Opu Hasnat

আজ ২৫ জুন সোমবার ২০১৮,

ব্রেকিং নিউজ

ঝালকাঠি জেলারের নামে প্রতারণা করে অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে একটি প্রতারক সিন্ডিকেট ঝালকাঠি

ঝালকাঠি জেলারের নামে প্রতারণা করে অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে একটি প্রতারক সিন্ডিকেট

ঝালকাঠি কারাগারের জেলারের নামে অভিনব কৌশলে প্রতারণা করে একটি চক্র আসামীদের পরিবারের কাছ থেকে দীর্ঘ দিন ধরে হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। কারাগারের জেলার এই চক্রটির কথা স্বীকার করলেও তিনি এবিষয়ে কোন আইনানুগ ব্যবস্থা নেননি। তাই একের পর এক এভাবে প্রতারণার ঘটনা ঘটেই চলছে। গত রবিবার ঝালকাঠি সদর উপজেলার নৈয়ারী গ্রামের প্রসাধনী ব্যবসায়ী নাসির উদ্দিন একটি মামলায় গ্রেফতার হয়ে ঝালকাঠি জেলা কারাগারে অবস্থান করছে। সোমবার বিকেলে নাসিরের পরিবারকে প্রতিবেশী কুদ্দুস মোল্লা জানায় নাসির গুরুতর অসুস্থ্য হওয়ায় তাকে বরিশাল শেরেবাংলা হসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তাই ঝালকাঠি কারাগার জেলারের  ০১৭৯১৪৪৭১৯৭ এই নম্বরে যোগাযোগ করতে বলে সে। 

এ বিষয়ে হাজতি নাসিরের বোন রীনা বেগম জানায়, ভাইয়ের অসুস্থ্যতার খবর পেয়ে জেলারের উল্লেখিত নম্বরে বিষয়টির সত্যতা জানতে চাই। জেলার পরিচয়ে একজন জানায় আমার ভাই হৃদরোগে অসুস্থ্য হওয়ায় বরিশালে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়েছে। চিকিৎসা করাতে ৯০ হাজার টাকা লাগবে।  জেলার পরিচয়ে সে আরো জানায় ৩০ হাজার টাকা জেল কতৃপক্ষ বহন করবে আমাদের ৬০ হাজার টাকা দিতে হবে। এজন্য ঐ ব্যক্তি বরিশাল হাসপাতাল ডাক্তারের ০১৮২৩৫৪০১৯৩ এই নম্বারে যোগাযোগ করতে বলে। এই নম্বরে ফোন দিলে ডাক্তার পরিচয়ে আমার ভাইয়ের অপারেশনের জন্য ২৫ মিনিটের মধ্যে টাকা পাঠাতে বলে। এ কথা শুনে আমরা মানসিক ভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পরি। তখন এলাকার মেম্বর সোহেল মৃধা আমাদের বাড়িতে এসে জানায়, শুনেছি নাসির অসুস্থ্য, চিকিৎসার জন্য টাকা প্রয়োজন। আমার কাছে তাড়াতাড়ি টাকা দিন আমি বিকাশ করে পাঠিয়ে দিচ্ছি। ঐ মূহুর্তে ৬০ হাজার টাকা  না থাকলেও মেম্বারের হাতে ২৫ হাজার টাকা তুলে দেই। এরপর সে টাকা নিয়ে চলে যায়। 

নাসিরের বোন রীনা বেগম আরো জানান, পরবর্তীতে ঝালকাঠি জেলা কারাগারে খোঁজ নিয়ে জানতে পারি আমার ভাই কারাগারেই সুস্থ্য আছেন। তখন আমরা বুঝতে পারি আমাদের সাথে ভাইয়ের অসুস্থ্যতার কথা বলে প্রতারণা করা হয়েছে। এবিষয়ে মেম্বর সোহেল মৃধার কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, আমার কাছে ২৫ হাজার টাকা দেয়া হয়েছে পাঠানোর জন্য। তাদের দেয়া ০১৭১০৬৯৮৩৯৪১ এবং ০১৯০৮৫৮১৭০৯৫ নম্বরে রকেট এর মাধ্যমে টাকা পাঠিয়ে দেই। প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত ০১৭৯১৪৪৭১৯৭ ও ১৮২৩৫৪০১৯৩ যোগাযোগ করা হলে তা বন্ধ পাওয়া গেছে। 

এ বিষয়ে ঝালকাঠি জেলা কারাগারের জেলার তরিকুল ইসলাম জানান, একটি প্রতারক চক্র জেলারের নামে বেশ কিছুদিন থেকে এভাবে প্রাতারিত করে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। প্রতারক চক্রের বিষয়ে সতর্ক থাকার জন্য আমাদের নোটিস দেয়া আছে।