাবী শিক্ষার্থীকে চার কোটি টাকার শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করবে এআইবিএল। এরই অংশ হিসেবে ২০১৮ সালের এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ২০০ শিক্ষার্থীকে বৃত্তি দেয়া হয়।

২০১৮ সালের উচ্চ মাধ্যমিক ও সমমান পাস শিক্ষার্থীদের স্নাতক পর্যায়ে আগামী চার বছরের জন্য এ বৃত্তি দেয়া হবে। বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা প্রত্যেকে মাসিক তিন হাজার টাকা ও প্রতিবছর এককালীন আট হাজার টাকা করে পাবেন।

বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ মো. আব্দুস সালাম, পর্ষদীয় নির্বাহী কমিটির চেয়ারম্যান আলহাজ হাফেজ মো. এনায়েত উল্লা, পর্ষদীয় ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা কমিটির চেয়ারম্যান আলহাজ মো. লিয়াকত আলী চৌধুরী, পর্ষদীয় অডিট কমিটির চেয়ারম্যান মো. আমির উদ্দিন পিপিএম, পর্ষদ সদস্য আলহাজ আব্দুল মালেক মোল্লা, আলহাজ মো. হারুন-অর-রশীদ খাঁন, আলহাজ মো. আনোয়ার হোসেন, বদিউর রহমান, আলহাজ ইঞ্জি. খন্দকার মেসবাহ উদ্দিন আহমেদ, আলহাজ আহামেদুল হক, আলহাজ নিয়াজ আহমেদ, ড. মো. শফিউল হায়দার চৌধুরী, আলহাজ আনোয়ার হোসেন, এম কামাল উদ্দিন চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।