Opu Hasnat

আজ ১৮ আগস্ট শনিবার ২০১৮,

দীঘিনালায় দুর্বৃত্তদের গুলিতে নিহত মঞ্জুরুল হত্যায় মামলা খাগড়াছড়ি

দীঘিনালায় দুর্বৃত্তদের গুলিতে নিহত মঞ্জুরুল হত্যায় মামলা

খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার দীঘিনালা উপজেলায় ব্রাশফায়ারে মঞ্জুরুল আলম নামে এক যুবককে হত্যার ঘটনায় মামলা হয়েছে। নিহতের স্ত্রী সুজাতা চাকমা বাদী হয়ে বুধবার দুপুরে দীঘিনালা থানায় অজ্ঞাত ৮-১০ জনকে আসামী করে হত্যা মামলা দায়ের করেন। দীঘিনালা থানার ওসি মো: আব্দুস সামাদ এ তথ্য নিশ্চিত করেন। মঙ্গলবার দীঘিনালার পোমাং পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে দূর্বৃত্তরা ব্রাশ ফায়ার করে হত্যা করে মঞ্জুরুল আলমকে। সে দীঘিনালার বাবুছড়া এলাকার মৃত মোস্তাফিজুর রহমানের ছেলে।

পুলিশ জানায়, মাঠে বসে তাস খেলার সময় সন্ত্রাসীরা মঞ্জুরুল আলমকে লক্ষ্য করে ব্রাশ ফায়ার করে। মাথা, বুক, পিঠসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে ২৩ রাউন্ড গুলির চিহ্ন রয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে ৩৪ রাউন্ড গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়েছে। নিহত ব্যক্তির বিরুদ্ধে দীঘিনালা থানায় একটি চাঁদাবাজির মামলা রয়েছে। ঐ মামলায় সে তিন মাস কারাগারে ছিল। ধারণা করা হচ্ছে আঞ্চলিক রাজনৈতিক দলের শ্রশস্ত্ররা তাকে হত্যা করেছে। নিহতের স্বজনরা খুনীদের দৃষ্টান্মূলক শাস্তি দাবি করেছেন। 

দীঘিনালা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: আব্দুস সামাদ জানান, খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে লাশের ময়না তদন্ত শেষে স্বজনদের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে। পুলিশ দীঘিনালায় ব্রাশফায়ারে মঞ্জুরুল আলম নামে এক যুবককে হত্যার ঘটনায় মামলা হয়েছে। মঙ্গলবার (৭ আগষ্ট) রাতে দীঘিনালার পোমাং পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে দুবৃর্ত্তরা ব্রাশ ফায়ার করে তাকে হত্যা করে। সে দীঘিনালার বাবুছড়া এলাকার মৃত মোস্তাফিজুর রহমানের ছেলে।

এদিকে পুলিশ এ ঘটনয় তদন্তে মাঠে নেমেছে। নিহতের স্বজনরা খুনীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছেন। এ ছাড়া ঘটনার দিন ঘটনাস্থল থেকে ৩৪ রাউন্ড গুলির খোসা উদ্ধার করে নিরাপত্তা বাহিনী।

মঞ্জুরুল আলমের ছোট ভাই জানায়, মঞ্জুরুল আলম ১০ বছর আগে এক চাকমা স¤প্রদায়ের নারীকে বিয়ে করে। সংসারে দুই ছেলে রয়েছে। বিয়ের পর থেকে মঞ্জুরুল আলম দীঘিনালা সদর উপজেলার পোমাং পাড়ায় বসবাস করছিল।

এটি একটি আঞ্চলিক রাজনৈতিক দলের সন্ত্রাসীরা মঞ্জুরুল আলমকে হত্যা করেছে এমন অভিযোগ করে নিহতের স্বজনরা খুনীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন।