Opu Hasnat

আজ ১৯ ডিসেম্বর বুধবার ২০১৮,

চরভদ্রাসন উপজেলা ইউএনও’র অপসারন দাবীতে মিছিল ফরিদপুর

চরভদ্রাসন উপজেলা ইউএনও’র অপসারন দাবীতে মিছিল

ফরিদপুরের চরভদ্রাসনে উপজেলা নির্বাহী অফিসার কামরুন নাহারের অপসারন দাবী করে মিছিল করেছে উপজেলা আওয়ামীলীগ ও তার অঙ্গসংগঠন। এসময় তারা ইউএনও’র চরভদ্রাসন ছাড়ার শ্লোগান দিয়ে শুক্রবার দুপুর ১২টার দিকে উপজেলা আওয়ামীলীগের কার্যালয় হতে আ’লীগের সাধারন সম্পাদক মো: কাউসার হোসেন এর নেতত্বেৃ একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি চরভদ্রাসন সদর বাজার হয়ে উপজেলা পরিষদ চত্বর প্রদক্ষিন শেষে আ’লীগ কার্যালয়ের সামনে এক সংক্ষিপ্ত সভা করে শেষ হয়।

সভায় উপজেলা আ’লীগের সাধারন সম্পাদক তার বক্তব্যে বর্তমান ইউএন’ওর বিভিন্ন অনিয়মের চিত্র তুলে ধরে বলেন, “ইউএনও অত্র উপজেলায় যোগদানের পর হতে স্থানীয় আ’লীগের নেতা কর্মীদের কৌশলে বাদ দিয়ে তার মনমত জামায়াত, বিএনপি এর সদস্যদের নিয়ে নামমাত্র ভাবে পালন করে আসছেন সরকারী বিভিন্ন অনুষ্ঠান। সম্প্রতি ৬ আগষ্ট সোমবার জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস ১৫ আগষ্ট উদ্যাপনের লক্ষে এক প্রস্তুতি সভা করেন যেখানে আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক সহ অঙ্গ সংগঠনের  কাউকে কোন দাওয়াত পত্র না দিয়ে তার পদন্দমত লোকদের নিয়ে দায়সারা ভাবে প্রস্তুতি সভা সম্পন্ন করেন। এ সময় সাধারন সম্পাদক ও উপস্থিত অন্যান্য নেতৃবৃন্দ  ইউএনও কে স্বেচ্ছায় চরভদ্রাসন উপজেলা ছেড়ে যেতে বলেন। অন্যথায় কঠোর আন্দোলনের হুশিয়ারী দেন”। 

বিক্ষোভ মিছিলে  উপস্থিত ছিলেন জেলা আ’লীগের ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক জহিরুল ইসলাম বাসু, উপজেলা আ’লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আজাদ খান, সহ-সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা শফিউদ্দীন খালাশী, যুবলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি মো: দীপু খালাশী, সাধারন সম্পাদক মো: খোকন মোল্যা, সাংগঠনিক মো: মাসুদ, ছাত্রলীগের সভাপতি বেলায়েত হোসেন রুবেল, সাধারন সম্পাদক মো: মিজানুর রহমান ও স্থানীয় আ’লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। 

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার কামরুন নাহারের কাছে জানতে চাইলে তিনি মুঠোফোনে বলেন, আমি সকলকে নিয়ে কাজ করছি। কাউকে বাদ দিয়ে কোন কাজ করছিনা। উপজেলা চেয়ারম্যান যেহেতু বিএনপির লোক সেহেতু প্রোগাম গুলোতে তার সাথে আমাদের অনেক ক্ষেত্রে এক জায়গায় দেখা হয়। এছাড়া অন্য কিছু নয়। তিনি বলেন, ১৫ আগষ্ট উদ্যাপনের লক্ষে প্রস্তুতি সভায় সকলকে দাওয়াত দেয়া হয়েছে। তবে ওই মিটিংয়ে উপজেলা আ’লীগের সাধারন সম্পাদক মো: কাউসার হোসেন যোগ দেননি। তবে এর পড়েও বলবো কোন কিছুতে আমার ভুল হলে তারা আমাকে বলতে পারতো।