Opu Hasnat

আজ ১৯ নভেম্বর সোমবার ২০১৮,

নতুন নতুন উদ্ভাবনকে কাজে লাগিয়ে মানুষকে হয়রানিমুক্ত সেবা দিতে হবে চট্টগ্রাম

নতুন নতুন উদ্ভাবনকে কাজে লাগিয়ে মানুষকে হয়রানিমুক্ত সেবা দিতে হবে

চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মোঃ আবদুল মান্নান বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসার পর সরকারি সেবা জনগণের দৌড়গোড়ায় পৌঁছে দিতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। সবচেয়ে কম সময়ে, কম খরচে ও ভোগান্তি ছাড়াই কিভাবে মানুষকে সেবা দেয়া যায় সে ধরনের একটি সেবা চিহ্নিত করতে হবে। ভালো কিছু করার জন্য সময়োপযোগী আইডিয়া
প্রয়োজন। জনকল্যাণে নিজেদেরকে নিয়োজিত রেখে নতুন নতুন উদ্ভাবনকে কাজে লাগিয়ে মানুষকে হয়রানিমুক্ত সেবা দিতে হবে। আমরা প্রজাতন্ত্রের কর্মচারী। জনগণের ট্যাক্সের পয়সায় আমাদের বেতন হয়।

প্রজাতন্ত্রের কর্মচারী হয়ে আমরা জনগণকে কতটা সততা, সফলতরও আন্তরিকতার সাথে দুর্নীতিমুক্ত সেবা দিতে পারবো তা বিবেচনায় রাখতে হবে। সেবার জন্য এমন কিছু নতুন আইডিয়া দরকার যে আইডিয়াগুলো জনবান্ধবমুখী হয়। সরকারের প্রত্যেক দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা জবাবদিহিতার মধ্যে থেকে আন্তরিকভাবে কাজ করলে আগামী ২০২১ সালের আগেই এদেশ মধ্যম আয়ের ও ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত বাংলাদেশ বিনির্মাণ সম্ভব হবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জনসেবার জন্য গত ২০১৫ সাল থেকে ‘জনপ্রশাসন পদক’ দিচ্ছেন। সেবার জন্য জেলা প্রশাসক থেকে শুরু করে কর্মচারীরা পর্যন্ত এ পদক পাচ্ছেন। এ ধারা অব্যাহত রাখতে হলে প্রত্যেককে সেবার মনমানসিকতা নিয়ে কাজ করতে হবে।

বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজে বিভাগীয় কমিশনার অফিস আয়োজিত “উদ্ভাবনীমূলক প্রকল্প ডিজাইন” ফলোআপ শীর্ষক প্রশিক্ষণ কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। 

অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) মো. নুরুল আলম নিজামীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মশালায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন তথ্য প্রযুক্তি বিভাগ এটুআই প্রোগ্রামের ইনোভেশন ট্রেনিং স্পেশালিস্ট মুনিরা সুলতানা (উপ-সচিব)। কর্মশালায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিভাগীয় পরিচালক (স্থানীয় সরকার) দীপক চক্রবর্তী, চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইলিয়াস হোসেন, পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক মোয়াজ্জেম হোসেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. দেলোয়ার হোসেন, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. মাশহুদুল কবির। 

কর্মশালায় চট্টগ্রাম বিভাগের ১১ জেলার বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের ৩০ জন কর্মকর্তা অংশ নেন।

এই বিভাগের অন্যান্য খবর