Opu Hasnat

আজ ১৯ ডিসেম্বর বুধবার ২০১৮,

কুবির বাসে হামলা মহাসড়ক অবরোধ কুমিল্লা

কুবির বাসে হামলা মহাসড়ক অবরোধ

শিক্ষার্থীদের বাসে হামলার ঘটনা ঘটেছে। এর প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার রাত ৮টা থেকে প্রায় দুই ঘণ্টা ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের বেলতলী এলাকায় সড়ক অবরোধ করে বিচারের দাবি করেন বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা। পরে পুলিশ ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের আশ্বাসে রাত সাড়ে ১০টার দিকে অবরোধ তুলে নেন শিক্ষার্থীরা।


এরআগে বৃহস্পতিবার বিকেলে শিক্ষার্থীদের নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শহরের উদ্দেশে ছেড়ে যাওয়া বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন সংস্থার (বিআরটিসি) ভাড়া করা একটি বাস ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজের গেটে পৌঁছালে হঠাৎ সামনের দিক থেকে আসা একটি মোটরসাইকেল বাসের গতিরোধ করে। এ সময় মোটরসাইকেলে থাকা দু’তিন জন বাস ড্রাইভার আলাউদ্দিনের উপর চড়াও হন এবং তাকে বাস থেকে নামিয়ে মারধর করেন।


এ সময় বাসচালককে সন্ত্রাসী হামলা থেকে বাঁচাতে গিয়ে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে গুরুতর আহত হন গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের ১০ম ব্যাচের শিক্ষার্থী দ্বীন মোহাম্মদ।
আহত দ্বীন মোহাম্মদ জানায়, তারা বাস চালককে মারতে এলে আমি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র পরিচয় দিয়ে বোঝানোর চেষ্টা করি কিন্তু কিছু বোঝার আগেই তারা দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আামার উপর হামলা করে এবং চালককে বাঁচাতে গিয়ে শরীরের বেশ কয়েক জায়গায় ধারালো অস্ত্রের আঘাত লাগে। ভিক্টোরিয়া কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সদস্য আশিকের নেতৃত্বে এই হামলা চালানো হয় বলে ঘটনাস্থলে উপস্থিত শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করেন।


তবে আশিক নিজে হামলা করার বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, আমার কলেজের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে ঝগড়া হলে তারা মারধর করে। তখন ঘটনা শুনে আমি সেখানে যাই এবং থামানোর চেষ্টা করি। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড.কাজী মোহাম্মাদ কামাল উদ্দীন বলেন, ঘটনা জানতে পেরে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করেছি।  বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে মামলা করা হয়েছে।


শুক্রবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা কর্মকর্তা সাদেক হোসেন মজুমদার বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা ১০ থেকে ১৫ জনকে আসামি করে কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলাটি করেন। এ বিষয়ে কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুস সালাম মিয়া জানান, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে একটি মামলা করা হয়েছে। সেটিকে এজাহারভুক্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।