Opu Hasnat

আজ ২৪ সেপ্টেম্বর সোমবার ২০১৮,

রাজবাড়ীতে গৃহবধুর গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার রাজবাড়ী

রাজবাড়ীতে গৃহবধুর গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার

রাজবাড়ী জেলা সদরের আলীপুর ইউনিয়নের বারবাকপুর এলাকা থেকে হাজেরা বেগম নামে এক গৃহবধূর গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সেই সাথে হাজেরার পুত্রবধু স্বপ্না বেগমকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। হাজেরা বেগম আলীপুর ইউনিয়নের বারবাকপুর এলাকার তমিজউদ্দিনের স্ত্রী।

নিহতের ননদ পিয়ারা বেগম জানান, প্রতিদিনের মতো রাতে খাবার খেয়ে সবাই যে যার ঘরে শুয়ে পড়েন। স্বপ্না বেগমের স্বামী মালয়েশিয়া প্রবাসী। তাই হাজেরা বেগম ছেলের বউ স্বপ্নার সঙ্গে ঘুমান। পাশে আরেক ঘরে ঘুমিয়ে ছিলেন নিহতের স্বামী তমিজউদ্দীন। রাত ১২ টার দিকে স্বপ্না বেগমের চিৎকার শুনতে পান পরিবারের সদস্যরা। সবাই ঘরে ছুটে এসে খাটের ওপর হাজেরা বেগমকে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন। এ সময় স্বপ্না বেগমকে  হাতে ধারালো অস্ত্রের আঘাত অবস্থায় উদ্ধার রাজবাড়ী সরকারী হাসপাতালে নিয়ে যান তার স্বজনেরা।

আলীপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শওকত হাসান জানান, একই কায়দায় চলতি মাসের ২ তারিখে রাজবাড়ী সদর উপজেলার মূলঘর ইউনিয়নের পশ্চিম মূলঘর এলাকা থেকে দাদী সাহিদা বেগম ও তার নাতনী লামিয়া আক্তারের জবাই করা মরদেহ, ৮ তারিখে বানিবহ ইউনিয়নের আটদাপুনিয়া গ্রামে গৃহবধু আদুরীর গলাকাটা মরদেহ এবং শুক্রবার রাতে আলীপুর ইউনিয়নে বারবাকপুর গ্রামে এই হত্যাকান্ড ঘটেছে। আমরা এ সকল হত্যা কান্ডের সঠিক তদন্ত এবং বিচার দাবী করি। 

রাজবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ তারিক কামাল জানান, স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে পুলিশ নিহতের শোয়ার ঘর থেকে গলাকাটা মরদেহটি উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়। ধারনা করা হচ্ছে রাতের কোন এক সময় ধারালো অস্ত্রদিয়ে দুর্বৃত্তরা হাজেরা বেগমকে হত্যা করেছে। এ ব্যপারে এখন পর্যন্ত কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি তবে অভিযান চলমান আছে। নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা দায়ের করা হয়েছে।