Opu Hasnat

আজ ১৪ নভেম্বর বুধবার ২০১৮,

বেকারত্ব দুরীকরণে ভুমিকা রাখছে মিরাকেল এগ্রো মাল্টি ফার্ম কৃষি সংবাদরাজবাড়ী

বেকারত্ব দুরীকরণে ভুমিকা রাখছে মিরাকেল এগ্রো মাল্টি ফার্ম

এলাকার বেকার যুবকদের কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও নিজেকে স্বাবলম্বী করে গড়ে তুলতে রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার বহরপুরে ২০০৩ সালে ৫ একর জমির উপর গড়ে তোলে মিরাকেল এগ্রো মাল্টি ফার্ম। এ ফার্মে কাজ করে শতাধিক বেকার যুবকের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হয়েছে। এগ্রো ফার্মের সত্বাধিকারী মোঃ মনিরুজ্জামান খান মালেক নিজেও এখন স্বাবলম্বী।

এ ফার্মে কর্মরত মোঃ মকছেদ মিয়া, একেন আলী, ইসহাক আলী শেখ, জানান, কাজের অভাবে বেকার অবস্থায় ঘুরে বেড়াচ্ছিলেন। মিরাকেল এগ্রো মাল্টি ফার্মে কাজ শুরু করার পর তারা এখন স্বাবলম্বী। বাড়ীর নিকটেই ফার্ম হওয়ার কারণে বেশি বেগ পেতে হয় না। এর ফাঁকে বাড়ীর অন্যান্য কাজও করা যায়। 

সাগর শেখ, সুমন শেখ, বাদশা মন্ডল, সুকুমার বিশ্বাস, নার্গিস বেগম জানান, এ ফার্মে কাজ করে সংসার পরিচালনার পাশাপাশি ছেলে-মেয়েদের লেখাপড়া করিয়ে মানুষের মতো মানুষ করার চেষ্টা করছি। তাদের মতো শতাধিক লোকজন এ ফার্মে কাজ করে। প্রত্যেককে কাজ ভাগ করে দেওয়া হয়। যার যার কাজ সেই সেই করে। এতে দিনদিন ফার্মটিও উন্নতির দিকে যাচ্ছে ও নিজেরাও কর্মসংস্থান পেয়ে স্বাবলম্বী হচ্ছেন। 

এগ্রো ফার্মের সত্বাধিকারী মোঃ মনিরুজ্জামান খান মালেক জানান, এলাকার বেকার যুবকদের কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও নিজেকে স্বাবলম্বী করে গড়ে তুলতে বহরপুরে ২০০৩ সালে নিজের ৫ একর জমির উপর গড়ে তোলা হয় মিরাকেল এগ্রো মাল্টি ফার্ম। এ ফার্মে ৯ টি পুকুর ছাড়াও অন্যান্যে স্থানে রয়েছে ৪২ টি পুকুর। এসব পুকুরে দেশী শৈল, মনোসেক্স তেলাপিয়া, দেশী কার্পসহ বিভিন্ন প্রজাতির মাছের চাষ করা হয়। মাছ চাষের পাশাপাশি গরু, ধান, ঘাস, হাঁস, মুরগী, ছাগলসহ বিভিন্ন সমন্বিত চাষ করা হয়। বর্তমানে খামারে ১ হাজার ক্যামবেল হাঁস, ৮ টি গরু, ৪২ টি চায়না হাঁস, ১০ টি টার্কি, ৫ টি রাজহাঁস, ৮ টি তিতপাখি, উন্নত জাতের কবুতর, আম চাষ করা হয়। এখানে শতাধিক বেকার কাজ করে তাদের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হয়েছে। ব্যাংক যদি প্রকৃত খামারীদের সহজ শর্তে ঋন প্রদান করে তাহলে এলাকার বেকার যুবকদের কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা সম্ভব। তবে এদেরকে কোন সরকারী দপ্তর খোঁজ খবরও নেয় না।

উপজেলা সহকারী মৎস্য কর্মকর্তা রবিউল হক জানান, মিরাকেল এগ্রো মাল্টি ফার্মটি বেকার সমস্যার দুরীকরণে ভুমিকা রাখছে। এখানে মাছ, হাঁস, মুরগী, গবাদীপশুসহ মিশ্র চাষ করা হয়। ফার্মের সকল প্রকার সুবিধা-অসুবিধার খোঁজ খবর রাখা হয়। এধরনের ফার্ম তৈরী হলে এলাকার অনেক বেকারদের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে।

রাজবাড়ী জেলা প্রানি সম্পদ কর্মকর্তা সিদ্দিকুর রহমান জানান, রাজবাড়ীতে মিশ্র খামার করে অনেক বেকার এখন স্বাবলম্বী হচ্ছে। জেলায় ২১১ টি লেয়ার মুরগির ফার্ম, ৮৬২ টি পোল্ট্রি ফার্ম, ০৯ টি হাসের খামার, ১২৫ টি কবুতরের ফার্ম, ১৫ টি কোয়েল পাখির ফার্ম রয়েছে। জেলা সম্পদ কার্যালয় থেকে এদের সব সময় খোঁজ খবর নেওয়া হচ্ছে। সরকারের পক্ষ থেকে সহজ শর্তে এবং কম সুদে লোন দেওয়া হলে রাজবাড়ীতে তরুন ও বেকাররা আরো নতুন নতুন খামার তৈরি করতে পারবে।  

এই বিভাগের অন্যান্য খবর