Opu Hasnat

আজ ২৬ সেপ্টেম্বর বুধবার ২০১৮,

ব্রেকিং নিউজ

গোপালগঞ্জের এসেনসিয়াল ড্রাগস ৩০ জুলাই উৎপাদনে যাচ্ছে গোপালগঞ্জ

গোপালগঞ্জের এসেনসিয়াল ড্রাগস ৩০ জুলাই উৎপাদনে যাচ্ছে

গোপালগঞ্জে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন ওষুধ উৎপাদন প্রতিষ্ঠান এসেনসিয়াল ড্রাগস কোম্পানি লিমিটেডের (ইডিসিএল) কারখানা নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। ৩০ জুলাই থার্ড প্ল্যান্ট এ প্রকল্পটি উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এই দিন স্বপ্নের এই প্রকল্পটি ওষুধ উৎপাদনে গিয়ে একদিকে দেশের বেকার সমস্যা দূর করবে, পাশাপাশি গোপালগঞ্জবাসীর দীর্ঘ দিনের স্বপ্ন বাস্তবে রুপ নেবে।

এসেনসিয়াল ড্রাগস কোম্পানি লিমিটেড চালু হলে দেশের ৭’শ ৭৮ জন বেকারের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে। অন্যদিকে এ প্রকল্পে উৎপাদিত উন্নত মানের ঔষধ দেশের চাহিদা মিটিয়ে বিদেশেও রপ্তানি করার চিন্তা ভাবনা রয়েছে বলে জানালেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার ঘোনাপাড়া নামক স্থানে চক্ষু হাসপাতালের বিপরীতে ১০ একর জায়গার ওপর নির্মিত প্ল্যান্টটি নির্মাণে ব্যয় হয়েছে ৬’শ কোটি টাকা।

গোপালগঞ্জ থার্ড প্ল্যান্ট প্রকল্পটির প্রকল্প ব্যবস্থাপক বি এম ইমাম হাসান জানান, এ মাসের ৩০ জুলাই পেনিসিলিন ইউনিটের উৎপাদন কাজ আনুষ্ঠানিক ভাবে উদ্বোধন করা হবে। পর্যায় ক্রমে বাকি তিনটি ইউনিটও উৎপাদনে যাবে। ইতোমধ্যে প্রকল্পের ৯৭ ভাগ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। প্রকল্পের অভ্যন্তরে মাটি ভরাট, ভবন গুলোর সাজসজ্জা, বিদেশ থেকে আমদানি করা উন্নত মানের মেশিনারিজ মালামাল স্থাপন ও জনবল নিয়োগ সম্পন্ন করেই উৎপাদনে যাবে এ প্রকল্পটি। এ প্রকল্পটি উৎপাদনে গেলে দেশের ৭’শ ৭৮ জন বেকার ব্যক্তির কর্মসংস্থানের সৃষ্টি হবে।
এসেনসিয়াল ড্রাগস কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) প্রফেসর এহেসানুল করিম জানান, গোপালগঞ্জের প্ল্যান্টটি চালু হলে সেখানে বিভিন্ন পর্যায়ে প্রায় ৮০০ মানুষের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হবে। পাশাপাশি কনট্রাকপেটিভ পিল ও ইনজেকশন, আইভি ফ্লুইড, পেনিসিলিন ও আয়রন ট্যাবলেট উৎপাদন করা হবে। কারখানাটি চালু হলে বছরে ৩ হাজার ৩০০ মিলিয়ন জন্ম নিয়ন্ত্রণ ইনজেকশন, ৩ হাজার ২ মিলিয়ন পিল, ১৮১ মিলিয়ন পেনিসিলিন ট্যাবলেট, ২১৭ মিলিয়ন পেনিসিলিন ক্যাপসুল উৎপাদন হবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা থার্ড এ প্ল্যান্ট প্রকল্পটি আগামী ৩০ জুলাই উদ্বোধন করবেন বলে সম্প্রতি সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম।
বর্তমানে ইডিসিএলের ঢাকা ও বগুড়ায় দুটি কারখানা এবং খুলনায় একটি ল্যাটেক্স প্ল্যান্ট রয়েছে। গোপালগঞ্জে নতুন প্রতিষ্ঠিত এ কারখানাটি চালু হলে শতভাগ ওষুধ সরবরাহ করা সম্ভব হবে বলেও জানান এসেনসিয়াল ড্রাগস কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক।