Opu Hasnat

আজ ২৪ সেপ্টেম্বর সোমবার ২০১৮,

কোরবানির পশু জবাইয়ে ৩৭০ স্থান নির্ধারণ চসিকের চট্টগ্রাম

কোরবানির পশু জবাইয়ে ৩৭০ স্থান নির্ধারণ চসিকের

কোরবানির ঈদের দিন নগরে পশু জবাইয়ের জন্য ৩৭০টি স্থান নির্ধারণ করেছে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক)। সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী এ দিন বিকেল ৪টার মধ্যে নগরে জবাই করা পশুর বর্জ্য অপসারণে ব্যাপক কর্মপরিকল্পনা হাতে নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। পাশাপাশি কোরবানির পশু জবাইয়ের পরপরই নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে বর্জ্য অপসারণে দায়িত্বে থাকবেন চসিকের স্থায়ী-অস্থায়ী ৫ হাজার পরিচ্ছন্নকর্মী।

চসিকের বর্জ্য ব্যবস্থাপনা স্ট্যান্ডিং কমিটির সভাপতি শৈবাল দাশ সুমন বলেন, কোরবানির ঈদের বর্জ্য ব্যবস্থাপনা সামনে রেখে নানান উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। পশু জবাইয়ের জন্য নগরের ৪১ ওয়ার্ডের ৩৭০ স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে। সিটি করপোরেশের নির্ধারিত স্থানে পশু জবাই সংক্রান্ত তথ্যসহ ৪ লাখ ১০ হাজার লিফলেট ও ২০ হাজার ৫০০ পোস্টার এবং ৭৬ হাজার ২৩১টি ব্যানার ৪১ ওয়ার্ডে বিতরণ করা হচ্ছে। এছাড়াও চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন পশু কোরবানির নির্বাচিত স্থানে পানির সরবরাহ, সেবাপ্রাপ্তির বসার স্থান, তাবু টাঙানো এবং বিøচিং পাউডারের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। নির্ধারিত স্থান ছাড়া উন্মুক্ত স্থান বা সড়কে পশু জবাই করা যাবে না। তবে কেউ চাইলে তার বাড়ি বা বসার আঙিনায় পশু কোরবানি দিতে পারবেন।

তিনি বলেন, চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের নির্দেশনা অনুযায়ী ঈদের দিন ও ঈদের পরের দিন মোট ২ দিনে প্রতি ওয়ার্ডে টমটম আবর্জনাবাহী গাড়ি, পে লোডার, ট্রাক্টর ওয়াগনসহ ২৪১টি গাড়ি ও অবশিষ্ট ১০টি গাড়ি দামপাড়া কন্ট্রোল রুমে রিজার্ভ থাকবে।

এদিকে, বর্জ্য অপসারণ কার্যক্রম নিশ্চিত কল্পে কোরবানি ঈদের দিন সকল স্থায়ী-অস্থায়ী ৫ হাজার পরিচ্ছন্ন কর্মীর ছুটি বাতিল করেছে সিটি করপোরেশন কর্তৃপক্ষ। এছাড়াও কোরবানির ঈদের দিন সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৪টার মধ্যে পুরো নগরে জবাইকৃত পশুর বর্জ্য অপসারণ এবং ঈদের পরের দিন শেষ রাত পর্যন্ত বর্জ্য অপসারণের লক্ষে ৪১টি ওয়ার্ডকে উত্তর, দক্ষিণ, পূর্ব, পশ্চিম-৪টি জোনে ভাগ করা হয়েছে। প্রত্যেক জোন তদারকির জন্য একটি করে ‘উপ-কমিটি’ ও ৪ সদস্য বিশিষ্ট ১টি কেন্দ্রীয় কমিটি গঠন করা হয়েছে। পাশাপাশি ডোর টু ডোর পদ্ধতিতে বর্জ্য সংগ্রহ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। এ লক্ষে সমস্ত কার্যক্রম ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলরা তদারকি করারও নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।