Opu Hasnat

আজ ২২ নভেম্বর বৃহস্পতিবার ২০১৮,

চট্টগ্রামের পতেঙ্গা সৈকতে প্রতিমা বিসর্জন সম্পন্ন চট্টগ্রাম

চট্টগ্রামের পতেঙ্গা সৈকতে প্রতিমা বিসর্জন সম্পন্ন

সনাতন সম্প্রদায়ের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় উৎসব দুর্গাপূজা।  বিজয়া দশমীর আনুষ্ঠানিকতা শেষে শুক্রবার  দুপুর ১টা থেকে পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকতে দুর্গা প্রতিমা বিসর্জন শুরু হয়ে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার মধ্যে সম্পন্ন হয়। পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে  প্রতিমা বিসর্জন কার্যক্রম উদ্বোধন করেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ আ জ ম নাছির উদ্দিন।  কর্ণফুলী নদীর নেভাল-২ ঘাট, কালুরঘাট ও কাট্টলী বিচে বেশ কিছু প্রতিমা বিসর্জন  করা হয়। দুর্গা প্রতিমা নিরঞ্জন উপলক্ষে পুরো চট্টগ্রাম নগরীকে নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে ফেলে প্রশাসন। বাদ্য বাজনার তালে তালে মাথায় ও কপালে  তেল-সিঁদুর পরিয়ে, মুখে মিষ্টি আর পান খাইয়ে দিয়ে মা দুর্গাকে বিদায় জানাতে পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকত লাখো পুণ্যার্থীর ঢল নামে। ট্রাকে করে   প্রতিমা নিয়ে ধর্মীয় গান বাজিয়ে ও স্লোগান দিয়ে পূণ্যার্থীরা সমুদ্রে নেমে মা দুর্গাকে বিসর্জন দেন। 

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ চট্টগ্রাম মহানগরীর সভাপতি এডভেকেট চন্দন তালুকদার ও সাধারণ সম্পাদক শ্রীপ্রকাশ দাশ অসিত জানান, ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও উৎসবমুখর পরিবেশে  পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকতে দুর্গা প্রতিমা বিসর্জন করা হয়। নগরীর  বিভিন্ন পূজা মন্ডপ থেকে সংশ্লিষ্ট পূজা উদযাপন পরিষদের ব্যানারে বিভিন্ন  ট্রাকবাহী প্রতিমা নিয়ে এসে পূণ্যার্থীরা একের পর এক প্রতিমা বিসর্জন দেন। প্রশাসনের কঠোর নিরাপত্তা ও শৃঙ্খলার মধ্য দিয়ে  সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে প্রতিমা বিসর্জন সম্পন্ন হয়।  

চট্টগ্রাম সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্র কৌশিক শীল জয় পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকতের প্রতিমা বিসর্জন স্থলে গিয়ে বলেন, অত্যন্ত সুষ্ঠু ও শান্তিপুর্ণ পরিবেশে দুর্গা প্রতিমা বিসর্জন চলছে। দুর্গা পূজা চলাকালীন সময়ে চট্টগ্রাম নগরী ও জেলার কোথাও কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। সনাতন সম্প্রদায়ের লোকজনের পাশাপাশি সকল ধর্মের লোক  পূজামন্ডপ দেখতে গেছেন। হিন্দুদের পাশাপাশি সকল সম্প্রদায়ের লোকের উপস্থিতিতে প্রতিমা বিসর্জন স্থল পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকতে বসেছে মিলনমেলা। দক্ষিণ আগ্রাবাদ পূজা উদযাপন পরিষদের  (ছোটপুল) কর্মকর্তা ডা. সুভাষ চন্দ্র শীল দুর্গাপূজা ও প্রতিমা নিরঞ্জন বিষয়ে একই মন্তব্য করেছেন।

পতেঙ্গা থানার  ওসি উৎপল বড়ুয়া জানান, প্রতিমা বিসর্জনের জন্য নগরীর ৪১ ওয়ার্ড ও জেলার বিভিন্ন পূজা মন্ডপ থেকে ট্রাক নিয়ে পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকতে পূণ্যার্থীরা এসে সুষ্ঠুভাবে প্রতিমা বিসর্জন   দিয়ে চলে যান। 

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ চট্টগ্রাম জেলা শাখার  সভাপতি শ্যামল পালিত জানান , পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকত ছাড়াও নগরীল কাট্টলী সৈকত, কালুরঘাট, সদরঘাট বাঁশঘাটা, ফিরিঙ্গিবাজার, পারকি সমুদ্র সৈকতসহ বড়পুকুর, দীঘি, খাল ও নদীতে মা দেবী দুর্গার প্রতিমা বিসর্জন দেওয়া হয়। এ বছর চট্টগ্রাম জেলার ১৫টি উপজেলায় ১ হাজার ৮২৫টি এবং মহানগরীর ২৫৫টি পূজামন্ডপে দুর্গোৎসব উদযাপিত হয়।