Opu Hasnat

আজ ১৮ আগস্ট শনিবার ২০১৮,

পাইকগাছায় নিজের অপকর্ম স্বামীর নামে মামলা খুলনা

পাইকগাছায় নিজের অপকর্ম স্বামীর নামে মামলা

পাইকগাছায় নিজের অপকর্ম ঢাকতে স্ত্রী কর্তৃক স্বামীসহ তার পরিবারের সদস্যদের নামে থানায় মামলা দায়েরের ঘটনা ঘটেছে। ঘটনাটি উপজেলার গদাইপুর গ্রামে। এলাকার সচেতনমহল সঠিক তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট দাবী জানিয়েছেন। 

অভিযোগ ও তথ্যানুসন্ধানে জানা যায়, পাইকগাছা উপজেলার গদাইপুর গ্রামের শহিদুল গাজীর ২ পুত্র সোহরাব ও রুবেল গাজী ঢাকায় দীর্ঘদিন একটি সিকিউরিটি সার্ভিসে চাকুরী করে আসছে। সোহরাব চাকুরীর সুবাদে ঢাকায় থাকায় বাড়ীতে তার স্ত্রী সখিনা খাতুন, পিতা-মাতার সাথে থাকে। সোহরাবের অনুপস্থিতিতে স্ত্রী সখিনা খাতুন পাশর্^বর্তী পুরাইকাটি গ্রামের জনৈক ইকবাল হোসেনের সাথে অবৈধ সম্পর্ক গড়ে তোলে। ইকবাল হোসেন গত ৬ আগস্ট রাতে সখিনার ঘরে প্রবেশ করে অনৈতিক কার্যকলাপ করা অবস্থায় তার শ^শুর-শাশুড়ী ধরে ফেলে। এ নিয়ে ঐ রাতেই এলাকায় হৈ-চৈ পড়ে যায়। পরে ইকবাল পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। সখিনা বিষয়টি ধামা চাপা দিতে তার পিত্রালয় পাশে শ্যামনগরে তার ভাই বোনদের খবর দিলে পরদিন মঙ্গলবার সকালে তারা দলবদ্ধ হয়ে শ^শুর-শাশুড়ি ও ননদ তহমিনাকে মারপিট করে চলে যায়। পরে বিষয়টি ধামা চাপা দিতে সখিনা ৬জনকে আসামী করে থানায় মামলা করে। মামলা নং- ১০, তাং- ০৮/০৮/২০১৮। মামলায় সখিনা স্বামী সোহরাব ও দেবর রুবেলকে ১ ও ২নং আসামী করা হয়েছে। তারা ঢাকার একটি সিকিউরিটি সার্ভিসে দীর্ঘদিন চাকুরী করছে। আর ৫ ও ৬নং আসামী ননদ ও জামাই এবং ৩-৪ নং আসামী শ্বশুর-শ্বাশুড়ি হইতেছে। এ নিয়ে এলাকায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। সখিনার শ্বাশুড়ী ফরিদা ৫ জনকে আসামী করে থানায় একটি অভিযোগ করেছে। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। 

ওসি আমিনুল ইসলাম বিপ্লব জানান, মামলাটি তদন্তাধীন। তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত কোন মন্তব্য করতে রাজী হয়নি।

এই বিভাগের অন্যান্য খবর