Opu Hasnat

আজ ১৭ আগস্ট শুক্রবার ২০১৮,

চট্টগ্রাম মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের দোয়া ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত চট্টগ্রামমুক্তিবার্তা

চট্টগ্রাম মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের দোয়া ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত

বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চট্টগ্রাম  মহানগর ইউনিট কমান্ডের  উদ্যোগে পবিত্র মাহে রমজানে তাৎপর্য শীর্ষক আলোচনা সভা, দোয়া ও ইফতার মাহফিল নগরীর আগ্রাবাদস্থ সেন্ট মার্টিন হোটেলের কাকলী ও অন্তরা হলে অনুষ্ঠিত হয়। মুক্তিযোদ্ধা সংসদ মহানগর ইউনিট কমান্ডার মো. মোজাফফর আহম্মদের সভাপতিত্বে ও বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সরওয়ার আলম মুনির সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত ইফতার মাহফিলের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের (চসিক) মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ আ জ ম নাছির উদ্দিন। প্রধান বক্তা ছিলেন বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিলের চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) হেলাল মোরশেদ চৌধুরী বীর বিক্রম। বিশেষ অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) শংকর রঞ্জন সাহা, বিভাগীয় পরিচালক (স্থানীয় সরকার) দীপক চক্রবর্তী, জাপানের অনারারী কনসাল নুরুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. দেলোয়ার হোসেন, সিএমপির উপ-পুলিশ কমিশনার ফারুকুল হক, কোস্ট গার্ডের সাবেক কমান্ডার শহিদুল ইসলাম, মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ¦ বদিউল আলম, সাবেক এমপি মাজহারুল হক শাহ, মুক্তিযুদ্ধ গবেষণা ট্রাস্টের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. মাহফুজুর রহমান ও যুদ্ধকালীন সিএনসি স্পেশাল বীর মুক্তিযোদ্ধা জাহাঙ্গীর চৌধুরী। 

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চট্টগ্রাম মহানগর ইউনিটের ডেপুটি কমান্ডার শহীদুল হক চৌধুরী সৈয়দ, জেলা সংসদের ডেপুটি কমান্ডার সরোয়ার কামাল দুলু, মহানগরীর সহকারী কমান্ডার পান্টু লাল সাহা, সাধন চন্দ্র বিশ্বাস, এফএফ আকবর খান, খোরশেদ আলম, বীর মুক্তিযোদ্ধা জাকির হোসেন মিজান, সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলর ছালেহ আহমদ চৌধুরী, আবিদা আজাদ, সাবেক কাউন্সিলর রেখা আলম চৌধুরী, নৌ-কমান্ডো মো. জিলানী, বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান মো. জসিম উদ্দিন চৌধুরী, মিজানুর রহমান সজীব, কাজী রাজীশ ইমরান, সাজ্জাদ হোসেন, ছৈয়দ জাহিদুল ইসলাম মিলন, নওশাদ মো. রানা প্রমুখ। 

অনুষ্ঠানে চট্টগ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, প্রশাসনিক বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা ও পেশাজীবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন। ইফতার মাহফিলে  দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন নগরীর দারুল ফজল মার্কেট জামে মসজিদের খতিব আলহাজ¦ মাওলানা ফজল আহমদ। 

ইফতার মাহফিলের আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, সকল যুদ্ধাপরাধীর বিচার সম্পন্ন করে রাজাকারদের তালিকা তৈরি, যুদ্ধাপরাধীর সকল সম্পত্তি বাজেয়াপ্তের মাধ্যমে রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমাদান, জঙ্গিবাদ, স্বাধীনতা বিরোধী যুদ্ধাপরাধীদের সম্মান ক্ষুন্নকারীদের চিহ্নিত করে বিচারের ব্যবস্থা করতে হবে। পাশাপাশি সরকার ঘোষিত মাদক বিরোধী অভিযান আরো জোরদার করে সার্বিক সফলতার জন্য দলমত নির্বিশেষে সকল শ্রেণি পেশার মানুষকে ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে আসতে হবে। বীর মুক্তিযোদ্ধারা জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান। তাদেরকে অবমাননা করা মানে জাতির সাথে বেইমানী করা। মুক্তিযোদ্ধারা না হলে আমরা স্বাধীন বাংলাদেশ পেতাম না।

বক্তারা আরো বলেন, মানবতাই মহৎ ধর্ম। যেখানে মানবতা নেই সেখানে ধর্মের অস্তিত্ব নেই। জাতি-ধর্ম-বর্ণ ভেদাভেদ না করে আমরা প্রত্যেকে নিজ নিজ সামর্থ অনুযায়ী মানবতার কল্যাণে কাজ করতে পারলে আগামী প্রজন্মকে একটি সুন্দর দেশ উপহার দিতে পারব। রমজান পাপ মোছনের অন্যতম মাধ্যম। রোজা কেয়ামতের দিন মোমেন ব্যক্তির জন্য সুপারিশকারী হবে এবং রোজার পুরস্কার আল্লাহ নিজের হাতে প্রদান করেন। সিয়াম সাধনার এ মাসে আমরা সকলেই মিলে প্রধানমন্ত্রীর উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় সামিল হলে দেশ কাক্সিক্ষত লক্ষ্যে পৌঁছতে পারবে।