Opu Hasnat

আজ ১৫ অক্টোবর সোমবার ২০১৮,

সুনামগঞ্জ জেলা শহরের উল্লেখযোগ্য তিন কলেজের এইচএসসির ফলাফল সুনামগঞ্জ

সুনামগঞ্জ জেলা শহরের উল্লেখযোগ্য তিন কলেজের এইচএসসির ফলাফল

সুনামগঞ্জ জেলা শহরের উল্লেখযোগ্য তিন মহাবিদ্যালয় সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজ, সুনামগঞ্জ সরকারি মহিলা কলেজ ও সুনামগঞ্জ পৌর ডিগ্রি কলেজে এইচএসসি পরিক্ষায় অংশগ্রহণ করে ভালো ফলাফল করেছেন অনেক শিক্ষার্থী। অনেকেই আবার উত্তির্ণ হতে না পেরে হয়েছেন হতাশ। গতকাল বৃহস্পতিবার এ ফলাফল প্রকাশ করা হয়। এতে  এবছর জিপিএ ৫এর সংখ্যা কম হওয়ায় উত্তির্ণ হওয়া শিক্ষার্থীদের কেউ কেউ বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তির বিষয়ে চিন্তিত। তবে শিক্ষকরা মনে করছেন শিক্ষার মান গত বছরের তুলনায় বেড়েছে। জেলা শহরের ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজে এবছর এইচএসসি পরিক্ষায় অংশগ্রহণ করে ১২৩৭জন পরিক্ষার্থী। এরমধ্যে পাশ করেছে ৯২৯জন। পাশের হার ৭৫.১০%। এই কলেজে এবছর জিপিএ ৫ এসেছে ৭টি।কলেজের ব্যবসায় শিক্ষা শাখা থেকে পরিক্ষায় অংশ নেয় ২৪২জন, এরমধ্যে উত্তির্ণ হতে পারেনি ১৮জন শিক্ষার্থী। এই বিভাগে জিপিএ ৫ এসেছে ৩টি। তাছাড়া মানবিক বিভাগ থেকে পরিক্ষায় অংশ নেয় ৩৫৪জন। উত্তির্ণ হতে পারেনি ১৪জন। বিজ্ঞান বিভাগে পরিক্ষায় অংশ নেয় ৩৩৩জন। উত্তির্ণ হতে পারেনি ৫৪জন। এই বিভাগ থেকে জিপিএ ৫ এসেছে ৪টি।

অন্যদিকে, সুনামগঞ্জ সরকারি মহিলা কলেজে এবছর এইচএসসি পরিক্ষায় অংশ গ্রহণ করে ৭৬৫জন পরিক্ষার্থী। এদের মধ্যে পাশ করেছে ৫৫৩জন। এই প্রতিষ্ঠানে এবছর পাশের হার ৭২.২৯% । সুনামগঞ্জ সরকারি মহিলা কলেজে মানবিক বিভাগ থেকে এবছর পরিক্ষায় অংশ নেয় ৬৩৩জন ছাত্রী। এর মধ্যে পাশ করেছে ৪৭৩জন। এ বিভাগে পাশের হার ৭৪.৭২%। পাশাপাশি কলেজের বিজ্ঞান বিভাগ থেকে ১৩২জন ছাত্রী পরিক্ষায় অংশ নেয়। এরমধ্যে পাশ করেছে ৮০জন। বিজ্ঞাণ বিভাগে পাশের হার ৬০.৬১%। এছাড়াও সুনামগঞ্জ পৌর ডিগ্রী কলেজে এবছর পাসের হার ৩৩.২৬%। মোট পরীক্ষার্থী ছিলো ৪৮১জন। এরমধ্যে কৃতকার্য হয়েছে ১৬০জন।কলেজের মানবিক বিভাগ থেকে অংশ নেয়া পরীক্ষার্থী ছিলো ৪৫৬জন। এরমধ্যে কৃতকার্য হয়েছে ১৫৭জন। এই বিভাগে পাসের হার ৩৪.৪৩%। পাশাপাশি কলেজটির ব্যবসায় শিক্ষা শাখা থেকে এইচএসসি তে অংশ নেয়া পরীক্ষার্থী ছিলো ২৫ জন। এরমধ্যে কৃতকার্য হয়েছে ৩জন। এ বিভাগে পাসের হার ১২.০০%। এ বিষয়ে সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ নিলিমা চন্দ বলেন, এ বছর এইচএসসি তে পাশের হার টা কমেছে, কিন্তু পাশের হার কমলেও শিক্ষার মান টা বৃদ্ধি পেয়েছে বলেই আমি মনে করি। ##