Opu Hasnat

আজ ২০ অক্টোবর শনিবার ২০১৮,

দামুড়হুদার টেংরা শেখ গাড়ল ভেড়া পালন করে ভাগ্যো চাকা ঘুরিয়েছেন কৃষি সংবাদচুয়াডাঙ্গা

দামুড়হুদার টেংরা শেখ গাড়ল ভেড়া পালন করে ভাগ্যো চাকা ঘুরিয়েছেন

চুয়াডাঙ্গার  দামুড়হুদা উপজেলার চারুলিয়া গ্রামে গাড়লভেড়া পালন করে ভাগ্যের চাকা ঘুরিয়েছেন ঐ গ্রামের নাসিরুল ইসলাম ওরফে টেংরা শেখ। ৮টি  গাড়ল থেকে বিশাল খামার গড়ে তুলেছেন তিনি। বর্তমানে ৫কাঠা জমির উপর নির্মিত খামারে ২শত গাড়লভেড়া রয়েছে। যার আনুমানিক মূল্য ১৫লক্ষ টাকা। ঐ সময়ের দিন মজুর টেংরা  দীর্ঘদিন ধরে গাড়লভেড়া পালন করলে ও ৮টি গাড়লভেড়া দিয়ে শুরু করা  খামার করে এখন  ভালোই আছেন টেংরা শেখ।

টেংরা জানান, ১৯৯৫ সাল থেকে গাড়ল পালন করলেও ২০০সালের দিকে বাড়ীর সন্নিকটে ৫কাঠা জমির প্রাচির দিয়ে ঘিরে  ছোট একটি টিনের সেড তৈারী করে ৮টি গাড়ল কিনে   বানিজ্যিক ভারে খামার গড়ে তুলি। এর বছর খানেক পর থেকে খামারে গাড়ল বৃদ্ধি পায়। তখন টেংরা তার ৫কাঠা জমির সিমানার মধ্যে এক সাইডে প্রায় ২কাঠার উপর টিনের সেড তৈরী করা হয় ও অপর সাইডে বাসের কাবারি করে মাচা করে দেওয়া হয়েছে। দিনের বেলায় গাড়ল গুলো ঐ মাচার উপরে থাকে ও রাতে সেডে তুলে দেওয়া হয় । বিভিন্ন সাইজের গাড়ল সাইজ অনুপাতে ৫হাজার থেকে ২০হাজার টাকা পর্যন্ত বিক্রি হয়ে থাকে। এরপর তার খামারে গাড়লবৃদ্ধি পাওয়ার পর কিছু কিছু বিক্রি করা শুরু করে।

২০০৫ সালের দিকে বছরে দেড় লক্ষ থেকে  ২লক্ষ টাকার গাড়ল ভেড়া বিক্রি করতে থাকে বর্তমানে প্রতিবছর এই খামার  থেকে ৪/৫লক্ষ টাকার গাড়ল ভেড়া বিক্রি করে থাকে।

বর্তমানে তার খামারে ছোট বড় প্রায় ২শত গাড়ল ভেড়া রয়েছে। যার মূল্য প্রায় ১৫লক্ষ টাকা। এই খামারের গাড়ল ভেড়া দেখা শোনার জন্য ৪জন লোক রাখা আছে প্রতি মাসে এদের ৩০হাজার টাকা  বেতন দিতে হয়।

টেংরার একটাই মাত্র আয়ের উৎস এই খামার। ২০০৫ সাল খেকে তার খামারের গাড়ল ভেড়া বিক্রি করে  প্রায় ১০বিঘা জমি ক্রয় করেছে। এছাড়া চোখে পড়ার মত দোতালা বাড়ী মটর সাইকেল কিনে বেশ ভালোই আছেন তিনি।  

দামুড়হুদা উপজেলা প্রণিসম্পদ অফিসার ডাঃ মশিউর রহমান জানান, চারুলিয়া গ্রামের নাসিরুল ইসলাম ওরফে টেংরার গাড়লের খামারের নিয়মিত খোঁজ খবর নেয় ও নিয়মিত পরামর্শ দেওয়া হয়।  গাড়লভেড়া দ্রুত বংশ বিস্তার করে থাকে এরা দুই বার বাচ্চা দেয়। এদের রোগ বালাই কম, দ্রুত বাড়ে । ফলে গাড়ল পালন করে দ্রুত লাভবান হওয়া যায়।