Opu Hasnat

আজ ১৯ অক্টোবর শুক্রবার ২০১৮,

প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার পাশাপাশি প্রত্যেক শিশুকে সাংস্কৃতিক চর্চায় উদ্ধুদ্ধ করতে হবে : রীতা দত্ত চট্টগ্রাম

প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার পাশাপাশি প্রত্যেক শিশুকে সাংস্কৃতিক চর্চায় উদ্ধুদ্ধ করতে হবে : রীতা দত্ত

চট্টগ্রাম সরকারি চারুকলা কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর রীতা দত্ত বলেছেন, যে শিশুটি আনন্দ নিয়ে প্রথম পৃথিবীতে আসে তার জীবন যেন আনন্দময় হয়। শিশুদের আনন্দ বিনোদনের যে বিষয়গুলো সেগুলো পেলে শিশুরা স্বাভাবিকভাবে বেড়ে উঠে। প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার পাশাপাশি প্রত্যেক শিশুকে সাংস্কৃতিক ও মেধা মনন চর্চায় উদ্ধুদ্ধ করা গেলে তারা একদিন দেশের যোগ্য নাগরিক হয়ে গড়ে উঠবে। অনেক কষ্ট ও রক্তের বিনিময়ে আমরা মহান স্বাধীনতা অর্জন করেছি। এ স্বাধীনতা রক্ষার দায়িত্ব শিশুরাসহ আমাদের সকলের। ভেদাভেদ না করে আমাদের সকল শিশুর মধ্যে মেলবন্ধন তৈরি করতে পারলে আজকের শিশুরা আগামীতে আলোকিত জাতি হিসেবে দেশ গড়ার প্রত্যয়ে এগিয়ে আসবে। একই সাথে সকলের প্রচেষ্টায় এ পৃথিবী শিশুদের বাসযোগ্য হিসেবে গড়ে উঠবে। 

সোমবার বিকেল ৫টায় চট্টগ্রাম শিশু একাডেমীতে আয়োজিত ৪ দিনব্যাপী  শিশু আনন্দ মেলা, সাংস্কৃতিক উৎসব ও শিশু নাট্য প্রতিযোগিতার সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

শিশু প্রতিনিধি সাফওয়ানুল হকের সভাপতিত্বে ও শিশু একাডেমির প্রশিক্ষক তানভিরুল ইসলাম নাহিদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত শিশু আনন্দ মেলার সমাপনী অনুষ্ঠানে  স্বাগত বক্তব্য রাখেন জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা নারগীস সুলতানা। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন মমতা’র প্রধান নির্বাহী আলহাজ¦ রফিক আহম্মেদ, বিস্তার’র পরিচালক আলম খোরশেদ। 

আনন্দ মেলার সমাপনী অনুষ্ঠানে শিশু একাডেমীর প্রশিক্ষক, ক্ষুদে শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও আমন্ত্রিত সুধীজন উপস্থিত ছিলেন। 

অনুষ্ঠান শেষে মেলা উপলক্ষে আয়োজিত স্টল প্রদর্শিনী, সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের দলীয়, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, নাটক, শ্রেষ্ঠ অভিনয়, একক যাদু প্রদর্শন ও একক পরিবেশনা প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন প্রধান অতিথিসহ অন্যান্য অতিথিবৃন্দ। এবারের শিশু আনন্দ মেলায় যেসব স্টল অংশ নেন এগুলো হচ্ছে- ব্রাইট বাংলাদেশ ফোরাম, রাদিয়া প্রকাশন, স্টেকট্রা অটিজম স্কুল, এসওএস শিশু পল্লী, কিডস্ কালচারাল ইনস্টিটিউট, অপরাজেয় বাংলা, স্কাস টেকনিক্যাল ট্রেনিং সেন্টার, বিটা, চট্টল ইয়ুথ কয়ার, লেডিস কর্ণার, অবসর, সেঞ্চুরী কর্নার, নাহার কালেকশন, থ্রি ফেন্ডস, কিডস জোন ও রোদেলা সোহা। সব শেষে বিশিষ্ট যাদু শিল্পী রাজীব বসাকের যাদু প্রদর্শনসহ মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।